অনলাইন শপিং,ফ্রিল্যান্সিং ও অন্যান্য কাজ করার জন্য এই ওয়েবসাইটে একটি একাউন্ট থাকতে হবে। একাউন্ট খোলা মানেই টাকা দিতে হবে এমন না। ফ্রিল্যান্সার অথবা বায়ার, এর যে কোন একটি চয়েজ করে একাউন্ট তৈরি করতে হবে।অথবা শপিং সেকশনের যে কোন প্রোডাক্টের এ্যাড টু কার্ট বাটনে ক্লিক করেও আপনি একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।সাইনআপ করুন এবং কাজ পোষ্ট করুন। ফ্রিল্যান্সারগণ কাজ খুজুন ও বিড করুন।একাউন্ট তৈরি হলে আপনি আপনার দেয়া ইউজার আইডি ও পাসওর্য়াড ব্যবহার করে সাইটে লগইন করতে পারবেন। You must have an account on this website for online shopping, freelancing and other activities. Opening an account does not mean that you have to pay. Freelancer or buyer, you have to create an account by choosing one of them. Or you can create an account by clicking on the add to cart button of any product in the shopping section.Sign up and post work. Freelancers find work and bid. Once the account is created, you can login to the site using your given user ID and password.

We have 103 guests and no members online

All Posts

3417 posts found

Deshi Group
15 September 2021, 18:56

ইউটিউব চ‍্যানেল খুললেন শাবনূর

ইউটিউব চ‍্যানেল খুললেন শাবনূর
চিত্রনায়িকা শাবনূর দীর্ঘদিন ধরেই বসবাস করছেন অস্ট্রেলিয়ায়। মাঝে মাঝে দেশে আসলেও খুব বেশি দিন থাকেন না। সেখানেই ছেলে আইজান ও বোনের সঙ্গে বসবাস করছেন তিনি।

নিয়মিত কাজ না করলেও শাবনূরের জনপ্রিয়তা এতটুকু কমেনি। ভক্তরা এখনো এই সুপারস্টার নায়িকার জন্য মুখিয়ে থাকেন। শাবনূরও ভক্তদের সেই ভালোবাসা বহুদূরে বসেও টের পান। আর তাই ভক্তদের ভালোবাসা পেতে ইউটিউবে হাজির হলেন শাবনূর।

শাবনূর বলেন, ‘অনেক দিন ধরেই ভাবছিলাম একটা ইউটিউব চ্যানেল করব। শেষ পর্যন্ত করা হলো। এর আগে অফিশিয়াল ফেইসবুক পেইজও করেছি। ইনস্টাগ্রামেও আছি। আসলে এখন তো সবাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরব। এত দিনে এসব মাধ্যমে না থাকার কারণে অনেকেই প্রশ্ন করেছেন আমি কেন নেই। অনেকেই আমার আপডেট জানতে চাইতো। তো এসব কারণেই সবার কাছাকাছি থাকতে আমিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হাজির হলাম।’

এদিকে গত ১৪ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত নিজের ইউটিউব চ্যানেলের সূচনা ভিডিওতে শাবনূর বলেন, ‘বন্ধুরা তোমাদের সাথে থাকতে চাই, তোমাদের পাশে থাকতে চাই এবং তোমাদের ভালোবাসা পেতে চাই।’

উল্লেখ‍্য, শাবনূরকে সর্বশেষ দেখা গিয়েছিল এম এম সরকারের অসমাপ্ত ছবি ‘পাগল মানুষ’-এ। এম এম সরকারের মৃত্যুর পর ছবিটির কাজ শেষ করেছিলেন বদিউল আলম খোকন। ছবিটি ২০১৫ সালে মুক্তি পায়।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:54

বাংলাদেশে পাটের দাম ও চাষ বাড়ছে, সোনালী আঁশের দিন কি আবার ফিরে আসছে?

বাংলাদেশে পাটের দাম ও চাষ বাড়ছে, সোনালী আঁশের দিন কি আবার ফিরে আসছে?
ফরিদপুরের একজন কৃষক হারুন–অর–রশীদ গত বছর পর্যন্ত যে জমিতে ধান চাষ করেছেন, এই বছর সেখানে পাট লাগিয়েছিলেন।

জুলাই মাসে সেই পাট তোলার পর প্রতি মণ বিক্রি করেছেন তিন হাজার ২০০ টাকা করে।

”গত বছর পাট বিক্রি করে অনেকে লাভ করেছে দেখে এইবার আমিও লাগাইছি। দুই বিঘা জমিতে চাষ করেছিলাম, বিক্রি করে ভালো লাভ হইছে। অনেক বছর পর আবার আমরার জমিতে পাট চাষ হইল,” বলছিলেন মি. রশীদ।

বাংলাদেশের যত জমিতে পাট চাষ হয়, তার এক তৃতীয়াংশ হয় বৃহত্তর ফরিদপুর জেলায়। তবে মন্দার কারণে কৃষকরা পাট চাষ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন। কিন্তু গত বছর থেকে ভালো দাম পাওয়ার কারণে আবার পাটের চাষের প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠেছেন কৃষকরা।
বেড়েছে পাটের চাষাবাদ

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে এই বছর সাড়ে আট লক্ষ হেক্টর জমিতে পাটের চাষ হয়েছে। উৎপাদন হয়েছে কম–বেশি ৯০ লাখ বেল (১৮২ কেজিতে এক বেল)।

প্রতি বিঘায় গড়ে নয় মণ পাট চাষ হয়েছে। বেশিরভাগ স্থানে প্রতি মণ পাট বিক্রি হয়েছে তিন হাজার টাকার ওপরে।

বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইন্সটিটিউটের তথ্য অনুযায়ী, ২০১০ সালে ৭ দশমিক শূন্য ৮ হেক্টর জমিতে পাটের চাষ হয়েছিল। সেই বছর মোট উৎপাদন হয়েছিল ১৫ দশমিক ২৬ লাখ মেট্রিক টন। সেই হিসাবে এই বছর উৎপাদন দাঁড়াতে যাচ্ছে প্রায় সাড়ে ১৬ লাখ মেট্রিক টন।
চালের চেয়েও দাম বেশি পাটের

বাজারে এই বছর চালের দাম গত তিনবছরের মধ্যে সর্বোচ্চ স্থানে পৌঁছেছে। বর্তমানে চালের দাম অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু সেই দামকেও টেক্কা দিয়েছে পাট। বাজারে যেখানে এক মণ মোটা চালের দাম ১৬০০ থেকে ২০০০ টাকার মধ্যে রয়েছে, সেখানে ভরা মৌসুমে এক মণ পাটের দাম তিন হাজার টাকার ওপরে।

এই বছরের শুরুর দিকে মজুদ পাটের দাম ছয় হাজার টাকার ওপরে বিক্রি হয়েছে।
যে কারণে বাড়ছে পাটের চাহিদা

বাংলাদেশের পাট গবেষণা ইন্সটিটিউটের মহাপরিচালক কৃষিবিদ মোঃ আইয়ুব খান বিবিসি বাংলাকে বলছেন, সারা বিশ্বে এখন প্লাস্টিক বা সিনথেটিক ফাইবার বাদ দিয়ে ন্যাচারাল ফাইবারের একটা ডিমান্ড তৈরি হয়েছে। নানা ধরণের পণ্য তৈরি হচ্ছে।

”বাংলাদেশে এই খাতে অনেক প্রাইভেট সেক্টর তৈরি হয়েছে, বিনিয়োগ হয়েছে, যারা পাট দিয়ে পণ্য তৈরি করে বিদেশে রপ্তানি করছে। ফলে এই খাতে একটা প্রতিযোগিতার বাজার তৈরি হয়েছে। তারা কৃষকের কাছ থেকে বেশি দামে পাট কিনছে। তাই পাটের চাহিদাও বাড়ছে, দামও বেড়েছে।”

ভালো দাম পাওয়ার কারণে কৃষকরাও পাট চাষের প্রতি আরও বেশি আগ্রহী হয়ে উঠেছে বলে তিনি জানান।

তিনি জানান, গত বছরের আগে পাটের সর্বোচ্চ মূল্য উঠেছিল আড়াই থেকে তিন হাজার টাকা। কিন্তু গত বছর সর্বোচ্চ ছয়–সাত হাজার টাকা দরেও পাটের মণ বিক্রি হয়েছে।

পাট খাতের সাথে সংশ্লিষ্টরা জানাচ্ছেন, প্রতিবেশী ভারতেও পাটের বড় একটি বাজার রয়েছে। বাংলাদেশ থেকে ভারতে কাঁচা পাট রপ্তানির পাশাপাশি অবৈধ পথেও পাট পাচার হয়ে যায় বলে তারা বলছেন।

পাটজাত পণ্য রপ্তানিকারক ইসরাত জাহান চৌধুরী বলছেন, পাটের এত দাম বৃদ্ধির একটা কারণ একটা অসাধু মহল পাট মজুত করে দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন। আরেকটা কারণ হলো আমাদের পাশের দেশে ‘আনঅফিসিয়াল‘ভাবে বেশ কিছু পাট চলে গেছে। যে কারণে আড়াই হাজার টাকার পাটের মণ ছয় হাজার টাকায় পৌঁছেছে।”

পাটের উৎপাদনে বাংলাদেশ সবচেয়ে বড় দেশ হলেও পাটের বর্তমান বিশ্ব বাজার দখল করছে ভারত।

বাংলাদেশে উৎপাদিত এসব পাটের কাঁচামাল ভারতেই সবচেয়ে বেশি রফতানি হয় এবং বিদেশি ক্রেতারা এই পণ্যগুলো ভারতের কাছ থেকে কিনে থাকে।
পাট দিয়ে এখন কী তৈরি করা হচ্ছে?

বাংলাদেশে পাট দিয়ে পাট সূতা, দড়ি, বস্তা, প্যাকিং সরঞ্জাম, ব্যাগ বা থলে, হাতে বাছাই করা আঁশ, পাটজাত কাপড় বহুদিন ধরে তৈরি হয়।

এখন সেই সঙ্গে পাটের তৈরি বৈচিত্র্যময় পণ্যের রপ্তানিও বেড়েছে। পাটের তৈরি টব, খেলনা, জুট ডেনিম, জুয়েলারি, ম্যাটস, নারী–পুরুষের জুতা স্যান্ডেল, বাস্কেট, পাটের শাড়ি, পাঞ্জাবি ও পাটের তৈরি গৃহস্থালি নানা সরঞ্জামের বিদেশে চাহিদা তৈরি হয়েছে। প্রধানত আমেরিকা ও ইউরোপীয় দেশগুলোয় এই জাতীয় পণ্য রপ্তানি করা হয়।

আফ্রিকান দেশগুলো বস্তা ও পাটজাত দড়ি বেশি রপ্তানি হয়।

পাটের আঁশের পাশাপাশি পাটখড়িরও একটি বড় বাজার তৈরি হয়েছে বলে তিনি জানান। এসব পণ্য দিয়ে পার্টিকেল বোর্ড, কম্পোজিট, সেলুলয়েডে ব্যবহার হয়।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, এক যুগের রেকর্ড ভেঙ্গে ২০২০–২০২১ অর্থবছরে বাংলাদেশ পাটজাত দ্রব্য রপ্তানি করে ১১৬.১৪ কোটি ডলার বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করেছে।

আগের বছরের তুলনায় গত বছর পাটজাত পণ্য রপ্তানি বেড়েছে ৩১ শতাংশ।

বেসরকারি খাত পাট পণ্য তৈরি ও রপ্তানি করলেও রাষ্ট্রায়ত্ত ২৬টি পাটকল লোকসানের কারণে গত বছরের পহেলা জুলাই থেকে বন্ধ রয়েছে।
দামবৃদ্ধি নিয়ে শঙ্কায় মিল মালিকরা

গত বছর পাটের দাম বৃদ্ধির পর রপ্তানিকারকরা ছয় হাজার টাকা মণের বেশি দরে পাট কিনেছেন।

তাতে হারুন–অর–রশীদের মতো অনেক কৃষক এই বছর আরও বেশি জমিতে পাট চাষে আগ্রহী হয়েছেন।

তবে রপ্তানিকারকদের আশংকা পাটের দাম এরকম বেশি থাকলে তার নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে।

বাংলাদেশের জুট গুডস এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের পরিচালক ইসরাত জাহান চৌধুরী বিবিসি বাংলাকে বলছেন, ”পাটের বেশি দাম বৃদ্ধির কারণে আমাদের প্রোডাক্টের দাম বাড়াতে হয়েছে, কিন্তু রপ্তানি ভলিউম বাড়েনি। ফলে তারা সুইচ করে অন্য প্রোডাক্টে চলে যাচ্ছে। দামটা এরকম ওঠানামা করলে ভালোর চেয়ে ক্ষতিই বেশি হবে।”

তিনি বলছেন, পাটের দাম একটি স্থিতাবস্থায় বেধে দেয়া সম্ভব হলে কৃষক ও ব্যবসায়ী– উভয়েই লাভবান হবে।

গত মাসে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে একটি বৈঠকে ভারতে যাতে পাট পাচার বন্ধ করার ব্যবস্থা নিতে তারা অনুরোধ করেছেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

সূত্র : বিবিসি বাংলা
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:54

এবার পরী মনির অশ্লীল ইঙ্গিত

এবার পরী মনির অশ্লীল ইঙ্গিত
রাজধানীর বনানী থানায় দায়ের করা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় আলোচিত চিত্রনায়িকা পরী মনি আদালতে হাজিরা দিতে এসে হাতে লেখা নতুন বার্তার মাধ্যমে আবারও আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছেন। আদালতে উপস্থিত অনেকেই এবারকার তার এই বার্তাকে অশ্লীল ইঙ্গিত বলে মন্তব্য করেছেন।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) পরী মনি হাতে মেহেদী রঙে ‘…. মি মোর’ লিখে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজিরা দিতে আসেন। হাজিরা দেওয়ার পর তিনি তার কালো রঙের গাড়িতে দাঁড়িয়ে হাত নাড়িয়ে সবাইকে হাসিমুখে এ লেখাটি দেখান।

এর আগে গত ১ সেপ্টেম্বর এ মামলায় কারামুক্ত হওয়ার পর কাশিমপুর কারাফটকের সামনে পরী মনি হাসিমুখে তার হাতে মেহেদী রঙে লেখা ‘ডোন্ট লাভ মি বিচ’ সবাইকে দেখান। এটির মাধ্যমে অনেকে পরীমনিকে দৃঢ়চেতা মেয়ে মনে করলেও সমালোচনা কম হয়নি। এবার তার আরও সংযত হওয়া উচিত ছিল বলে সামাজিক মাধ্যমে মতামত দেন তার ভক্তরা।

এদিকে, আজ সকাল ১০টা ৪০মিনিটে একটি কালো রঙের গাড়িতে করে পরীমনি আদালতে হাজিরা দিতে আসেন। এরপর লোকজনের ভিড়ে একেবারে নাস্তানাবুদ হতে হয় পরী মনিকে। পরে তিনি ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সত্যব্রত সিকদারের আদালতে হাজিরার জন্য গেলে তার আইনজীবীরা না আসায় এজলাস ছেড়ে চলে আসেন। পরে পরী মনি কিছু সময় এজলাসের পাশে অবস্থান করেন। এসময় তাকে বার বার হাত দিয়ে কপালের ঘাম মুছতে দেখা যায়। পরে নিরাপত্তার কথা ভেবে তাকে আদালতের হাজতখানায় নেওয়া হয়। এ হাজতখানায় গ্রেপ্তার আসামিদের রাখা হয়। পরে দুপুর ১১টা ৫৫ মিনিটে তিনি পুনরায় আদালতে হাজিরা দিতে আসেন।

এসময় পরী মনির আইনজীবী আদালতে বলেন, যে সাদা গাড়িটি জব্দ করা হয়েছে সেটি পরী মনির। তিনি যেন তার গাড়িটি পান সে অনুরোধ করছি। এছাড়া পরী মনির বাসা থেকে জব্দ করা তার নিত্য প্রয়োজনীয় ফোনসহ আরও কিছু জিনিসপত্রের তালিকা আদালতে জমা দিচ্ছি। এসময় পরী মনিও আদালতকে তার গাড়িটি ফিরে পাওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। তিনি বলেন, গাড়িটি আমার। আমি আমার গাড়ি ফিরে পেতে চাই।

পরে শুনানি শেষে আদালত বিআরটিএকে গাড়ির কাগজপত্রসহ সকল আলামতের ভিত্তিতে তদন্ত করার নির্দেশ দেন। এরপর আদালত মামলার পরবর্তী হাজিরার জন্য আগামী ১০ অক্টোবর দিন ধার্য করেন।

এর আগে মাদক মামলায় গ্রেপ্তারের ২৬ দিন পর গত ৩১ আগস্ট ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত পরী মনিকে নারী, শারীরিক অসুস্থতা ও অভিনেত্রী এই তিনটি বিবেচনায় জামিনের আদেশ দেন। পুলিশ তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল না করা পর্যন্ত ৫০ হাজার টাকা মুচলেকায় তার এ জামিন মঞ্জুর করা হয়। পরেরদিন তিনি কারাগার থেকে মুক্তি পান।

গত ৪ আগস্ট বিকেলে বনানীর বাসায় প্রায় চার ঘণ্টা অভিযান শেষে পরী মনিসহ তিনজনকে দেশি বিদেশি মদের বোতল ও এলএসডি মাদকসহ আটক করা হয়। পরে বনানী থানায় র‍্যাব বাদি হয়ে পরী মনি ও তার সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপুর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা দায়ের করে।

এ মামলায় প্রথম দফায় ৫ আগস্ট চারদিন এবং ১০ আগস্ট দ্বিতীয় দফায় দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। রিমান্ড শেষে ১৩ আগস্ট পরী মনিকে কাশিমপুর কারাগারে পাঠানো হয়। এরপর ১৬ আগস্ট তাকে তৃতীয় দফায় ফের পাঁচ দিনের রিমান্ড চান সিআইডি। এ আবেদনে ১৯ আগস্ট শুনানি শেষে একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:53

গঙ্গা দূষণে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশের অভিমুখ এখন বাংলাদেশের পদ্মা পাড়ে

গঙ্গা দূষণে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশের অভিমুখ এখন বাংলাদেশের পদ্মা পাড়ে
গঙ্গা মোহনায় ইলিশের দেখা মিলছে না। হা-হুতাশ করছেন ভারতীয় মৎস্যজীবীরা। বিশেষজ্ঞদের মতে, গঙ্গায় দূষণের মাত্রা এতটাই বেড়ে গিয়েছে যে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে ইলিশ। ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশের অভিমুখ এখন বাংলাদেশের পদ্মা পাড়ে।

সাউথ এশিয়া নেটওয়ার্ট অফ ড্যাম রিভার অ্যান্ড পিপলস এই বিষয়ে সম্প্রতি একটি রিপোর্ট পেশ করেছে। রিপোর্টে গঙ্গায় ইলিশের দেখা না পাওয়ার কারণ হিসেবে দূষণকেই বেশি মাত্রায় দায়ী করা হয়েছে। তাদের রিপোর্টে উঠে এসেছে, গঙ্গা থেকে অচিরেই উধাও হয়ে হতে চলেছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, পশ্চিমবঙ্গে নদীর পাড় বরাবর গড়ে ওঠা একশোটিরও বেশি পুরসভার ময়লা আবর্জনা ও কলকারখানার বর্জ্যে গঙ্গায় দূষণের মাত্রা ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে গিয়েছে। তাঁদের মতে, ডিম সংরক্ষিত রাখার জন্য ইলিশের মিষ্টি জলের প্রয়োজন হয়। সেইজন্যই তারা গঙ্গায় আসে। কিন্তু দূষণের ফলে গঙ্গায় লবণের মাত্রা অত্যাধিক বেড়ে গিয়েছে। সেই কারণেই ইলিশ এখন গঙ্গার মোহনায় এসেও ফিরে যাচ্ছে।

অন্যদিকে গঙ্গা থেকে মুখ ঘুরিয়ে নিয়ে ইলিশের অভিমুখ এখন বাংলাদেশের দিকে। বাংলাদেশের পদ্মা পাড়ে এখন জাল ফেললেই ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। বাংলাদেশের মৎস্য বিভাগের এক পরিসংখ্যান জানাচ্ছে, গত ২ বছরের তুলনায় বাংলাদেশে ১৯ শতাংশ ইলিশ বেশি ধরা পড়েছে। শুধু পদ্মাপাড়েই নয়, মায়ানমার উপকূলেও এখন প্রচুর ইলিশের দেখা মিলছে। বাংলাদেশের মৎস্য দফতরের এক আধিকারিক জানান, ‘‌পদ্মা পাড় বরাবর ভারী শিল্প, কলকারখানা তেমন গড়ে ওঠেনি। তাই এখনও পদ্মার মোহনা ইলিশের কাছে ব্রাত্য হয়ে ওঠেনি।’‌ তবে গঙ্গার দূষণ বাড়ায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে মৎস্যজীবীদের। তাঁদের এখন মাথা চাপড়ানো ছাড়া কোনও উপায় নেই।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:48

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের কার্যক্রম বন্ধ থাকবে ৫ দিন

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের কার্যক্রম বন্ধ থাকবে ৫ দিন
কোর ব্যাংকিং সফট্ওয়্যার আপগ্রেডেশন কার্যক্রম সম্পাদনের জন্য বেসরকারি খাতের মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেডের সব ধরনের ব্যাংকিং কার্যক্রম ৫ দিন বন্ধ থাকবে । মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের ডিপার্টমেন্ট অব অফ সাইট সুপারভিশন (ডিওএস) বিভাগের মহাব্যবস্থাপক আনোয়ারুল ইসলাম স্বাক্ষরিত সার্কুলারে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের আবেদনের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ ব্যাংক আগামী ০১ অক্টোবর হতে ০৫ অক্টোবর পর্যন্ত ৫ দিন ব্যাংকের কার্যক্রম বন্ধ রাখার অনুমোদন দিয়েছে। ব্যাংক কোম্পানী আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারায় অর্পিত ক্ষমতাবলে এ অনুমোদন দেওয়া হয়।

এই ৫ দিন ব্যাংকের সকল ধরনের লেনদেন, এটিএম বুথ, ডেবিট কার্ড সেবা, ইন্টারনেট ব্যাংকিং, মোবাইল ব্যাংকিং (মাইক্যাশ), ইসলামি ব্যাংকিং ও এজেন্ট ব্যাংকিংসহ মার্কেন্টাইল ব্যাংকের সব সেবা ও কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:45

চাঁদে জমি কিনলেন বাংলাদেশি ২ তরুণ

চাঁদে জমি কিনলেন বাংলাদেশি ২ তরুণ
ছেলেবেলায় আমাদের কল্পরাজ্যে চাঁদের বুড়ির অবয়ব তৈরি করে দেওয়া হয়। শিশুমন ধরেই নেয়- চাঁদের মালিক হলো সেই বুড়ি। সেখানে বসে চরকায় সুতা কাটা তার একমাত্র কাজ। এবার কল্পনার সেই চাঁদের দেশেই জমি কিনে বসলেন বাংলাদেশি দুই তরুণ।

সম্প্রতি চাঁদের জমি বিক্রি করা মার্কিন নাগরিক ডেনিস হোপের ‘লুনার অ্যাম্বাসি’ থেকে এক একর জমি কিনেছেন দুই বন্ধু এসএম শাহিন আলম ও শেখ শাকিল হোসেন। মাত্র ৫৫ ডলার দিয়ে জমি কেনার দাবি তাদের। বুধবার সেই জমির দলিলও পেয়েছেন তারা। চাঁদের ম্যাপেও উল্লেখ রয়েছে কোথায় তাদের জমি।

যে প্রতিষ্ঠান থেকে চাঁদে এর আগে জমি কিনেছেন সাবেক তিন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ, জিমি কার্টার ও রোলান্ড রিগ্যান, সেই প্রতিষ্ঠানের মালিক ডেনিস হোপের কাছ থেকেই জমি কিনেছেন সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার পাতাখালি গ্রামের গ্রামের এসএম শাহিন আলম ও সদর উপজেলার জোড়দিয়া গ্রামের শেখ শাকিল হোসেন।
চাঁদে জমি কিনলেন বাংলাদেশি ২ তরুণ
এ বিষয়ে এসএম শাহিন আলম বলেন, ‘আমেরিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট থেকে শুরু করে প্রতিবেশী দেশ ভারতের অনেক তারকা চাঁদে জমি কিনেছেন। চাঁদে আমাদের জমি থাকবে, এমন শখ থেকেই খোঁজখবর নিতে শুরু করি এবং সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করি।’ শেখ শাকিল হোসেন জানান, ‘কল্পরাজ্যের চাঁদের দেশে এক টুকরো জমি কিনতে পেরে আমরা দারুণ উচ্ছ্বসিত। খুব সম্ভবত, আমরাই প্রথম বাংলাদেশি যারা চাঁদে জমি কিনেছি।’

চাঁদে জমি কেনার জন্য মার্কিন নাগরিক ডেনিস হোপের ‘লুনার অ্যাম্বাসি’-ই হলো সবচেয়ে জনপ্রিয় কোম্পানি। যার বাংলা অর্থ ‘চন্দ্র দূতাবাস’। তাদের তথ্যানুযায়ী, চাঁদে জমির দাম একর প্রতি ২৪.৯৯ ডলার থেকে সর্বোচ্চ ৪৯৯ মার্কিন ডলার৷ বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ২১২৫ টাকা থেকে ৪২৪৩৭ টাকা।

জানা গেছে, জমি কেনার পর ক্রেতাকে একটি বিক্রয় চুক্তি, কেনা জমির একটি স্যাটালাইট ছবি এবং জমিটির ভৌগলিক অবস্থান ও মৌজা-পরচার মতো আইনি নথিও পাঠিয়ে থাকে সংস্থাটি৷ এছাড়া, কেউ যদি আরো একটু ব্যয় করতে রাজি থাকে, তাহলে তাদের জন্য চাঁদের সম্পূর্ণ মানচিত্র এবং অন্যান্য তথ্যও সরবরাহ করা হয়।

এসএম শাহিন আলম সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগ ও শেখ শাকিল হোসেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:41

 ট্রাস্ট ব্যাংকে
চাকরি

ট্রাস্ট ব্যাংকে চাকরি


জনবল নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড। ব্যাংকটিতে আগ্রহী ও যোগ্য প্রার্থীরা অনলাইনের মাধ্যমে সহজেই আবেদন করতে পারবেন।

পদের নাম

অফিসার।

যোগ্যতা

স্বীকৃত যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ পাস প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন।

কর্মস্থল

সারা দেশ (প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত)।

বেতন

আলোচনা সাপেক্ষে, অভিজ্ঞদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে।

আবেদনের পদ্ধতি

প্রার্থীরা অনলাইনে (https://career.tblbd.com) আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ তারিখ

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১।

সূত্র : বিডিজবস
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:40

চাকরি দিচ্ছে আড়ং

চাকরি দিচ্ছে আড়ং
জনবল নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে পোশাক প্রস্তুতকারক ও বিপণন প্রতিষ্ঠান আড়ং। আগ্রহী ও যোগ্য প্রার্থীরা অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন।

বিভাগের নাম : লার্নিং অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট, হিউম্যান রিসোর্সেস

পদের নাম : ম্যানেজার/সিনিয়র ম্যানেজার

পদসংখ্যা : নির্ধারিত নয়

অভিজ্ঞতা : ০৮-১০ বছর

চাকরির ধরন : ফুল টাইম

প্রার্থীর ধরন : নারী-পুরুষ

বয়স : নির্ধারিত নয়

কর্মস্থল : ঢাকা

বেতন : আলোচনা সাপেক্ষে

আবেদনের নিয়ম : আগ্রহীরা career.aarong@brac.net এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:31

ডোনাট বিস্কুট

0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:25

মুখস্থ বিদ্যা নয়, শিক্ষাক্রম হবে বাস্তব জ্ঞাননির্ভরএবার জয় হবে মেধার

মুখস্থ বিদ্যা নয়, শিক্ষাক্রম হবে বাস্তব জ্ঞাননির্ভর এবার জয় হবে মেধার
একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় অন্য সব খাতের সঙ্গে শিক্ষাকেও যুগোপযোগী করাই সরকারের লক্ষ্য। একটি সুচিন্তিত কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নের মাধ্যমে শিক্ষাকে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিনির্ভর করতে এরই মধ্যে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে মুখস্থ বিদ্যা থেকে বেরিয়ে অভিজ্ঞতানির্ভর শিক্ষায় জোর দিয়েছে সরকার। ঘোষণা করা হয়েছে নতুন শিক্ষাক্রম। পরীক্ষানির্ভর মূল্যায়ন পদ্ধতি থেকে বের করে ঢেলে সাজানো হচ্ছে শিক্ষাব্যবস্থাকে। এতে পথ খুলবে মেধাবিকাশের।

নতুন শিক্ষাক্রমের পথরেখা অনুসারে, প্রাক-প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক স্তরের শিক্ষাব্যবস্থায় বড় পরিবর্তনের কাজটি আগামী বছর পরীক্ষামূলকভাবে চালু হবে। এ পদ্ধতি চালুর জন্য লেখা হবে নতুন পাঠ্যবই। আর এর সবকিছুই হবে ২০২৩ সাল থেকে। পর্যায়ক্রমে ২০২৫ সালে গিয়ে প্রাথমিক ও মাধ্যমিকে নতুন শিক্ষাক্রম পুরোপুরি কার্যকর হবে। এর মধ্য দিয়ে নতুন, আধুনিক ও বিজ্ঞানসম্মত শিক্ষার মহাসড়কে প্রবেশ করবে বাংলাদেশ।

সৃজনশীল পদ্ধতি চালুর এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে শিক্ষাবিদ অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ বলেছেন, মুখস্থ করে পড়া শেখার পদ্ধতি জ্ঞানের প্রতি ভীতি জাগিয়েছিল। জ্ঞানের মতো আনন্দময় বিষয় আর কিছু নেই। কিন্তু মুখস্থ পদ্ধতির কারণে তা আমাদের কাছে দানবের মতো মনে হয়েছে।

বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ আরো বলেন, মুখস্থ সর্বস্ব বোকাদের যুগ শেষ হচ্ছে। সামনে মেধাসম্পন্ন, আনন্দময় আর বুদ্ধি ক্ষমতার যুগ। মুখস্থ নয়, যাদের চিন্তাশক্তি বেশি তারাই ওপরে থাকবেন।

নতুন শিক্ষাক্রম প্রসঙ্গে শিক্ষাবিদ অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, দশম শ্রেণির আগে কোনো পাবলিক পরীক্ষা নেই এটি খুব ভালো কথা। পঞ্চম শ্রেণির শিশুদের ওপর পাবলিক পরীক্ষা চাপিয়ে না দেওয়ার বিষয়টি আগেও নানাভাবে বলা হয়েছে। তবে এটি আরো স্পষ্ট করা উচিত।

এনসিটিবির সদস্য (প্রাথমিক শিক্ষাক্রম) অধ্যাপক ড. এ কে এম রিয়াজুল হাসান বলেন, আগে প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের জন্য আলাদা কারিকুলাম পরিবর্তন হওয়ার কারণে এই স্তরে সমন্বয় থাকত না। এবার একসঙ্গে প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের কারিকুলাম পরিমার্জন করা হচ্ছে। এতে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি হবে না। প্রাথমিক স্তরের কারিকুলামের ক্ষেত্রে সময়ের চাহিদাগুলো বিবেচনায় আনা হচ্ছে। বইয়ে কাগজের নৌকার ছবি থাকলে শিক্ষার্থীদের তা শ্রেণিকক্ষেই বানিয়ে দেখাতে হবে। এতে শিশু-শিক্ষার্থীর কাজের দক্ষতা বাড়বে।

গত সোমবারের সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রীও পরিমার্জিত শিক্ষার ওপর গুরুত্ব দেন। এ বিষয়ে তিনি বলেন, নতুন কারিকুলামে শিক্ষার্থীরা সনদের জন্য শিক্ষা লাভ করবে না, একটি নির্দিষ্ট পারদর্শিতা অর্জনের জন্য শিক্ষা নেবে, পরিমার্জিত শিক্ষার প্রসার ঘটিয়ে শিক্ষার্থীদের মান উন্নয়নের জন্য নেবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, নতুন কারিকুলামে শিক্ষা হবে আনন্দঘন। এ কারিকুলামে মুখস্থ জ্ঞাননির্ভর শিক্ষা থেকে সরে এসে অভিজ্ঞতানির্ভর শিক্ষায় প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। প্রাক-প্রাথমিক থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের জন্য একটি নিরবচ্ছিন্ন ধারাবাহিক শিখন নিশ্চিত করা হচ্ছে। পরীক্ষার বিষয় ও পাঠ্যপুস্তকের চাপ কমানোর চেষ্টা করা হয়েছে। শিক্ষার্থীরা যাতে নিজেদের মতো কিছুটা সময় কাটাতে পারে তা নিশ্চিত করতেই নতুন কারিকুলাম।

মুখস্থ জ্ঞাননির্ভর নয়, শিক্ষার্থীরা যাতে কিছু করার মাধ্যমে শিখতে পারে তা নিশ্চিত করা হয়েছে নতুন কারিকুলামে। শিক্ষামন্ত্রী এ বিষয়ে বলেন, নতুন কারিকুলামে মুখস্থ বিদ্যার বদলে অভিজ্ঞতানির্ভর শিক্ষাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীরা যাতে খেলাধুলা বা নিজে কিছু করে শিখতে পারে তা নিশ্চিত করা হয়েছে। সনদ দিয়ে যদি শিক্ষার্থী উদ্বুদ্ধ বোধ করেন সেজন্য সনদটা। সনদের জন্য শিক্ষা নয়, শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করতেই শিক্ষা। তারা যে পারদর্শিতা অর্জন করেছে তার স্বীকৃতিই সনদ। আমরা চাই শিক্ষার্থীরা পারদর্শিতা অর্জন করুক ও তারা স্বীকৃতি হিসেবে সনদও পাবে।

কারিকুলাম বিশেষজ্ঞ ও জাতীয় শিক্ষানীতি (২০১০) প্রণয়ন কমিটির সদস্য অধ্যাপক ছিদ্দিকুর রহমান বলেন, কারিকুলাম হলো শিক্ষার পথরেখা। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলার জন্য উপযুক্ত হয়ে গড়ে ওঠার পথরেখা অনুসরণ খুবই জরুরি। পরীক্ষার চাপমুক্ত পড়াশোনা ও জ্ঞানার্জনটা আসলে খুব দরকার।

এনসিটিবির সদস্য (প্রাথমিক শিক্ষাক্রম) অধ্যাপক ড. এ কে এম রিয়াজুল হাসান বলেন, আগে প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের জন্য পৃথক সময়ে কারিকুলাম পরিবর্তন হওয়ার কারণে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের কারিকুলামে কোনো সমন্বয় থাকত না। এবারই একসঙ্গে প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের কারিকুলাম পরিমার্জন করা হচ্ছে। এতে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি হবে না। তিনি আরো বলেন, প্রাথমিক স্তরের কারিকুলামের ক্ষেত্রে সময়ের চাহিদাগুলো বিবেচনায় আনা হচ্ছে। বইয়ে কাগজের নৌকার ছবি থাকলে শিক্ষার্থীদের তা শ্রেণিকক্ষেই বানিয়ে দেখাতে হবে। এতে শিশু-শিক্ষার্থীর কাজের দক্ষতা বাড়বে।

এদিকে পরিমার্জিত শিক্ষাক্রম অনুসারে, শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞান নাকি অন্য কোনো শাখায় পড়বে, তা নির্ধারণ করা হবে একাদশ শ্রেণিতে গিয়ে। দশম শ্রেণির আগে আর কোনো পাবলিক পরীক্ষা থাকবে না। শুধু দশম শ্রেণির কারিকুলামের ওপর ভিত্তি করে অনুষ্ঠিত হবে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা। ২০২৪ সাল থেকে অষ্টম শ্রেণির জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) এবং পঞ্চম শ্রেণির প্রাইমারি এডুকেশন সার্টিফিকেট (পিইসি) পরীক্ষা আর কেন্দ্রীয়ভাবে নেওয়া হবে না। বিদ্যালয়েই বার্ষিক পরীক্ষার মতো এসব শ্রেণির মূল্যায়ন করা হবে। তবে এসব শ্রেণিতে জেএসসি, জেডিসি ও পিইসি সনদ দেওয়া হবে। আর প্রাথমিক স্তরে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত কোনো পরীক্ষাতেই থাকবে না। ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত সবাইকে অভিন্ন ১০টি বিষয় পড়তে হবে। আর একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে দুটি পাবলিক পরীক্ষা হবে, অর্থাৎ প্রতি বছর শেষে হবে পাবলিক পরীক্ষা। আর এই দুই পরীক্ষার ফলের সমন্বয়ে এইচএসসির চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হবে।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:22

বরিশালে কলেজছাত্র সোহাগ সেরনিয়াবাত হত্যা মামলার রায়ে দুজনের ফাঁসি
এবং চারজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। এ সময় অপরাধ
প্রমাণিত না হওয়ায় ১০ জনকে খালাস দেওয়া হয়েছে। 

বুধবার দুপুরে বরিশালের জননিরাপত্তা বিঘ্নকারী অপরাধ দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক টিএম মুসা এ রায় ঘোষণা করেন।


ফাঁসির দণ্ডাদেশ পাওয়া দুই আসামি হলেন— জিয়াউল হক লালন ও রিয়াদ সরদার। 


যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মামুন, ইমরান, বিপ্লব ও ওয়াসিম সরদার।


মামলার বিবরণে বলা হয়, বরিশালের উজিরপুর পৌর এলাকার ৪নং ওয়ার্ডের
হোসেন সেরনিয়াবাতের ছেলে সোহাগ সেরনিয়াবাত ২০১৪ সালের ৪ সেপ্টেম্বর রাতে
হত্যাকাণ্ডের শিকার হন। ওই দিন রাত সাড়ে ৮টার দিকে তার বন্ধুকে বাসায়
এগিয়ে দিয়ে ফেরার পথে আসামিরা উজিরপুরের রাখালতলা এলাকায় তার ওপর চড়াও
হয়ে রামদা দিয়ে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে। 


এর আগে আসামিরা এক লাখ টাকা চাঁদার দাবিতে সোহাগের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান
ভাঙচুর করে। পরে নিহতের মামা খোরশেদ আলম বাদী হয়ে ১৩ জনকে আসামি করে
উজিরপুর থানায় থানায় মামলা করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ একই বছরের ২২ নভেম্বর
চার্জশিট দাখিল করে।


পরে মামলাটি বিচারে এলে আদালত ৩১ সাক্ষীর সাক্ষ্যপ্রমাণ ও আলামত
বিবেচনায় আসামি জিয়াউল হক লালন ও রিয়াদ সরদারকে ফাঁসির দন্ডাণ্ডদেশ দেন।
এ ছাড়া আসামি মামুন, ইমরান, বিপ্লব ও ওয়াসিম সরদারকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড
দেন। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় ১০ আসামিকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়। 


নিহতের বাবা ফারুক হোসেন সেরনিয়াবাত বলেন, রায়ে আমরা সন্তুষ্ট। তবে
যারা বেকসুর খালাস পেয়েছেন, তারাও হত্যার সঙ্গে জড়িত ছিলেন। রায়ের
পূর্ণাঙ্গ আদেশ কপি পেলে তা নিয়ে আমি উচ্চ আদালতে আপিল করব। আশা করি
হত্যায় জড়িত থাকার অপরাধে উচ্চ আদালত তাদের শাস্তি দেবেন।


নিহতের মা শাহনাজ পারভীন বলেন, রায়ে খুশি হয়েছি। তবে খালাসপ্রাপ্ত ১০
জনের সাজা দিলে আরও ভালো হতো। তারাও আমার ছেলের হত্যায় জড়িত ছিল।


বাদীপক্ষের আইনজীবী এটিএম আনিসুর রহমান বলেন, অপরাধ করলে শাস্তি পেতেই হবে, যা এই রায়ের মাধ্যামে প্রমাণিত হয়েছে।

0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:22

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) গাজী শরিফুল
হাসানের সরকারি মোবাইল নম্বর ক্লোন করে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে ফোন
করে টাকা হাতিয়ে নেওয়াসহ নানা বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে একটি প্রতারক
চক্র।

মঙ্গলবার তার মোবাইল নম্বরটি ক্লোন করা হয়। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের
পক্ষ থেকে সবাইকে সতর্ক থাকার অনুরোধ জানানো হয়েছে। এ ছাড়া সচেতনতা তৈরিতে
প্রশাসনের ফেসবুক পেজেও পোস্ট দেওয়া হয়েছে।


বিষয়টি নিশ্চিত করে ইউএনও গাজী শরিফুল হাসান জানান, মঙ্গলবার সরকারি
কাজে ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরটি ক্লোন করা হয়। ক্লোন করা নম্বর দিয়ে একটি
প্রতারক চক্র জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে উন্নয়নমূলক কাজ পাইয়ে দেওয়ার কথা
বলে ইউপি চেয়ারম্যান ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে ফোন দিয়ে সরকারি বরাদ্দ এনে
দেওয়ার কথা বলে টাকা দাবি করছে।


নম্বরটি ক্লোনের পর সর্বসাধারণকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। ফেসবুক আইডিসহ
উপজেলা প্রশাসন, মতলব উত্তর পেজেও সবাইকে সচেতন থাকার আহ্বান জানান তিনি।


এখলাছপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী মোসাদ্দেক হোসেন মুরাদ জানান,
ইউএনওর মোবাইল নম্বর থেকে ফোন করে টাকা চাওয়া হয়। তবে তিনি কোনো লেনদেন
করেননি।


প্রতারণার থেকে সচেতন থাকার আহ্বান জানিয়ে মতলব উত্তর থানার ওসি
মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল জানান, ওই নম্বর থেকে ফোন দিলে না ধরে পরে কল করে
নিশ্চিত হওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:20

সরকার গঠন নিয়ে দ্বন্দ্বে জড়ালেন তালেবান নেতারা

সরকার গঠন নিয়ে দ্বন্দ্বে জড়ালেন তালেবান নেতারা
আফগানিস্তানে নতুন সরকার গঠন নিয়ে দ্বন্দ্বে জড়িয়েছেন তালেবান নেতারা। এর জেরে কাবুল ত্যাগ করেছেন তালেবানের অন্যতম শীর্ষ নেতা মোল্লা আব্দুল গনি বারাদার।

বুধবার বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, তালেবানের জ্যেষ্ঠ নেতারা জানিয়েছেন, দেশটির নতুন অন্তর্বর্তী সরকার গঠন নিয়ে মোল্লা আব্দুল গনি বারাদার এবং নতুন সরকারের শরণার্থীবিষয়ক মন্ত্রী খলিল-উর রহমান হাক্কানির মধ্যে বাক-বিতণ্ডা হয়।

মোল্লা আব্দুল গনি বারাদারকে সম্প্রতি প্রকাশ্যে দেখা না যাওয়ার পর থেকেই আফগানিস্তানে নতুন সরকার গঠন নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছে বলে খবর বের হয়। তবে তালেবান আনুষ্ঠানিকভাবে এসব খবর প্রত্যাখ্যান করেছে।

সূত্র জানায়, তর্কের শুরু নতুন অন্তর্বর্তী সরকারের কাঠামো নিয়ে বারাদারের অসন্তুষ্টি থেকে। তালেবানের বিজয়ের প্রকৃত দাবিদার কে, তা নিয়েও দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। বারাদার মনে করেন, এ বিজয় এসেছে তার মতো কূটনীতিকদের কারণে। কিন্তু হাক্কানি গ্রুপের মতে, যুদ্ধের মাধ্যমেই এসেছে বিজয়।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:19

খাদ্যের সন্ধানে বাড়িঘর ভাঙচুর করছে হাতির দল

খাদ্যের সন্ধানে বাড়িঘর ভাঙচুর করছে হাতির দল
চট্টগ্রামের কর্ণফুলীর দেয়াং পাহাড়ে অবস্থান নেওয়া হাতির দল সন্ধ্যার পর খাদ্যের সন্ধানে লোকালয়ে ঢুকে আক্রমণ করে দুইটি ঘর, কবরস্থানের গাইড ওয়াল ভাঙচুর ও স্থানীয় কৃষকদের ধান নষ্ট করেছে বলে জানিয়েছন ক্ষতিগ্রস্তরা। এতে এলাকাবাসীর মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। আর হাতির আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে মশাল জ্বালিয়ে কাটছে নির্ঘুম রাত।

বড়উঠান ইউনিয়নের ইউপি সদস্য সাজ্জাদ খান সুমন জানান, কয়েক বছর ধরে কেইপিজেডের পাহাড়ে অবস্থান নেওয়া বন্যহাতির দলটি দিনে কেইপিজেডের লেকের পানিতে বা পাহাড়ে থাকলেও সন্ধ্যার পর ছুঁটে আসে লোকালয়ে। খাবারের খোঁজে আসা হাতিগুলো কৃষকের ধান, বিভিন্ন ফসল ক্ষেত নষ্টসহ বসতবাড়ি ভাঙচুর চালায়।

বুধবার ভোররাতে বড়উঠান ৯নং ওয়ার্ডের কালা ফকির বাড়ির কৃষক মোহাম্মদ এলাবক্সা ও মোহাম্মদ আবছারের ঘর ভাঙচুর ও নষ্ট করে ফসলি ধান।

তিনি আরো জানান, রাতের আক্রমণ প্রতিহত করার চেষ্টাও করে স্থানীয়রা। কিন্তু বন্যহাতির তাণ্ডব নতুন নয়। প্রায় সময় গ্রামে ফসল ও ঘরবাড়ির ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। খাবারের খোঁজে পাহাড় থেকে লোকালয়ে আসে হাতিগুলো। হাতির ভয়ে এখন রাতের ঘুম উড়ে গেছে আমাদের। এ বিষয়ে বন বিভাগ ও স্থানীয় প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করছি।

কর্ণফুলী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহিনা সুলতানা বলেন, দেয়াং পাহাড়ে অবস্থান নেওয়া হাতিগুলোর বিষয়ে বনবিভাগ ও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:18

বাবুগঞ্জে বেইলি ব্রিজ ভেঙে ট্রাক খালে, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

বাবুগঞ্জে বেইলি ব্রিজ ভেঙে ট্রাক খালে, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন
বরিশালের বাবুগঞ্জে বেইলি ব্রিজ ভেঙে পাথরবোঝাই একটি ট্রাক পানিতে পড়ে যান চলাচল বন্ধ হওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন বরিশাল-বানারীপাড়া ও স্বরূপকাঠি রুটের যাত্রীরা। তবে এ ঘটনায় কেউ হতাহত হননি। বুধবার সকালে উপজেলার মাধবপাশা খালে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সিলেট থেকে আসা পাথরবোঝাই একটি ট্রাক বানারীপাড়ার দিকে যাচ্ছিল। সকালে মাধবপাশা খালে বেইলি ব্রিজ অতিক্রমকালে ট্রাকটি ব্রিজ ভেঙে পানিতে পড়ে যায়। তবে চালক ও তার সহকারী ট্রাক থেকে নিরাপদে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হন।

এদিকে ব্রিজটি ভেঙে পড়ায় বানারীপাড়া, স্বরুপকাঠী ও নেছাড়াবাদের বরিশালগামী হাজারো যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

এয়ারপোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কমলেশ চন্দ্র হালদার জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরির্শন করেছে।

বরিশাল সড়ক ও জনপথ বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মিন্টু রঞ্জন দেবনাথ বলেন, ভেঙে যাওয়া ব্রিজটির পাশেই জাইকার অর্থায়নে প্রকল্পের আওতায় নতুন একটি সেতু নির্মাণ কাজ চলছে। ওই সেতু নির্মাণকারী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা দ্রুত সময়ের মধ্যে বেইলি ব্রিজটি মেরামত করে দেওয়ার কথা জানিয়েছেন।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:16

বাংলাদেশ বিশ্ব পর্যটন সংস্থার সিএসএ’র চেয়ার নির্বাচিত

বাংলাদেশ বিশ্ব পর্যটন সংস্থার সিএসএ’র চেয়ার নির্বাচিত
বিশ্ব পর্যটন সংস্থার কমিশন ফর সাউথ এশিয়ার (সিএসএ) ২০২১-২০২৩ মেয়াদে দুই বছরের জন্য ভাইস-চেয়ার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ।

গতকাল মঙ্গলবার বিশ্ব পর্যটন সংস্থার মহাসচিব জুরাব পোলোলিকাশভিলির সভাপতিত্বে এর সদস্য দেশসমূহের অংশগ্রহণে কমিশন ফর এশিয়া প্যাসিফিক ও কমিশন ফর সাউথ এশিয়ার যৌথভাবে আয়োজিত ভার্চুয়াল সম্মেলনে বাংলাদেশ ভাইস-চেয়ার হওয়ার গৌরব অর্জন করে।

বাংলাদেশের পাশাপাশি ইরানও ভাইস-চেয়ার পদে নির্বাচিত হয়েছে। এর আগে ২০১৯-২০২১ মেয়াদে সিএসএ’র ভাইস চেয়ার ছিল ভারত ও শ্রীলঙ্কা।

বিশ্ব পর্যটন সংস্থা মূলত জাতিসংঘের পর্যটনবিষয়ক বিশ্ব সংস্থা। ছয়টি আঞ্চলিক সংগঠনের সমন্বয়ে বিশ্ব পর্যটন সংস্থার কার্যক্রম পরিচালিত হয় যার মধ্যে সিএসএ অন্যতম।

বাংলাদেশের এই গৌরব অর্জনে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেন, বিশ্ব পর্যটন সংস্থার কমিশন ফর সাউথ এশিয়ায় ভাইস চেয়ার পদে নির্বাচিত হওয়ায় বাংলাদেশ এ অঞ্চলের পর্যটন ব্যবস্থাপনায় নেতৃত্বের স্থানে আসীন হলো। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর মাহেন্দ্রক্ষণে আমাদের এই অর্জন বাংলাদেশের পর্যটন উন্নয়নে অত্যন্ত ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:12

আন্তর্জাতিক অলিম্পিয়াডে দেশসেরা খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়

আন্তর্জাতিক অলিম্পিয়াডে দেশসেরা খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়
আন্তর্জাতিক তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞান অলিম্পিয়াডে অংশ নিয়ে দেশের মধ্যে প্রথম স্থান অর্জন করেছে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের ফার্মিনেফ (Fermineff) দল। একই সাথে দলটি বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে ১৫তম স্থান অর্জন করেছে।

এ ডিসিপ্লিন থেকে মোট ৫টি দল এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। যার মধ্যে ৩টি দল সফলতা পেয়েছে। এদের মধ্যে স্কার্মিওন (Skyrmion) দেশে ২য় ও বিশ্বে ১৬তম এবং ফিনিক্স (Pheonix) দেশে ৮ম ও বিশ্বে ২৩তম স্থান অর্জন করে।

দেশের মধ্যে প্রথম হওয়া ফার্মিনেফ দলের সদস্যরা হলেন- আসিফ ইকবাল, তাহসিন আহমেদ অতশী, মো. নাঈম রিফাত, মো. লাবিব হোসেন খান ও নওরিন নুরাইন।

জানা যায়, আন্তর্জাতিক তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞান অলিম্পিয়াড হল তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞান গবেষণায় আগ্রহী স্নাতক ছাত্রদের জন্য পিএইচডি ছাত্র এবং পোস্টডক্স দ্বারা পরিকল্পিত একটি প্রতিযোগিতা। এই অলিম্পিয়াডের লক্ষ্য হল তাত্ত্বিক বিজ্ঞানে আগ্রহী ব্যক্তিদের খুঁজে বের করা এবং শিক্ষার্থীদের আধুনিক গবেষণা দক্ষতার অভিজ্ঞতা অর্জন করতে সাহায্য করা।

এ বছর এ অলিম্পিয়াডে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান ডিসিপ্লিন থেকে ৫টি দলসহ বাংলাদেশ থেকে মোট ২৯টি দল অংশগ্রহণ করে। এ অলিম্পিয়াডের ফলাফল সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে। বিশ্বের খ্যাতনামা কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় যৌথভাবে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। এর মধ্যে ইউনিভার্সিটি অব সান্টিয়াগো দে কমপোসটেলা, স্টানফোর্ড, প্রিন্সটন, জন হপকিন্স, এমআইপিটি, ইউসিএলএ উল্লেখযোগ্য।

এদিকে আন্তর্জাতিক তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞান অলিম্পিয়াডে দেশের মধ্যে প্রথম স্থান অর্জন করায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের ফার্মিনেফ দলকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন।

এক বার্তায় তিনি চ্যাম্পিয়ন ফার্মিনেফ দলসহ সাফল্য লাভকারী অন্য দুটি দলকেও অভিনন্দন জানিয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে, আগামীতে তাদের এই সাফল্যের ধারা অব্যাহত থাকবে এবং আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান আরও সুদৃঢ় হবে।

অভিনন্দন জানিয়েছেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মোসাম্মাৎ হোসনে আরা, বিজ্ঞান, প্রকৌশল ও প্রযুক্তিবিদ্যা স্কুলের ডিন প্রফেসর ড. আফরোজা পারভীন, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস, পদার্থবিজ্ঞান ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. রাশেদুর রহমান।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:11

‘অক্টোবরে খুলছে পায়রা সেতু’

‘অক্টোবরে খুলছে পায়রা সেতু’
দক্ষিণাঞ্চলের পদ্মা সেতু হিসেবে পরিচিত পায়রা সেতু অক্টোবরে সবার জন্য খুলে দেওয়া হবে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক প‌রিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবা‌য়দুল কা‌দের।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে পায়রা সেতুর সব নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেতুটি উদ্বোধন করবেন।

বুধবার বরিশাল বিভাগের ১১টি সেতুর ভার্চুয়াল উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। এ সময় ব‌রিশাল প্রা‌ন্তে উপ‌স্থিত ছি‌লেন—সড়ক ও জনপথ বিভা‌গের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী তারেক ইকবাল, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মিন্টু রঞ্জন দেবনাথ প্রমুখ।

ওবা‌য়দুল কা‌দের বলেন, নির্ধা‌রিত সম‌য়ের ম‌ধ্যে কাজ শেষ করার সংস্কৃ‌তি শুরু কর‌তে হ‌বে। কা‌জের মান ঠিক রে‌খে কা‌জগু‌লো গ‌তিসম্পন্ন কর‌তে হ‌বে। পি‌রোজপু‌রের ‌বেকু‌টিয়া সেতুর ৭৫ শতাংশ কাজ শেষ হ‌য়ে‌ছে। পাশাপাশি নলুয়া-বা‌হেরচর সেতু এ‌কনে‌কে পাস হ‌য়ে‌ছে।

উদ্বোধন‌ হওয়া সেতুগু‌লো হ‌লো—ব‌রিশা‌লের রহমতপুর-বাবুগঞ্জ-মুলাদি-হিজলা সড়‌কের ২৮ দশ‌মিক ৭৮ মিটার দৈ‌র্ঘ্যের বাবুগঞ্জ সেতু, ৩১ দশ‌মিক ৮২৮ মিটার দৈ‌র্ঘ্যের খা‌শেরহাট সেতু, ৩১ দশ‌মিক ৮২৮ মিটার দৈ‌র্ঘ্যের নবা‌বের হাট সেতু, ৩১ দশ‌মিক ৮২৮ মিটার দৈ‌র্ঘ্যের কাউ‌রিয়া সেতু, ২৫ দশ‌মিক ৭৪ মিটার দৈ‌র্ঘ্যের খা‌শেরহাট সেতু, ব‌রিশাল-ঝালকা‌ঠি-ভান্ডা‌রিয়া-‌পি‌রোজপুর আঞ্চ‌লিক মহাসড়‌কের ৪৪ দশ‌মিক ২ ‌মিটার দৈ‌র্ঘ্যের গুরুধাম সেতু, কাঁঠা‌লিয়া (বান্দাঘাটা)-‌কৈখালী-বনাইহাট সড়‌কের ৬৯ দশ‌মিক ৮৯৮ মিটার দৈ‌র্ঘ্যের তফ‌সের খেয়াঘাট সেতু।

এছাড়া ভোলার পারানতালুকদারহাট-‌বোরহানউ‌দ্দিন-লাল‌মোহন-চরফ্যাশন-চরমা‌নিকা আঞ্চ‌লিক মহাসড়‌কে ৪৪ দশ‌মিক ২ মিটার দৈ‌র্ঘ্যের বাংলার জার সেতু, দেবীরচর-না‌জিরপুর-লাল‌মোহন-মঙ্গল‌সিকদার-তজুমু‌দ্দিন আঞ্চ‌লিক মহাসড়‌কে ৪৪ দশ‌মিক ২ মিটার দৈ‌র্ঘ্যের দেবীরচর সেতু, ‌পি‌রোজপুরের চরখালী-তুষখালী-মঠবা‌ড়িয়া-পাথরঘাটা সড়‌কে ৬৩ দশ‌মিক ৭৯৮ মিটার দৈ‌র্ঘ্যের হেতা‌লিয়া সেতু, চরখালী-তুষখালী-মঠবা‌ড়িয়া-পাথরঘাটা সড়‌কের ৭৫ দশ‌মিক ৯৭৮ মিটার দৈ‌র্ঘ্যের মাদারসী সেতু।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:07

প্রধানমন্ত্রীর সেই উপহার পানির নিচে

প্রধানমন্ত্রীর সেই উপহার পানির নিচে
ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চলের দুই লক্ষাধিক মানুষের মাঝে স্বাস্থ্যসেবা দ্রুত পৌঁছে দেওয়ার জন্য গত বছরের এপিলে চরফ্যাশন হাসপাতালে যুক্ত হয় একটি নৌ অ্যাম্বুলেন্স।

মুমূর্ষু রোগীদের উন্নত সেবার ব্যবস্থাসহ গর্ভবতী নারীদের দ্রুত উপজেলা সদরে স্থানান্তর এবং উত্তাল মেঘনা নদী পাড়ি দেওয়ার জন্য স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে নির্মিত হয় নৌ অ্যাম্বুলেন্সটি।

সেই সময় বেতুয়া লঞ্চঘাটে উপকূলীয় অঞ্চলের নৌ অ্যাম্বুলেন্স উদ্বোধন করেন আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এমপি।

কিন্তু উদ্বোধনের এক বছরের মাথায় অযত্ন আর অবহেলা এবং চালক ও কর্তৃপক্ষের তদারকি না থাকায় উপজেলার দক্ষিণ চরআইচা থানার কুকরির খালে পড়ে আছে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহারের অ্যাম্বুলেন্সটি।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, চরফ্যাশন সদর উপজেলায় পৃথক কোনো হাসপাতাল নেই। তাই ১০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালেই সদর উপজেলাসহ পুরো উপজেলার ২০ উনিয়নের রোগীরা চিকিৎসাসেবা নেন।

আর এ কারণে চরফ্যাশন সদর, চরকুকরি-মুকরি, ঢালচর, পাতিলা, চরহাসিনা, মজিবনগর, চরনিজামের চরাঞ্চলের রোগীদের মেঘনা পাড়ি দিয়ে চরফ্যাশন সদর হাসপাতালে জরুরি চিকিৎসাসেবার জন্য আনা-নেওয়ার কাজে এ অ্যাম্বুলেন্সটির গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল।

নৌ অ্যাম্বুলেন্স নির্মাণে ব্যয় হয় ১১ লাখ ৯৫ হাজার ৫০০ টাকা। ধারণক্ষমতা ১৫ থেকে ২০ জন।

প্রথম এক মাস খুব ভালো সেবা দিয়েছিল নৌ অ্যাম্বুলেন্সটি। কিন্তু সরকারিভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত চালক, জ্বালানি তেল সরবরাহ, রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বাজেট বরাদ্দ এবং বিকল হওয়া ইঞ্জিন মেরামতে যথাযথ উদ্যোগ না থাকায় অনেকটা অযত্নে চরকচ্ছপিয়া লঞ্চঘাটে পানির নিচে তলিয়ে আছে অ্যাম্বুলেন্সটি। ভাটা হলে সেটি সামান্য জেগে ওঠে। জোয়ার এলে আবার পানির নিচে পড়ে থাকে।

বর্তমানে মানুষ অ্যাম্বুলেন্সটিকে বাথরুম হিসেবে ব্যবহার করছে।

চরকুকরি-মুকরি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাসেম মহাজন বলেন, অ্যাম্বুলেন্সটিতে এখন মানুষ পায়খানা-প্রসাব করে।

তিনি বলেন, চরাঞ্চলের মানুষের টেম্পো বা ট্রলারে করে চরফ্যাশন হাসপাতালে আসতে হয়। এই নৌ অ্যাম্বুলেন্সটি চরাঞ্চলের মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে যদি কার্যকর ভূমিকা রাখে তা হলে বিশেষ উপকার হতো। তাই আমরা সংশ্লিষ্টদের কাছে অনুরোধ জানাই, যেন দ্রুত এটি চালু করা হয়।

এ বিষয়ে চরফ্যাশন উপজেলার স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শোভন বসাক বলেন, এ বিষয়ে আমাদের কিছু করার নেই। চালক ও জ্বালানির ব্যবস্থা না হলে এটার কোনো কাজ নেই। এই দুর্গম চরাঞ্চলে তাৎক্ষণিক চিকিৎসাব্যবস্থা ও জরুরি রোগী নিয়ে দ্রুতগামী চলাচল ব্যবস্থা না থাকায় প্রতি মাসেই মানুষ চিকিৎসার অভাবে মারা যাচ্ছে। বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আনা অতিজরুরি।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:06

‘আমার জীবন নিয়ে যারা খেলতে চায়, আমি তাদের সঙ্গে খেলতে প্রস্তুত’

‘আমার জীবন নিয়ে যারা খেলতে চায়, আমি তাদের সঙ্গে খেলতে প্রস্তুত’
ঢাকাই সিনেমার আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনি বলেছেন, যারা আমার জীবন নিয়ে খেলতে চায় বা ঘাটতে আসে, তাদের সবাইকে আমি ওয়েলকাম করছি। আসো। ওয়েলকাম। আমি প্রস্তুত তোমাদের সঙ্গে এই খেলায় অংশ নিতে প্রস্তুত।

বুধবার মাদক মামলায় হাজিরা দিতে গিয়ে আদালত চত্বরে গণমাধ্যমকে এসব কথা বলেন।

এদিন আদালত প্রাঙ্গণে ভক্তদের অভিবাদন জানাতে গেলে তার ডান হাতের তালুতে মেহেদীতে ‘...ক (গালি) মি মোর’ লেখা চোখে পড়ে।

এ বিষয়ে পরীমনি বলেন, আমার কষ্ট লাগছে এখন। অনেকেই আমার বার্তাটি ঠিক বুঝতে পারছেন না, ভুল বুঝছেন। সবাই ভাবছেন আমি লিখেছি ‘লাভ মি মোর’। আসলে তো আমি লিখেছি ‘...ক (গালি) মি মোর’।

এর আগে ‘ডোন্ট লাভ মি বিচ’ বার্তার ব্যাখ্যায় পরীমনি জানিয়েছিলেন, তার সঙ্গে যারা দুমুখো আচরণ করেছেন, যারা তার সুসময়ের ভাগ নিয়ে দুঃসময়ে পাশে ছিলেন না, তাদের উদ্দেশ্যেই ওই বার্তা দিয়েছিলেন তিনি।

গত ৪ আগস্ট রাতে প্রায় চার ঘণ্টার অভিযান শেষে বনানীর বাসা থেকে পরীমনি ও তার সহযোগী দীপুকে আটক করে র‌্যাব। এ সময় পরীমনির বাসায় বিভিন্ন ধরনের মাদক পাওয়া গেছে বলে জানায় র্যাব। পর দিন ৫ আগস্ট র‌্যাব-১ বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পরীমনি ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে বনানী থানায় মামলা করে।

এর পর তিন দফায় মোট সাত দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয় পরীমনিকে। প্রথম দফায় ৫ আগস্ট চার দিন, দ্বিতীয় দফায় ১০ আগস্ট দুদিন এবং ৩য় দফায় ১৯ আগস্ট একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর হয় তার। বর্তমানে তিনি জামিনে রয়েছেন।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:01

মাথাপিছু বৈদেশিক ঋণ ২৪ হাজার ৮৯০ টাকা

মাথাপিছু বৈদেশিক ঋণ ২৪ হাজার ৮৯০ টাকা


বর্তমানে বাংলাদেশের নাগরিকদের মাথাপিছু বৈদেশিক ঋণের পরিমাণ ২৪ হাজার ৮৯০ টাকা বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।


বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তরে চট্টগ্রাম-৪ আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান মন্ত্রী। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উত্থাপিত হয়।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে বৈদেশিক ঋণের স্থিতি ৪৯ হাজার ৪৫৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। পরিসংখ্যান ব্যুরো থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, দেশে মোট জনসংখ্যা ১৬৯ দশমিক ৩১ মিলিয়ন। এই হিসাবে মাথাপিছু বৈদেশিক ঋণের পরিমাণ ২৯২ দশমিক ১১ মার্কিন ডলার। প্রতি ডলার ৮৫.২১ টাকা হিসাবে বাংলাদেশি টাকায় এর পরিমাণ দাঁড়ায় ২৪ হাজার ৮৯০ টাকা ৬৯ পয়সা।

দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী জানান, বিভিন্ন উন্নয়ন সহযোগী দেশ/সংস্থার সঙ্গে চলতি বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত ঋণ চুক্তির পরিমাণ ৯৫ হাজার ৯০৮ দশমিক ৩৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এর মধ্যে ৫৯ হাজার ৪৫৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড় হয়েছে। ছাড়ের অপেক্ষায় আছে ৪৬ হাজার ৪৫০ দশমিক ৩৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।
0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 18:00

রাজধানীর গেন্ডারিয়ার মনিজা রহমান গার্লস
এন্ড কলেজে অধ্যক্ষ লুৎফুন নাহারের বিরুদ্ধে যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা ছাড়াই
নিয়োগ পেয়েছিলেন। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্ত করতে গিয়ে অভিজ্ঞতা ও যোগ্যতা
ছাড়াই অধ্যক্ষ পদে নিয়োগ পাওয়ার প্রমাণ পেয়েছে ঢাকা বোর্ড। এ প্রতিষ্ঠানে
অধ্যক্ষ থাকাকালীন টাঙ্গাইলের একটি কলেজের অধ্যক্ষ পদের চাকরি করার
অভিযোগেরও প্রমাণ মিলেছে। এ পরিস্থিতিতে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক
ব্যবস্থা নেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা বোর্ড। বোর্ড থেকে দুই প্রতিষ্ঠানে
চাকরি করা অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে প্রতিষ্ঠানটির সভাপতিকে
নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।


জানা গেছে, অধ্যক্ষ লুৎফুন নাহার দুইটি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত রয়েছেন বলে অভিযোগ উঠলে ঢাকা বোর্ড তা তদন্তে কমিটি গঠন করে।  


তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে বলা হয়, বেসরকারি
স্কুল কলেজের এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো অনুযায়ী উচ্চমাধ্যমিক
বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ হওয়ার মত শিক্ষাগত যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা লুৎফুন নাহারের
নেই। এতে আরও বলা হয়েছে, লুৎফুন নাহার একইসাথে মনিজা রহমান গার্লস স্কুল
এন্ড কলেজে এবং টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার ব্রাহ্মণশাসন মহিলা কলেজে কর্মরত
ছিলেন। এমপিও নীতিমালা অনুযায়ী একইসাথে একাধিক পদের চাকরিতে নিয়েজিত থাকা
বিধিবহির্ভুত। 


বোর্ড থেকে সভাপতিকে পাঠানো চিঠিতে বলা
হয়েছে, অধ্যক্ষ লুৎফুন নাহার কাম্যযোগ্যতা না থাকা সত্ত্বেও অধ্যক্ষ পদে
চাকরি করা এবং একইসাথে দুই প্রতিষ্ঠানে চাকরিরত থাকার এমপিও নীতিমালা
অনুসারে বিধিবহির্ভুত। তাই, তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করে সাত
কর্মদিবসের মধ্যে বোর্ডের কলেজ পরিদর্শককে জানাতে বলা হয়েছে সভাপতিকে। 


গত ১২ সেপ্টেম্বর বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক
অধ্যাপক আবু তালেক মো. মোয়াজ্জেম হোসেন স্বাক্ষরিত চিঠিটি মনিজা রহমান
গার্লস এন্ড কলেজের সভাপতিকে পাঠানো হয়েছে।

0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 17:59

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলা সদরের হোসেনপুর
আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে সরকারের নিদের্শনা মোতাবেক ১২ সেপ্টেম্বর থেকে ক্লাস
শুরু হয়েছে। দুই জন বরখাস্তকৃত শিক্ষককে পুনর্বহালের দাবি করে ক্লাস নেওয়া
থেকে বিরত থাকেন বিদ্যালয়ের এমপিওভুক্ত ৬ জন শিক্ষক। ক্লাস বর্জন করা
শিক্ষকদের তিন দিনের বেতন কাটার নির্দেশ দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী
কর্মকর্তা  নির্বাহী অফিসার রাবেয়া পারভেজ। মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) ইউএনও এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্কুল সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সোমবার
দুপুরে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো.আবুল কালাম আজাদ বিদ্যালয়ে
পরিদর্শনে যান। এসময় ২জন বরখাস্তকৃত শিক্ষকসহ ৮ জন শিক্ষককে স্টাফ রুমে 
বসে গল্প করতে দেখেন। প্রধান শিক্ষকের কক্ষে সব শিক্ষককে একত্রিত করে
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সরকারের নিদের্শনা মেনে শিক্ষার্থীদের ক্লাস
নেওয়ার আহ্বান জানান। ওইস্কুলে বরখাস্ত দুই শিক্ষকের জন্য ১২ সেপ্টেম্বর
থেকে এমপিওভুক্ত ৬ জন শিক্ষক ক্লাসবর্জন করছিলেন। 


মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে হোসেনপুর
উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাবেয়া পারভেজ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ক্লাস বর্জনের
বিষয়টি নিয়ে শিক্ষকদের সাথে কথা বলেন।


পরে ইউএনও রাবেয়া পারভেজ জানান, সাময়িক বরখাস্ত হওয়া শিক্ষকদের বিষয়টি আপিল পর্যায়ে আছে। এখানে
আমাদের করণীয় কিছুই নেই। আপিলের সিদ্ধান্ত আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।
তাদের এই দাবি বেআইনী। তাছাড়া তারা ওই দুই শিক্ষকের বেতন ভাতার দাবি
করেছিলেন এবং আমি তাদের বেতন দেওয়ার ব্যবস্থা নিয়েছি। কিন্তু এতদিন পর
স্কুল খোলার পরে ছাত্রদের জিম্মি করে ক্লাস বর্জন স্পষ্টত সরকারের নির্দেশ
অমান্য করা। 


ইউএনও আরও বলেন, সরকারি বেতন ভাতাদি গ্রহণ
করে ছাত্রদের পাঠদানে বিরত থাকার সুযোগ নেই। তাদেরকে ক্লাসে ফিরতে বলা
হয়েছে এবং এই তিনদিন ক্লাস না নিয়ে দায়িত্ব পালন না করায় শিক্ষকদের বেতন
কর্তনসহ বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্কুল প্রধান ও মাধ্যমিক শিক্ষা
অফিসারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।


0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 17:58

ব্যাঙের ছাতার মতো এতো অনলাইন আসলে দেশে
প্রয়োজন নেই এমন মন্তব্য করে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ
বলেছেন, আদেশের লিখিত কপি হাতে পাওয়ার পরই আদালতের বেঁধে দেওয়া সময়ের
মধ্যে কিছু অনলাইন বন্ধ করে দেওয়া হবে। বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।


 


গতকাল মঙ্গলবার অনিবন্ধিত অনলাইন
নিউজপোর্টাল বন্ধের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। আদালতের আদেশ পাওয়ার সাতদিনের
মধ্যে বিটিআরসির চেয়ারম্যান ও প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যানকে এ নির্দেশ
বাস্তবায়ন করতে বলা হয়।


 


এ বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে
মন্ত্রী বলেন, এখন যেগুলো রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত সেগুলো ছাড়া ভবিষ্যতে আর
কোনো অনলাইন বের হবে না এমন কোনো নিয়ম নেই বা আজ যে পত্রপত্রিকা আছে
সেগুলো ছাড়া ভবিষ্যতে আর কোনো পত্রপত্রিকা বের হবে না এমনও কোনো নিয়ম
নেই। এমন নিয়ম কোথাও নেই। আমাদের দেশে যেমন নেই অন্য কোনো দেশে আছে বলেও
আমার জানা নেই।


 


তিনি বলেন, আদালতের আদেশ অত্যন্ত
গুরুত্বপূর্ণ এবং সহায়ক। যেসব অনলাইন সত্যিকার অর্থে গণমাধ্যম হিসেবে কাজ
করে না, বরং নিজস্ব বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করে এবং ব্যাঙের ছাতার মতো এত
অনলাইন আসলে দেশে প্রয়োজন নেই।


 


‘যার যেমন ইচ্ছা একটা অনলাইন খুলে বসবে
এবং সেটি নিয়ে যেমন ইচ্ছা তেমন সংবাদ পরিবেশন করবে, মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন
করবে, গুজব রটানোর কাজে ব্যস্ত হবে, অন্যের চরিত্র হনন করবে, ব্যবসায়িক
উদ্দেশ্যে পরিচালিত হবে, কোনো ব্যবসায়ীর স্বার্থ সংরক্ষণের জন্য সেখানে
লেখালেখি হবে, এটি কোনোভাবেই সমীচীন নয়। সে ক্ষেত্রে এ আদেশ অবশ্যই সহায়ক
আদেশ’ বলেন হাছান মাহমুদ।


 


তিনি বলেন, আমরা আদালতের লিখিত আদেশের
কপি হাতে পাওয়ার পরপরই আদালত যে সময়সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছেন সে সময়ের
মধ্যে কিছু অনলাইন বন্ধ করে দেয়া হবে। তবে ভবিষ্যতে অনলাইন নিবন্ধন দিতে
হবে। অনলাইন নিবন্ধন আমরা একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে করছি, সেটি আমরা
আদালতের কাছে উপস্থাপন করবো।


 


‘ইতোমধ্যে অনেকগুলো অনলাইন বন্ধ করা
হয়েছে। আদালতের নির্দেশে অনলাইন বন্ধ করার প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে আমাদের
জন্য সহায়ক। আমরা কিছু অনলাইন বন্ধ করব, একইসঙ্গে আদালতের নজরে আনব এটি
একটি চলমান প্রক্রিয়া। যাচাই-বাছাই ছাড়াই যদি সবগুলোকে একসঙ্গে বন্ধ করে
দেয়া হয় সেটি কত অতটুকু সমীচীন সেটাও ভাবার বিষয়, সেটিও আমরা আদালতের
নজরে আনব’।


 


আরেক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন,
আমরা যেভাবে অনলাইনের নিবন্ধন দিচ্ছি, একইভাবে ইউটিউব বা আইপিটিভি নিবন্ধন
দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছি। এখনো কাউকে নিবন্ধন দেওয়া হয়নি। আমরা আশা
করেছিলাম গত মাস থেকে দিতে পারবো। কিন্তু তদন্ত রিপোর্ট না পাওয়ায় আমরা
দিতে পারিনি। ব্যাঙের ছাতার মতো আইপিটিভি করার যে সুযোগ রয়েছে এটা
কোনোভাবেই সমীচীন নয়। যে সব আইপিটিভি বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়ে পরিচালিত হচ্ছে
এবং নিজেকে টেলিভিশন চ্যানেলের মতো জাহির করছে দ্রুত তাদের বিরুদ্ধে
ব্যবস্থা নেবো।


0 Share Comment
Deshi Group
15 September 2021, 17:57

সর্বশেষ জারিকৃত সরকারি বিধি মোতাবেক ভিরাল্লা এস.কে. উচ্চবিদ্যালয়ে নিয়োগ দেওয়া হবে।


পদের বিবরণঃ 


১। নৈশ প্রহরী ০১জন।

২। আয়া (মহিলা) ০১ জন।

৩। অফিস সহায়ক ০১ জন আবশ্যক। 


যোগ্যতাসম্পন্ন নবসৃষ্ট শূন্যপদে চতুর্থ শ্রেণী কর্মচারী নিয়োগ করা হবে।


প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও জীবন বৃত্তান্তসহ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ১৫ দিনের মধ্যে প্রধান শিক্ষক বরাবর আবেদনপত্র পৌঁছাইতে হবে। 


যোগাযোগঃ প্রধান শিক্ষক, ভিরাল্লা এস.কে. উচ্চবিদ্যালয়, ডাকঘর-বালিবাড়ি, উপজেলা-দেবিদ্বার, জেলাঃ কুমিল্লা। 


যোগাযোগঃ সভাপতি-০১৭১৮-৬১৮৫৫০, প্রধান শিক্ষক-০১৮১৩-৮৫১১২৬৷


0 Share Comment
$
$