অনলাইন শপিং,ফ্রিল্যান্সিং ও অন্যান্য কাজ করার জন্য এই ওয়েবসাইটে একটি একাউন্ট থাকতে হবে। একাউন্ট খোলা মানেই টাকা দিতে হবে এমন না। ফ্রিল্যান্সার অথবা বায়ার, এর যে কোন একটি চয়েজ করে একাউন্ট তৈরি করতে হবে।অথবা শপিং সেকশনের যে কোন প্রোডাক্টের এ্যাড টু কার্ট বাটনে ক্লিক করেও আপনি একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।সাইনআপ করুন এবং কাজ পোষ্ট করুন। ফ্রিল্যান্সারগণ কাজ খুজুন ও বিড করুন।একাউন্ট তৈরি হলে আপনি আপনার দেয়া ইউজার আইডি ও পাসওর্য়াড ব্যবহার করে সাইটে লগইন করতে পারবেন। You must have an account on this website for online shopping, freelancing and other activities. Opening an account does not mean that you have to pay. Freelancer or buyer, you have to create an account by choosing one of them. Or you can create an account by clicking on the add to cart button of any product in the shopping section.Sign up and post work. Freelancers find work and bid. Once the account is created, you can login to the site using your given user ID and password.

We have 77 guests and no members online

All Posts

3417 posts found

National/International News Group
16 September 2021, 19:06

ভয়ঙ্কর সুন্দর

ভয়ঙ্কর সুন্দর


চারপাশে হিম শীতল আবহাওয়া, হাড় কাঁপুনি শীত। ঠিক এমন পরিবেশে গেলেন একটি ঝরনার কাছে। ওমা! পানি কোথায়? ঝরনা গড়িয়ে পড়ছে গাঢ় লাল রঙের রক্ত! না, কোনো ভৌতিক সিনেমার গল্পের কথা বলছি না। বাস্তবেই রয়েছে এমন দৃশ্য। প্রকৃতির সে এক অদ্ভুত খেয়াল।

বলছিলাম অ্যান্টার্কটিকাতে অবস্থিত দ্য ব্লাড ফলসের কথা। যার বাংলা অর্থ রক্ত ঝরনা। সবচেয়ে শীতলতম এ মহাদেশের পূর্বাঞ্চলের ম্যাকমার্দোর ভিক্টোরিয়া ল্যান্ডে রয়েছে শুষ্ক উপত্যকা। সেখানকার টেইলর হিমবাহ থেকে টেইলর ভ্যালির তুষারে ঢাকা ওয়েস্ট লেক বনির ওপর দিয়ে বয়ে যায় রক্ত লাল রঙের ঝরনা। জায়গাটি অত্যন্ত দুর্গম তার ওপর প্রকৃতির অপার রহস্য লুকিয়ে রয়েছে স্থানটিতে। এ কারণেই ভ্রমণপিপাসুদের আকর্ষণ বাড়ায় এই পাহাড়টি।

১৯৩১ সালে প্রথম এই দৃশ্যটি আবিষ্কৃত হয়। এরপর বহু বিজ্ঞানীরা লাল রঙের পানির উৎস খুঁজেছেন। এরপর ২০১১ সালে একদল অভিযাত্রী এ পাহাড়ের রহস্য উদ্ভাবন করেন। সেখানে তারা দেখেন, অদ্ভুত এ জলপ্রপাতটি বাস্তবেই বিদ্যমান। যুগে যুগে অনেক বিজ্ঞানীরা বিভিন্ন যুক্তি-প্রমাণ দিয়ে এর ব্যাখ্যা করেছেন। প্রথম দিকে বিজ্ঞানীরা ভেবেছিলেন, কোনো লাল রঙা শ্যাওলার কারণে হয় পানির রঙ রক্তবর্ণ দেখায়। তবে বিষয়টি ঠিক নয়।

আনুমানিক ২০ লাখ বছর আগে সৃষ্টি হয় এ রক্তের ঝরনার। এর উৎসস্থল টমাস গ্লেসিয়া। টেলর হিমবাহ গলে এ রক্তপ্রপাতের পানি গড়িয়ে পড়ে। রক্তবর্ণ এ পানির গন্ধও নাকি রক্তের মতোই। তবে আলাক্সা ফোয়ারব্যাংকস বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় দেখা গেছে, অতিরিক্ত লবণাক্ত পানিতে আয়রন থাকায় তা অক্সিডাইজড হয়ে যায়।

একই প্রক্রিয়ায় লোহায় লাল রঙের মরিচা ধরে। লবণাক্ত পানি যখন অক্সিজেনের সংস্পর্শে আসে তখন এর বর্ণ লাল রঙ ধারণ করে। গবেষকদের মতে, হিমবাহ বিস্ফোরণের মাধ্যমে বিভিন্ন শাখা-উপশাখা তৈরি হয়ে রক্তপ্রপাতে পৌঁছানোর কার্যক্রম অন্তত দেড় মিলিয়ন বছর ধরে হয়েছে।
0 Share Comment
National/International News Group
16 September 2021, 19:05

দীর্ঘতম চোখের পাপড়ি

দীর্ঘতম চোখের পাপড়ি


বিশ্বের সবচেয়ে বড়, দাড়ি, গোঁফ, নখ কিংবা কারো জিভ। এর জন্য বিশ্ব রেকর্ড করে নিজেদের নাম লিখিয়েছেন গিনেং বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে। প্রতিনিয়ত মানুষ কসরত করে যাচ্ছে এসব রেকর্ড ভাঙা-গড়ার প্রতিযোগিতায়। বিশ্বে এমন একজন রয়েছেন, যার চোখের পাতার পাপড়ি সবচেয়ে বড়। এই রেকর্ড কখনো কেউ ভাঙতে পারবে কিনা এই নিয়ে এরই মধ্যে সংশয় তৈরি হয়েছে। কেননা মানুষের চোখের পাপড়ি সাধারণত শরীরের অন্যান্য অঙ্গের মতো সময় পরিক্রমায় বাড়ে না। সম্প্রতি গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ চোখের পাপড়ির অধিকারী হিসেবে নতুন রেকর্ড গড়েছেন চীনা নারী ইউ জিনজিয়া। তার চোখের পাপড়ি ৮ ইঞ্চি লম্বা!

জিনজিয়া নিজের পুরনো রেকর্ড ভেঙে নতুন এই রেকর্ড গড়েছেন। ২০১৬ সালে তার চোখের পাপড়ির দৈর্ঘ্য ছিল প্রায় ৫ ইঞ্চি। সে সময় তিনি প্রথমবার গিনেস বুকে নাম লেখান। কিন্তু বর্তমানে তার চোখের পাপড়ি আরো বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে ২০.৫ সেন্টিমিটার বা ৮ ইঞ্চি দৈর্ঘ্য। ফলস্বরূপ এবার নিজের রেকর্ড নিজেই ভেঙে দ্বিতীয়বারের মতো গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম লিখিয়েছেন তিনি।

২০১৫ সালে জিয়ানজিয়া প্রথম লক্ষ্য করেন তার চোখের পাপড়ি হঠাৎ অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। প্রথমটায় বেশ ভয় পেয়ে গিয়েছিলেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে ছুটে গিয়েছিলেন চিকিৎসকের কাছে। কিন্তু অনেক পরীক্ষার পরেও এই অস্বাভাবিকতার কোনো কারণ খুঁজে পাওয়া যায়নি। ফলে শেষ পর্যন্ত বিষয়টিকে সৃষ্টিকর্তার আশীর্বাদ হিসেবেই মেনে নিয়েছিলেন এবং যখন তিনি বুঝতে পারলেন, এত দীর্ঘ চোখের পাপড়ির অধিকারী পৃথিবীতে সম্ভবত তিনিই, তখন আবেদন জানান গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে।

গিনেস বুকে নাম ওঠার পর বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে গবেষকরা যোগাযোগ করেছেন জিয়ানজিয়ার সঙ্গে। তবে কোনোভাবেই এই অস্বাভাবিকতার কারণ খুঁজে পাওয়া যায়নি। বিজ্ঞানীদের ধারণা, এর পেছনে জিনগত মিউটেশন দায়ী।
0 Share Comment
National/International News Group
16 September 2021, 19:04

যে দেশে ১৩ মাসে বছর

যে দেশে ১৩ মাসে বছর


একটি দেশ বাদে বিশ্বের সব দেশে ১২ মাসে বছর গণনা করা হয়। অদ্ভুত এই নিয়ম চালু রয়েছে ইথিওপিয়ায়। এই বছর গণনার নিয়ম হিসেবে বলা হয়, বছরের ১২ মাস ৩০ দিনে গণনা করা হলেও ১৩তম মাস গণনা করা হয় ৬ বা ৭ দিনে। যা নির্ভর করে অধিবর্ষের ওপর। খবর বিবিসির।

মূলত যিশু খ্রিস্টের জন্মসাল ভিন্নভাবে গণনা করার কারণেই এমনটি ঘটে। ইতিহাসেও তারা অন্যদের থেকে আলাদা। কেননা ৫০০ খ্রিস্টাব্দে কাথ্যলিক চার্চ খ্রিস্টের জন্মসাল সংশোধিত করলেও ইথিওপিয়ার অর্থোডক্স চার্চ তা করেনি। ইথিওপিয়ায় শুধু ১৩ মাসেই বছর নয়, সেখানে বসন্তের সময় নতুন বছর শুরু হয়। পশ্চিমা ক্যালেন্ডার অনুযায়ী সেপ্টেম্বরের ১১ তারিখ পয়লা দিন হিসেবে গণনা করা হয়। অধিবর্ষে যা শুরু হয় ১২ সেপ্টেম্বর থেকে। এছাড়া দেশটিতে ১২টা থেকে নয়, সময় শুরু হয় ৬টা থেকে।
0 Share Comment
National/International News Group
16 September 2021, 19:01

চুল দানে বিশ্বরেকর্ড

চুল দানে বিশ্বরেকর্ড


নারীর সৌন্দর্যের একটি বড় অংশজুড়ে রয়েছে মাথার চুল। ঘন কালো লম্বা চুল রাখা নারীদের শখ। তবে এবার নিজের লম্বা চুল কেটে দান করলেন এক নারী। পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত মার্কিন স্কোয়াশ খেলোয়াড় জাহাব কামাল খান। নিজের লম্বা চুল দান করে বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন। এই মার্কিন নারী খেলোয়াড়ের জন্য লম্বা চুল সামলে খেলাধুলা চালিয়ে যাওয়াটাও কম ঝকমারি ছিল না। অবশেষে কেটে ফেললেন সেই সাধের চুল। সেই কাটা চুলের অংশ শিশুদের একটি সংস্থায় দান করে গিনেস বিশ্ব রেকর্ডসেও ঠাঁই করে নিলেন এই তরুণী।

বিশ্বে এককভাবে সবচেয়ে বেশি চুল দান করার রেকর্ড এখন তার। মাত্র ১৩ বছর বয়স থেকে চুল রাখা শুরু করেছিলেন জাহাব। এরপর আর একবারও চুল কাটাননি। দীর্ঘ ১৮ বছর পর এবার সেই চুলের অনেকটা কেটে ফেললেন তিনি। কিন্তু এর পেছনেও রয়েছে একটি মহত উদ্দেশ্য। তার এই চুল ‘চিলড্রেন উইথ হেয়ার লস’ নামের একটি সংস্থায় দান করছেন এই স্কোয়াশ খেলোয়াড়। এই সংস্থা চুল প্রয়োজন সেই সব শিশুদের নকল চুল দান করে থাকে।

প্রায় ৬ ফুট ১ ইঞ্চি চুল কেটে দান করেছেন জাহাব। এই মহৎ উদ্যোগের কারণে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে নাম উঠেছে তার। একবারে সবচেয়ে বেশি পরিমাণ চুল দান করার রেকর্ড গড়েছেন তিনি। এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফেসবুকে নিজের অ্যাকাউন্টে চুল দান করার ছবিটি শেয়ার করেছেন জাহাব। পাশাপাশি জানিয়েছেন, নিজের মনের কথাও। নেটিজেনরাও তার এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন।
0 Share Comment
National/International News Group
16 September 2021, 19:00

নতুন প্রজাতির ডাইনোসর ছিল ভয়ঙ্কর প্রাণী

নতুন প্রজাতির ডাইনোসর ছিল ভয়ঙ্কর প্রাণী


নতুন প্রজাতির একটি ডাইনোসরের জীবাশ্মের সন্ধান পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। বিলুপ্ত এই প্রাণী ৯ কোটি বছর আগে পৃথিবী দাপিয়ে বেড়াত বলে তাদের ধারণা। নতুন সন্ধান পাওয়া ডাইনোসরটির দাঁত হাঙরের মতো। এটি ওই সময়ে সবচেয়ে ভয়ংকর প্রাণী ছিল বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

নতুন প্রজাতির এই ডাইনোসর জীবাশ্ম পাওয়া গেছে উজবেকিস্তানে, নাম দেওয়া হয়েছে ‘উলুগবেগসরাস উজবেকিস্তানেনসিস’।

৯ কোটি বছর আগে মধ্যএশিয়ায় যে ভয়ংকর শিকার প্রাণী ডাইনোসরের বাস ছিল, এই আবিষ্কারের মাধ্যমে প্রথম তা জানা গেল। খবর লাইভসাইন্সের।

ডাইনোসরটির জীবাশ্ম বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, আট মিটার লম্বা প্রাণীটির ওজন ছিল এক টনের বেশি। তবে এই প্রজাতির একেকটি ডাইনোসরের ওজন ছয় টন পর্যন্ত হতো। টাইরানোসরাস প্রজাতির ডাইনোসরের চেয়ে এগুলো লম্বায় দ্বিগুণ ও ওজনে পাঁচ গুণ ছিল। যে জীবাশ্ম নিয়ে গবেষণা করা হয়, সেটি পাওয়া যায় আশির দশকে উজবেকিস্তানের কিজিলকুম মরুভূমিতে।

একটি জাদুঘরে রাখা ছিল সেটি। ২০১৯ সালে বিজ্ঞানীরা জীবাশ্মটি ওই জাদুঘর থেকে সংগ্রহ করে গবেষণা শুরু করেন।
0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 18:23

স্বর্ণের চুল

স্বর্ণের চুল


মানুষের নানা রকম অদ্ভুত শখ থাকে। সেই শখ পূরণের জন্য অনেকে ঝুঁকিও নেন। তাদের তালিকায় রয়েছেন মেক্সিকান র‌্যাপার ড্যান সুর। মাথার চুল ফেলে দিয়ে এর জায়গায় স্বর্ণের চেইন স্থাপন করেছেন তিনি।

বিষয়টি নিয়ে ড্যান সুর টিকটকে তার ভক্তদের বলেছেন, ‘সবাই তাদের চুল রঙ করে। আমি ভিন্ন কিছু করতে চেয়েছি। আশা করব, কেউ আমাকে কপি করবে না।’

অপর এক ভিডিওতে ২৩ বছর বয়সী এই গায়ক বলেন, ‘আমি মাথায় হুক স্থাপন করেছি। এই হুকের সঙ্গে আরো হুক রয়েছে। সবগুলোই আমার চামড়ার নিচে খুলির সঙ্গে আটকানো।’

গত এপ্রিলে মাথায় এই ‘স্বর্ণের চুল’ স্থাপন করেছেন ড্যান সুর। এছাড়াও তার মাথায় হীরার হার ঝুলতে দেখা যায়। সোনা, হীরার সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের দামি পাথরও রয়েছে ড্যান সুরের মাথায়। আর এই র‌্যাপারের এমন কাণ্ড দেখে হতবাক তার ভক্ত-অনুসারীরা। তবে চিকিৎসকদের মতে এটি খুবই বিপজ্জনক একটি কাজ। এতে ত্বকে ইনফেকশন হতে পারে।

ডা. ফ্র্যাঙ্ক অ্যাগুলো সতর্ক করে বলেন, এই ধরনের কাজ বিপজ্জনক। এতে খুব সহজে ব্যাকটেরিয়া শরীরে প্রবেশ করতে পারে। এই ক্ষেত্রে মস্তিষ্কের সুরক্ষার জন্য যে হাড় রয়েছে তা স্বর্ণের চেইনের ওজনের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। ওজন অথবা দুর্ঘটনার কারণে খুলিতে ফ্র্যাকচার হতে পারে।

চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মনা গুহারা জানান, এর ফলে স্থায়ীভাবে চুল পড়ে যেতে পারে। পাশাপাশি এই ক্ষেত্রে ড্যান সুরকে অনুসরণ না করার পরামর্শ দেন তিনি।
0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 18:20


জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশন মঙ্গলবার নিউইয়র্কে শুরু হয়েছে। খবর সিনহুয়া’র।

সাধারণ পরিষদের সভাপতি এবং জাতিসংঘ মহাসচিব জলবায়ু সংকট, সংঘর্ষ
এবং কভিড-১৯ এর এই চ্যালেঞ্জিং বছর মোকাবেলায় সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে আশা ও
ঐক্য জোরদারের আহ্বান জানিয়েছেন।


৭৬তম অধিবেশনের সভাপতি আবদুল্লা শহিদ বলেছেন, এটি একটি পীড়াদায়ক ও চ্যালেঞ্জের বছর।


তিনি নানা ধরনের চ্যালেঞ্জের কথা তুলে ধরে বলেন, বিশ্বের কোটি কোটি লোক
অসুস্থ হয়েছে। লাখ লাখ লোক মারা গেছে। কোটি কোটি লোক মহামারির করুন শিকারে
পরিণত হয়েছে। এ ছাড়া জলবায়ু পরিবর্তন, দুর্যোগ, সংঘর্ষ এবং অস্থিতিশীলতার
কারণে বিশ্ব জুড়েই উদ্বেগ রয়েছে।


তিনি বলেন, কিন্তু আমাদেরকে নতুন অধ্যায় শুরুর পথ বেছে নিতে হবে। আমাদেরকে আশা রাখতে হবে।


আবদুল্লা শহিদ বলেন, পরিস্থিতির অবশ্যই পরিবর্তন আসবে। আর এ পরিবর্তনের জন্যে আমাদেরকে অবশ্যই উদ্যোগ নিতে হবে।


জাতিসংঘ মহাসচিব এন্তোনিও গুতেরেস উদ্বোধনী ভাষণে বলেছেন, যে কোন দিক
থেকেই দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের পর থেকে বিশ্ব সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং সময় পার
করছে। মানব সভ্যতার অদৃশ্য শত্রু মহামারি করোনা। এখন সময় তাকে মোকাবেলা
করার।


তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় সকল চ্যালেঞ্জই এক হয়ে সমাধান করতে পারবে।


বিশেষ করে কভিড-১৯ এর কথা তিনি তুলে ধরে বলেন, সকলের জন্যে টিকা দেয়ার
গতি এবং চিকিৎসা সুযোগ বাড়িয়ে আমাদেরকে এই শত্রু মোকাবেলা করতে হবে।


বিশ্ব যেসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে তা প্রকৃতিগত নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, এসব মানুষের তৈরি।


তিনি বিশ্ব অর্থনৈতিক পদ্ধতিকে ধনী দরিদ্রের বিভাজনের জন্যে দায়ী করে বলেন, মানুষের মাত্রাতিরিক্ত লোভ এই গ্রহকে ধ্বংস করছে।


গুতেরেস বলেন, কাজের মাধ্যমে আমাদের ঐক্য এবং বহুমুখী চেতনার মাধ্যমে আমরা এইসব চ্যালেঞ্জ ও বিভাজন দূর করতে পারি।


বিদায়ী সভাপতি ভলকান বজকির টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নে প্রচেষ্টা দ্বিগুণ করার আহ্বান জানান।


তিনি টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাকে শান্তি ও সমৃদ্ধি এবং এই গ্রহবাসীর জন্যে নীল নকশা হিসেবে উল্লেখ করেন।


তিনি আরো বলেন, দিন দিনই বিশ্বায়ন আরো সম্প্রসারিত হচ্ছে। আমরা পরষ্পর
যুক্ত এবং নির্ভরশীল হচ্ছি। তাই জাতীয়তাবাদী সমাধান দিয়ে আমরা আমাদের
চ্যালেঞ্জসমূহ মোকাবেলা করতে পারবো না।

0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 18:19

২০৫০ সালের মধ্যে ২ কোটি বাংলাদেশি বাস্তুচ্যুত হতে পারেন: জাতিসংঘ

২০৫০ সালের মধ্যে ২ কোটি বাংলাদেশি বাস্তুচ্যুত হতে পারেন: জাতিসংঘ


জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি পেয়ে ২০৫০ সালের মধ্যে বাংলাদেশের প্রায় ১৭ শতাংশ এলাকা পানির নিচে তলিয়ে যেতে পারে এবং ২ কোটি মানুষ বাস্ত্যুচুত হতে পারেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ।

জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাই কমিশনার মিশেল ব্যাচলেট মানবাধিকার পরিষদের ৪৮তম অধিবেশনে এক প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে এই তথ্য জানান।

তিনি বলেছেন, মালদ্বীপের স্থলভাগের ৮০ শতাংশের বেশি এলাকার অবস্থান সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে মাত্র এক মিটারেরও কম উচ্চতায় রয়েছে। ইতোমধ্যে দেশটি জলবায়ু পরিবর্তনের মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এটি আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করবে।

ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, মিয়ানমার, থাইল্যান্ড এবং ভিয়েতনামসহ দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার বেশিরভাগ এলাকায় ২০৫০ সালের মধ্যে দৈনিক উচ্চ জোয়ারের কারণে বন্যা দেখা দিতে পারে; যে এলাকায় বর্তমানে ৪ কোটি ৮০ লোখের বেশি মানুষ বসবাস করছেন। এছাড়া প্রত্যেক বছর গড়ে ৭ কোটি ৯০ লাখের মতো মানুষের বাড়িতে বন্যা প্রভাব ফেলতে পারে।

পরিবেশগত দুর্যোগের কারণে বাস্ত্যুচুত হওয়ার ঘটনা দক্ষিণ এশিয়ায় গুরুতর এক সমস্যা। এই অঞ্চলের অভ্যন্তরীণ বাস্ত্যুচুত পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র বলছে, ২০১৯ সালে বাংলাদেশ, চীন, ভারত এবং ফিলিপাইন এই অঞ্চলের সব দেশের তুলনায় প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে সবচেয়ে বেশি বাস্ত্যুচুতির ঘটনা ঘটেছে; যা বিশ্বের মোট ৭০ শতাংশের সমান।

গত মাসে জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত জাতিসংঘের আন্তঃসরকার প্যানেল দক্ষিণ এশিয়ার জন্য উদ্বেগজনক পূর্বাভাস দিয়েছে।
0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 18:19

শাপলা

0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 18:06

ঘরে বসে আয়ের প্রলোভন, অনলাইনে জমজমাট জুয়া

ঘরে বসে আয়ের প্রলোভন, অনলাইনে জমজমাট জুয়া


২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসে সারা দেশের বিভিন্ন ক্রীড়া সংগঠন ও ক্লাবে ক্যাসিনোবিরোধী বিশেষ অভিযানের পর প্রকাশ্যে জুয়া খেলার প্রবণতা কমে আসে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কড়া নজরদারির মধ্যে জুয়া পরিচালনাকারী সিন্ডিকেটগুলো ঘুরে দাঁড়াতে না পারলেও এ সুযোগে অনলাইনে জুয়া খেলার প্রবণতা মাত্রাতিরিক্ত হারে বেড়ে গেছে। ঘরে বসে আয়ের ছুতোয় বিদেশ থেকে পরিচালিত ওয়েবসাইট এবং অ্যাপসের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে অনলাইন জুয়ায় অংশ নিচ্ছেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ। দেশে-বিদেশে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন জনপ্রিয় ফুটবল-ক্রিকেট লিগ চলাকালে টাকার ওপর টাকা বাজি লাগাচ্ছেন তারা। এ নেশা গ্রাস করছে দেশের তরুণ সমাজকে। প্রতিনিয়ত দেশ থেকে পাচার হয়ে যাচ্ছে কোটি কোটি টাকা। অবাক করার বিষয় হলো দেশের প্রধান কয়েকটি অনলাইন লেনদেন মাধ্যমকে কাজে লাগিয়েই জুয়াড়িরা এসব লেনদেন করছেন।

খোঁজ মিলেছে হাজারো বাংলাদেশি জুয়াড়ির : সম্প্রতি অনলাইন বেটিং সাইটের তিন জুয়াড়িকে গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ। এরপর হাজারো বাংলাদেশির নেটওয়ার্কের খোঁজ পান তারা। বাংলাদেশিদের মধ্যে কেউ কেউ এসব বেটিং সাইটের লোকাল এজেন্ট, মাস্টার এজেন্ট কিংবা সুপার এজেন্ট। তাদের একেকজনের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে শত শত সাধারণ জুয়াড়ি। এসব বেটিং সাইটের অ্যাডমিন অবস্থান করছেন দেশের বাইরে।

যেভাবে চলছে জুয়ার আসর:
ডিবি পুলিশ জানিয়েছে, ইমেইলে নিবন্ধনের পর মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে লোকাল এজেন্টকে টাকা দেন জুয়াড়িরা। সেই টাকার কমিশন কেটে রাখেন লোকাল এজেন্ট, মাস্টার এজেন্ট ও সুপার এজেন্ট। ধাপে ধাপে বাকি টাকা ডলারে রূপান্তর করে দেশের বাইরে থাকা সুপার অ্যাডমিনের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। ক্রিকেট-ফুটবলসহ প্রায় সব ধরনের খেলা নিয়ে এসব সাইটে জুয়া চলছে।

এসব সাইটে নিবন্ধনের প্রক্রিয়া সম্পর্কে গ্রেফতারদের একজন গোয়েন্দা পুলিশকে জানান, অনলাইনে জুয়া খেলতে আগ্রহীদের প্রথমে ফেসবুকের মাধ্যমে কর্তৃপক্ষকে জানাতে হয়, তিনি একটি আইডি নিতে চান। তখন গ্রুপ অ্যাডমিন তাকে একটি এজেন্ট দেন। ওই এজেন্টের মাধ্যমেই জুয়া খেলা শুরু হয়।

সূত্র আরও জানায়, জুয়া খেলতে প্রয়োজন পড়ে পার বেটিং ইউনিট বা পিবিইউ। বর্তমানে এক ইউনিট পিবিইউ-এর দাম একশ টাকা। সুপার অ্যাডমিন নিয়োগ দেন লোকাল, মাস্টার ও সুপার এজেন্ট। তারপর জুয়াড়িদের কাছে পিবিইউ বিক্রি করেন তারা। সেই টাকার পাঁচ শতাংশ হারে কমিশন পান এজেন্টরা। বাকি টাকা ডলারে রূপান্তর করে সুপার অ্যাডমিনের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়। জুয়ায় জিতলে পিবিইউ জমে জুয়াড়ির অ্যকাউন্টে। পরে তা এজেন্টদের মাধ্যমে টাকায় রূপান্তর করে নেওয়া যায়।

অনলাইন সাইটগুলোতে দেদার চলছে জুয়া :
বাংলাদেশ থেকে বিপুলসংখ্যক মানুষ প্রতিনিয়ত অনলাইনে জুয়া খেলছে। দৈনিক খোলা কাগজের অনুসন্ধানে বাংলাদেশে জনপ্রিয় বেশ কয়েকটি অনলাইন বেটিং সাইটের সন্ধান পাওয়া গেছে। এসব বেটিং সাইটে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) এবং আন্তর্জাতিক ও ক্লাব পর্যায়ের ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে জুয়ার আসর বসে। সাইটগুলো হলো- বেট থ্রি সিক্সটিফাইভ, নাইন উইকেটস, প্লেবেট ৩৬৫, লগ১০ ডট লাইভ, ৯ক্রিকেট, বিডিটি১০ডটকম, বেটবি২ডট লাইভ, বেটস্কোর২৪ ডটকম, টাকা৬৫ ডটকম, উইনস৬৫ ডটকম, বেটভিক্টর.কম ইত্যাদি। এসব ওয়েবসাইটে জুয়া খেলেন- এমন একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্রতিটি ওয়েবসাইটই এক বা একাধিক অ্যাডমিন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। তারাই জুয়া পরিচালনা করেন। পুরান ঢাকার সূত্রাপুরের এক বাসিন্দার সঙ্গে আলাপ হয় খোলা কাগজের। নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি বলেন, এসব ওয়েবসাইটে জুয়া খেলতে প্রথমে নাম ও মোবাইল নম্বর দিয়ে আইডি খুলতে হয়। তারপর টাকা পাঠিয়ে কয়েন কিনতে হয়। ওয়েবসাইটগুলোতে এক বা একাধিক বিকাশ, রকেট ও নগদ নাম্বার দেওয়া থাকে। সেসব নাম্বারে টাকা পাঠালে সমপরিমাণ কয়েন দেওয়া হয়। এছাড়া এক জুয়াড়ি অন্য জুয়াড়ির কাছ থেকেও প্রয়োজনে টাকার বিনিময়ে কয়েন সংগ্রহ করেন। সদরঘাটের আরেক অনলাইন বেটিং প্ল্যাটফর্ম ব্যবহারকারী খোলা কাগজকে বলেন, রেজিস্ট্রেশন করার পর নতুন খেলোয়াড় প্রতি খেলায় সর্বনিম্ন ২০ কয়েন, সর্বোচ্চ যে কোনো পরিমাণ বেট বা বাজি ধরতে পারে। বাজি ধরার পর জয়ী হলে বিজয়ীর অ্যাকাউন্টে কয়েন জমা হয়। পাঁচশ কয়েন জমা হলে তা উইথড্র অপশনের মাধ্যমে তুলতে পারেন জুয়াড়িরা। এক্ষেত্রে অ্যাডমিনের কাছে রিকোয়েস্ট করে বিকাশ, রকেট বা নগদ নাম্বার দেওয়ার ৩০ মিনিট থেকে এক ঘণ্টার মধ্যে টাকা পাঠিয়ে দেন ওয়েবসাইট অ্যাডমিনরা।

ব্যবহার হচ্ছে অনলাইনভিত্তিক দেশীয় লেনদেন মাধ্যম:
অনুসন্ধানে জানা গেছে, জুয়ার অর্থ লেনদেনের জন্য অ্যাডমিনদের কাছে ১০ থেকে ১৫টি করে বিকাশ, রকেট ও নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবার নাম্বার রয়েছে। বিকাশ, রকেট ও নগদের এজেন্ট সিম নিতে ভুয়া তথ্য-প্রমাণ ব্যবহার করছেন এসব ওয়েবসাইট পরিচালকরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সরকার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরে এলেই এ ধরনের ওয়েবসাইট বাংলাদেশে বন্ধ করে দিচ্ছে বিটিআরসি। তবে বন্ধের অল্প সময়ের মধ্যেই ওয়েবসাইটের ডোমেইন নাম পরিবর্তন করে পুনরায় তারা ফিরে আসছে। ওয়েবসাইট বন্ধ করে দিলেও জুয়াড়িদের জমা রাখা টাকার নিশ্চয়তা দেয় অনেক ওয়েবসাইট। নতুন ডোমেইন নিয়ে ফিরে এসে জুয়াড়িদের জমা থাকা কয়েন ফেরত দিচ্ছে তারা। আবার জুয়াড়িদের বেটিংয়ের জন্য জমা বিপুল পরিমাণ টাকা নিয়ে উধাও হয়ে যাওয়া ওয়েবসাইটের সংখ্যাও কম নয়।

প্রশাসন যা বলছে:
ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার এইচ এম আজিমুল হক খোলা কাগজকে বলেন, ঘরে বসে আয়ের প্রলোভনে শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে আকৃষ্ট করছে জুয়াড়িচক্র। জুয়াড়িদের এসব সার্কেলের মধ্যে একশ লোক থাকতে পারে। কোথাও এক হাজার বা বড় সার্কেল হলে ১০ হাজার লোকও থাকতে পারে। তাদের এজেন্ট ও সাব এজেন্ট রয়েছে। তারা বসে বসে খেলে এবং পয়েন্ট জেতে। সেই পয়েন্টকে পরে তারা কারেন্সিতে রূপান্তর করে। বেটিং সাইটে জড়িত বাংলাদেশিদের ধরতে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।
0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 18:02

নভেম্বরে জিম্বাবুয়ে সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল

নভেম্বরে জিম্বাবুয়ে সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল
আগামী নভেম্বরে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে জিম্বাবুয়ে সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল।

খবরটি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নারী ক্রিকেট উইংয়ের প্রধান শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল।

এই সিরিজ শেষে ১০ দলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের জৈব-সুরক্ষা বলয়ে প্রবেশ করবে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে।

গত বছরের ফেব্রুয়ারি-মার্চে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর এই দ্বিপাক্ষিক সিরিজই হতে যাচ্ছে টাইগ্রেসদের প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক সিরিজ।

জিম্বাবুয়ে সফরের বিষয়ে নাদেল বলেন, ‘বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ও জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট এই দ্বিপাক্ষিক সিরিজ নিয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের আগেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ নারী দল। কারণ বাছাইপর্বও হবে ওয়ানডে ফরম্যাটে।’

বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল সবশেষ ওয়ানডে খেলেছিল পাকিস্তানের বিপক্ষে, ২০১৯ সালের নভেম্বরে। আগামী ৪ অথবা ৫ নভেম্বর জিম্বাবুয়ের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়বে টাইগ্রেসরা।
0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 17:59

পাকিস্তানে আশ্রয় নিল আফগান নারী ফুটবলাররা

পাকিস্তানে আশ্রয় নিল আফগান নারী ফুটবলাররা
তালেবানরা আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর নিরাপত্তা ঝুঁকিতে ছিলেন দেশটির নারী ক্রীড়াবিদরা। অনেকে পালিয়েছেন দেশ ছেড়ে।

এবার সীমান্ত অতিক্রম করে পাশের দেশ পাকিস্তানে আশ্রয় নিলেন আফগান নারী ফুটবলাররা। তাদের মধ্যে অনেকেই বয়স ভিত্তিক ফুটবল দলের খেলোয়াড়।

নারী অধিকার বিষয়ে তালেবানদের কঠোর ব্যবস্থার ঘোষণার পর থেকে ভয়ে আত্মগোপনে ছিলেন এসব নারীরা।

ভয়ে গত মাসে কাবুল ছেড়েছিলেন আফগান নারী জাতীয় ফুটবলাররা। তবে বয়স ভিত্তিক দলের সদস্য পাসপোর্ট ও অন্যান্য নথি সমস্যার কারণে পালিয়ে যেতে পারেননি।

দাতব্য সংস্থা ‘ফুটবল ফর পিস’-এর সুপারিশে পাকিস্তানে আশ্রয় নেওয়া ৩২ ফুটবলার ও তাদের পরিবার ভিসা পেয়েছে।

পাকিস্তান ফুটবল ফেডারেশনের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মোট ৮১ জনের একটি দল পাকিস্তানে আশ্রয় নিয়েছে। লাহোরের পূর্ব শহরে অবস্থিত ফেডারেশনে তাদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।’

তার মধ্যে পালিয়ে আসার আরও ৩৪ জন পাকিস্তানে পৌঁছেছেন বলেও জানান তিনি।

ওই কর্মকর্তা আরও জানান, আশ্রয় নেওয়া ফুটবলাররা ৩০ দিন পর্যন্ত কড়া নিরাপত্তা বেষ্টনীতে থাকবেন। এরপর তৃতীয় কোনো দেশে আশ্রয়ের জন্য আবেদন করবেন।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম ইন্ডিপেনডেন্ট সম্প্রতি জানিয়েছে, ওই খেলোয়াড়রা তাড়াতাড়ি পাকিস্তানে প্রবেশের জন্য দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে লিখিত অনুমতি প্রার্থনা করেন।

আবেদনপত্রে জানানো হয়, নারী ফুটবলাররা তালেবানদের কাছ থেকে মৃত্যুর হুমকি পেয়েছেন।

এক মাস আগে পতন হয় কাবুলের। এরপর মৃত্যু ভয়ে শঙ্কিত হয়ে ওঠেন আফগান নারী ফুটবলাররা। তালেবানরা ক্ষমতায় আসার পর আফগানিস্তান জাতীয় দলের অধিনায়ক খালিদা পোপাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকেও তাদের খেলার ছবি মুছে ফেলেন। এমনকি নতুন শাসনে নিজেদের সুরক্ষার জন্য জার্সিও পুড়ে ফেলেন তিনি।

0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 17:56

ধারাভাষ্যকে বিদায় জানাচ্ছেন মাইকেল হোল্ডিং

ধারাভাষ্যকে বিদায় জানাচ্ছেন মাইকেল হোল্ডিং
মৌসুম শেষে আর মাইক হাতে দেখা যাবে না আধুনিক ক্রিকেটের অন্যতম ধারাভাষ্যকার মাইকেল হোল্ডিংকে। অসংখ্য ঐতিহাসিক ক্রিকেট ম্যাচের সাক্ষী এই কিংবদন্তি ধারাভাষ্যকার অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন।

ইংল্যান্ডের মাটিতে সবার পরিচিত মুখ হোল্ডিং। এই মৌসুমেই স্কাই স্পোর্টসের সঙ্গে সম্পর্ক শেষ হচ্ছে তার। বিষয়টি নিজেই নিশ্চিত করেছেন কিংবদন্তি ক্যারিবীয় ক্রিকেটার।

গত বছরই ধারাভাষ্য ক্যারিয়ারের ইতি টানতে চেয়েছিলেন হোল্ডিং। কিন্তু স্কাই স্পোর্টসের প্রতি তার কৃতজ্ঞতাবোধ থেকে অবসরে যেতে পারেননি। কিন্তু আর ধারাভাষ্য চালিয়ে যেতে পারবেন না জানিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইতিহাসের সর্বাপেক্ষা দ্রুতগতির এই সাবেক পেসার।

হোল্ডিং এক রেডিও প্রোগ্রামে অবসরের প্রসঙ্গে বলেন, ‘২০২০ সালে ধারাভাষ্য ঠিক কতটা চালিয়ে যেতে পারব সে বিষয়য়ে আমি নিশ্চিত ছিলাম না। আমার এখন যে বয়স, এই বয়সে খুব বেশিদিন কাজটা করতে পারব, তেমনটা মনে হচ্ছে না। আমার বয়স এখন ৬৬। ৩৬, ৪৬ কিংবা ৫৬ নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘গত বছরই আমি স্কাই স্পোর্টসকে বলেছিলাম, এক বছরের বেশি আর চালিয়ে যেতে পারব না। চলতি বছরে যদি ক্রিকেট আর খুব বেশি না হয় তবে এই বছর কিছু কাজ করব। ২০২০ সালে আমার স্কাই স্পোর্টসকে বিদায় বলতে না পারার কারণ, তারা আমার জন্য অনেক কিছু করেছে।’

পুঙ্খানুপুঙ্খ বিশ্লেষণের জন্য খুবই জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার হিসেবে পরিচিত হোল্ডিং। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের আঁটসাঁট সূচির জন্য তিনি তার ক্যারিয়ারে দ্বিতীয় ইনিংসকে বিদায় জানানোর ঘোষণা দিলেন।

উইন্ডিজের হয়ে ৬০টি টেস্ট ও ১০২টি ওয়ানডে খেলেছেন হোল্ডিং। নিয়েছেন মোট ৩৯১ উইকেট। ১৯৮৭ সালে ক্রিকেট থেকে অবসর নেন তিনি।
0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 17:54

দেড় কোটি ছাড়াল সাকিবের ফলোয়ার

দেড় কোটি ছাড়াল সাকিবের ফলোয়ার
বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অন্যতম খেলোয়াড় সাকিব আল হাসান। সম্প্রতি অনন্য এক মাইলফলক ছুঁয়েছেন তিনি। প্রথম বাংলাদেশি ব্যক্তি হিসেবে তার ফেসবুক ফলোয়ারের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে দেড় কোটি।

গত ৭ সেপ্টেম্বর দুপুরে তার ফেসবুক অনুসারির সংখ্যা ছিল ১ কোটি ৪৮ লাখ ৯০ হাজার ২০১। সেটাই আজ এসে ঠেকেছে দেড় কোটিতে। তাতেই তিনি ছুঁয়ে ফেলেছেন অনন্য এক কীর্তি।

তাই তিনি নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে ভক্তদের ধন্যবাদ জানিয়ে লিখলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, আমার ভক্তরাই বিশ্বের সেরা। আপনাদের ভালোবাসা ও দোয়ার জন্য, ভালো ও খারাপ সময়ে আমার পাশে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। আপনাদের সবাইকে আমি ভালোবাসি।’
0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 17:53

মাত্র ১৫ বছর বয়সে সিরিয়ায় পালিয়ে ইসলামিক স্টেটে যোগ দেয়া ব্রিটিশ-বাংলাদেশি মেয়ে শামীমা বেগম ব্রিটিশ টেলিভিশনের ক্যামেরার সামনে নতুন বেশভূষায় হাজির হয়েছেন।

Shamia
মাত্র ১৫ বছর বয়সে সিরিয়ায় পালিয়ে ইসলামিক স্টেটে যোগ দেয়া ব্রিটিশ-বাংলাদেশি মেয়ে শামীমা বেগম ব্রিটিশ টেলিভিশনের ক্যামেরার সামনে নতুন বেশভূষায় হাজির হয়েছেন।

২২ বছর বয়সী শামীমা বেগম আইটিভির গুড মর্নিং ব্রিটেন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন একেবারে পশ্চিমা ধাঁচের খোলামেলা পোশাক পরে, যে ধরণের পোশাকে তাকে আগে কখনো দেয়া যায়নি।

তার পরনে ছিল ধূসর রঙের স্লিভলেস ভি কাট ভেস্ট, মাথায় বেজ বল হ্যাট এবং আঙুলের নখে গোলাপি নেইল পলিশ।

সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই অভিযোগ করছেন, শামীমা বেগম আসলে এখন ব্রিটেনে ফিরে আসার জন্য এবং মানুষের সহানুভূতি পাওয়ার উদ্দেশ্যেই ইচ্ছে করেই খোলামেলা পশ্চিমা পোশাকে এই টিভি অনুষ্ঠানে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন।

সাক্ষাৎকারে শামীমা বেগমকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, তিনি বোরকা ছেড়ে যে এখন আবার পশ্চিমা ধাঁচের পোশাক পরেছেন, তা এরকম একটা উদ্দেশ্যে কীনা?

জবাবে শামীমা বেগম বলেন, তিনি হিজাব পরা ছেড়ে দিয়েছেন প্রায় এক বছরেরও বেশি আগে, তিনি নিজেই হিজাব খুলে ফেলেছেন। কারণ তার মনে হচ্ছিল হিজাবের কারণে তিনি একটা গন্ডির মধ্যে বাঁধা পড়ে যাচ্ছেন। তিনি যদি হিজাব না পরেন তাতেই তিনি বেশি স্বস্তি বোধ করেন।

তিনি আরও বলেন, হিজাব না পরা অবস্থায় লোকজনকে তার ছবি তুলতে দেয়ার অনেক সুযোগ তার আগেও ছিল।

তার বেশ-ভূষা এবং চেহারায় এই নাটকীয় পরিবর্তন মানুষের মন জয় করার জন্য নয় বলে তিনি দাবি করেন।



আইএস আমার ও আমার পরিবারের জীবন নষ্ট করেছে

প্রায় আধ ঘণ্টা ধরে এই দীর্ঘ সাক্ষাৎকারে শামীমা বেগম তার পালিয়ে গিয়ে আইসিসে যোগ দেয়া, সেখানে তার জীবন, এবং কেন এখন তিনি আবার ব্রিটেনে ফিরে আসতে চান তা নিয়ে বিস্তারিত কথা বলেন।

শামীমা বেগম বলছেন, আইএস জঙ্গি সংগঠনে যোগ দেওয়ার জন্য তিনি বাকি জীবন গ্লানি বোধ করবেন। এবং এখন তিনি সন্ত্রাসবাদ দমনে ব্রিটিশ সরকারকে সহায়তা করতে চান।

শামীমা বেগম বুধবার সিরিয়ার এক শরণার্থী শিবির থেকে বিবিসি, বিবিসি ফাইভ লাইভ এবং আইটিভিকে পৃথক সাক্ষাৎকার দেন।

বিবিসির রিপোর্টার জশ বেকারকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন শামীমা বেগম বলেন, আইসিসে যোগ দেবার কথা মনে পড়লে তিনি অসুস্থ বোধ করেন, নিজের প্রতি ঘৃণা বোধ করেন- এবং এখন তার প্রকৃত অনুভূতি প্রকাশ করতে পেরে তিনি স্বস্তি বোধ করছেন।

‘আমি আমার বাকি জীবন এ জন্য দুঃখ বোধ করবো। আপনি আমার মুখে তার ছাপ দেখতে পান বা না পান- এটা আমাকে ভেতর থেকে মেরে ফেলছে। এ জন্য আমি ঘুমাতে পারি না। আইসিস মানুষের জীবন নষ্ট করেছে, আমার ও আমার পরিবারের জীবন নষ্ট করেছে’।

বিবিসির রিপোর্টার তাকে প্রশ্ন করেন, আইসিস তার খেলাফত কায়েম রাখতে পারেনি বলেই কি তিনি এখন তার মত পরিবর্তন করেছেন?

জবাবে শামীমা বেগম বলেন, বহু দিন আগেই তার ধারণা পরিবর্তন হয়েছিল, তবে এখন তিনি তা প্রকাশ করতে পারার মত মানসিক অবস্থায় পৌঁছেছেন।



‘ব্রিটিশ সরকারের আমাকে সম্পদ হিসেবে বিবেচনা করা উচিৎ’

আইটিভিকে দেয়া শামীমা বেগমের সাক্ষাৎকারটি প্রচারিত হয় স্থানীয় সময় সকালে - প্রভাতী অনুষ্ঠান ‘গুড মর্নিং ব্রিটেন’এ।

এতে শামীমা বেগম ব্রিটিশ জনগণ এবং ব্রিটিশ সরকারের কাছে ক্ষমা চেয়ে তাকে ব্রিটেনে ফেরার সুযোগ দেয়ার আহ্বান জানান।

এই সাক্ষাৎকারে শামীমা বেগমকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, ধরা যাক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এই সাক্ষাৎকারের ভিডিও দেখছেন বা তার কথা পড়ছেন, তিনি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীকে কী বলতে চান।

জবাবে শামীমা বেগম বলেন, ‘আমি বলতে চাই আপনি সন্ত্রাসবাদ দমনে নিশ্চয়ই হিমসিম খাচ্ছেন, আমি এ নিয়ে আপনাকে সাহায্য করতে চাই। আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে আপনাকে বলতে পারবো এই জঙ্গিরা কিভাবে সিরিয়ার মতো জায়গায় লোকজনকে তাদের কথামত কাজ করতে বাধ্য করে। আমি সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে আপনার লড়াইয়ে সাহায্য করতে পারবো’।

তিনি আরও বলেন, ‘ব্রিটিশ সরকারের উচিৎ আমাকে হুমকি হিসেবে গণ্য না করে বরং সম্পদ হিসেবে বিবেচনা করা’।



ব্রিটিশ জনগণের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা

ব্রিটিশ জনগণের কাছে ক্ষমা চেয়ে তিনি বলেন, ‘আমি জানি ব্রিটিশ জনগণের পক্ষে আমাকে ক্ষমা করা কঠিন, কারণ তারা ইসলামিক স্টেটের হামলার ভয়ে দিন কাটিয়েছেন, অনেকে ইসলামিক স্টেটের কারণে তাদের প্রিয়জনকে হারিয়েছেন। আমি জানি তাদের পক্ষে আমাকে ক্ষমা করা কঠিন’।

‘তারপরও আমার অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে বলতে পারি, আমি যদি এখানে আসার কারণে কাউকে আহত করে থাকি, তার জন্য আমি সত্যি সত্যি দুঃখিত’।

শামীমা বেগম পূর্ব লন্ডনের সেই তিন কিশোরীর একজন, যারা ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারীতে সিরিয়ায় পাড়ি জমান ইসলামিক স্টেটে যোগ দেয়ার জন্য।

তার জন্ম লন্ডনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত বাবা-মার ঘরে। যখন তিনি লন্ডন ছেড়ে যান তখন তার বয়স ছিল ১৫ বছর।

তিনি তুরস্ক হয়ে সিরিয়ার রাকায় পৌঁছান এবং সেখানে ইসলামিক স্টেটে যোগ দেয়া নেদারল্যান্ডসের এক যোদ্ধাকে বিয়ে করেন। এই ব্যক্তিই তার তিন সন্তানের পিতা।

২০১৯ সালে তাকে সিরিয়ার এক শরণার্থী শিবিরে নয় মাসের গর্ভবতী অবস্থায় খুঁজে পাওয়া যায়। সেখানে জন্ম নেয়া তার সন্তান পরে নিউমোনিয়ায় মারা যায়। এর আগেও তিনি তার আরও দুটি সন্তান হারিয়েছেন।

শামীমা বেগমকে খুঁজে পাওয়ার পর তৎকালীন ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (এখন স্বাস্থ্যমন্ত্রী) সাজিদ জাভিদ তার নাগরিকত্ব বাতিল করেন।



বাংলাদেশে আসতে চান না

শামীমা বেগমকে সাক্ষাৎকারে জিজ্ঞাসা করা হয়, তিনি বংশগতভাবে বাংলাদেশের নাগরিক, কাজেই তিনি কেন বাংলাদেশে যাচ্ছেন না?

জবাবে শামীমা বেগম বলেন, তিনি জীবনে কখনো বাংলাদেশে যাননি, বাংলাদেশি নাগরিকত্বের কোন অধিকার তার নেই। আর বাংলাদেশের কর্তৃপক্ষ এরই মধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন, তাকে সেখানে যেতে দেয়া হবে না এবং গেলে তাকে মৃত্যুদন্ডের মুখোমুখি হতে হবে।

তিনি প্রশ্ন করেন, ব্রিটেনের মতো একটি গণতান্ত্রিক দেশ, যারা মৃত্যুদন্ডে বিশ্বাস করে না, তারা কীভাবে আশা করে যে মৃত্যুদন্ডের মুখোমুখি হওয়ার জন্য তিনি বাংলাদেশে যাবেন।



সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্ক

শামীমা বেগমের এই সাক্ষাৎকার প্রচারিত হওয়ার পর তাকে ব্রিটেনে ফিরতে দেয়া উচিৎ কি উচিৎ নয়, তা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র বিতর্ক শুরু হয়েছে।

অনেকেই বলছেন তার কথা বিশ্বাস করা ঠিক হবে না এবং তাকে মোটেই ব্রিটেনে ঢুকতে দেয়া উচিৎ হবে না।

তবে ডেবি হেনরি নামে একজন টুইটারে শামীমা বেগমের পক্ষ নিয়ে লিখেছেন, ‘সবার মনে রাখা উচিৎ যখন তাকে আইসিসে যোগ দেয়ার জন্য তৈরি করা হয়েছিল, তখন সে ছিল শিশু। সে তার সন্তান এবং বন্ধুদের হারিয়েছে। তার প্রতি আমাদের একটু সহানুভূতিশীল হওয়া উচিৎ’।

তবে কেউ কেউ শামীমা বেগমকে ব্রিটেনে ফিরিয়ে এনে বিচারের মুখোমুখি করার দাবি জানিয়েছেন।

অ্যান স্মিথ নামে একজন টুইটারে লিখেছেন, শামীমা বেগমকে ব্রিটেনে ফিরতে দেয়া উচিৎ। এরপর তাকে বিচারের মুখোমুখি করে দরকার হলে বন্দী করে রাখা যেতে পারে। এরপর তাকে পুনর্বাসন করতে হবে।
0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 17:51

সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে আইনি নোটিশ

সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে আইনি নোটিশ
দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সংশ্লিষ্টদের প্রতি আইনি নোটিশ পাঠিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সচিবসহ ছয় জনকে এ নোটিশ পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী খন্দকার হাসান শাহরিয়ার।

করোনা মহামারি নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে এ নোটিশ দেয়া হয়েছে। এতে নোটিশ পাওয়ার সাতদিনের মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত বাতিল করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ ও প্রচার করার অনুরোধ করা হয়েছে। অন্যথায় এ বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হবে বলেও নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে।

একইসঙ্গে নোটিশে করোনাকালীন পুরো সময়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীনে যৌথ কমিটি করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে অনলাইনে শতভাগ ক্লাস নেয়ার পদক্ষেপ গ্রহণ করতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এর আগে গত ৯ সেপ্টেম্বর সারাদেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখতে আরেকটি আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছিল। রেজিস্ট্রি ডাকযোগে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা সচিব, কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা সচিসহ ছয়জনকে লিগ্যাল নোটিশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী খন্দকার হাসান শাহরিয়ার।

নোটিশে বলা হয়, করোনা মহামারি নির্মূল না হওয়া পর‌্যন্ত প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত অনলাইলে নিয়মিত পাঠদানের পাশাপাশি প্রতিষ্ঠান যদি খুলতেই হয় তাহলে সপ্তাহে একদিন শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে সশরীরে পাঠদান এবং চলতি বছর থেকে পিএসসি ও জেএসসি পরীক্ষা বাতিল করে গণবিজ্ঞপ্তি প্রচার ও প্রকাশ করবেন।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কারণে যদি কোনো শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষক কিংবা কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত হন তাহলে সরকারের পক্ষ থেকে বিনামূল্যে তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা নেওয়া এবং প্রাণহানির ঘটনা ঘটলে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দেওয়াসহ ওই পরিবারের দায় সরকারকে বহন করার গণবিজ্ঞপ্তি প্রচার ও প্রকাশ করতে পদক্ষেপ নেবেন। সাতদিনের মধ্যে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে অন্যথায় হাইকোর্টে রিট করা হবে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়।

এছাড়া চলতি বছরের ১১ জানুয়ারি সারাদেশের সব স্কুল-কলেজ খুলে দিতে সরকারকে আরেকটি আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, করোনার কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এরপর থেকে দফায় দফার বন্ধ বাড়িয়ে চলতি মাসের ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত করা হয়।
0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 17:48

বিদ্যুৎ, জ্বালানি দ্রুত সরবরাহ বিল পাস

বিদ্যুৎ, জ্বালানি দ্রুত সরবরাহ বিল পাস
জাতীয় সংসদে আজ বৃহস্পতিবার বিদ্যুৎ, জ্বালানি দ্রুত সরবরাহ বিল-২০২১ পাস হয়েছে।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিলটি পাসের প্রস্তাব করেন।

বিদ্যমান আইনে দ্রুত বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিতের বিশেষ বিধানের মেয়াদ চলতি বছরের অক্টোবরে শেষ হয়ে যাবে।

বিলে এ মেয়াদ আরো ৫ বছর বৃদ্ধি করে মোট ১৬ বছর করার বিধান করা হয়।

জাতীয় পার্টির মুজিবুল হক, পীর ফজলুর রহমান, শামীম হায়দার পাটোয়ারী, বিএনপির হারুনুর রশীদ, মোশাররফ হোসেন, রুমীন ফারহানা এবং স্বতন্ত্র সদস্য রেজাউল করিম বাবলু বিলের ওপর জনমত যাচাই বাছাই কমিটিতে প্রেরণ ও সংশোধনী প্রস্তাব আনলে তা কণ্ঠ ভোটে নাকচ হয়ে যায়।
0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 17:39

চীনের মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ার নিরাপত্তা চুক্তি

চীনের মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ার নিরাপত্তা চুক্তি
চীনের মোকাবিলায় এক জোট হলো যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়া। তিন দেশের মধ্যে বুধবার বিশেষ নিরাপত্তা চুক্তি হলো।

দেশ তিনটি এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে চীনের ক্রমবর্ধমান ক্ষমতা ও সামরিক উপস্থিতি নিয়ে উদ্বিগ্ন।

এ চুক্তি অনুসারে অস্ট্রেলিয়াকে পরমাণু-চালিত সাবমেরিনের প্রযুক্তি দেবে দেশ দুটি। এ ছাড়া আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স, কোয়ান্টাম প্রযুক্তি ও সাইবার নিরাপত্তার ক্ষেত্রেও সাহায্য করবে। এর ফলে অস্ট্রেলিয়ার সামরিক শক্তি অনেকটাই বাড়বে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন এক যৌথ বিবৃতিতে ‘অকাস’ নামের ত্রিপক্ষীয় এই নিরাপত্তা অংশীদারত্বের ঘোষণা দেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘অকাসের আওতায় প্রথম উদ্যোগে হিসেবে আমরা পরমাণু চালিত সাবমেরিন সক্ষমতা অর্জনে সহায়তায় অঙ্গীকার করছি। এটি ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে স্থিতিশীলতায় এবং আমাদের যৌথ স্বার্থের সহায়তায় মোতায়েন করা হবে।’

ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আজ আমরা একটা ঐতিহাসিক পদক্ষেপ নিয়েছি। এর ফলে তিন দেশের সম্পর্ক আরও জোরালো হবে। ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা দীর্ঘস্থায়ী হবে।’

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী জনসন বলেছেন, ‘এই চুক্তির ফলে অস্ট্রেলিয়া পরমাণু-চালিত সাবমেরিন বানাতে পারবে। এর ফলে বন্ধুত্বের এক নয়া অধ্যায় শুরু হলো।’

‘এই সাবমেরিনে পরমাণু রিঅ্যাকটর থাকবে, পরমাণু অস্ত্র নয়। পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের বিষয়টি মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

এর ফলে ফরাসি নকশার সাবমেরিন তৈরির যে চুক্তি করেছিল তা থেকে সরে এলো অস্ট্রেলিয়া।

২০১৬ সালে অস্ট্রেলিয়ার নৌবাহিনীকে ৫০ বিলিয়ন ডলারে ১২টি সাবমেরিন সরবরাহের কাজটি পেয়েছিল ফ্রান্স। যদিও অনেক উপকরণ স্থানীয়ভাবে সংগ্রহ করতে হবে- ক্যানবেরার এমন শর্তের কারণে প্রকল্পের কাজ বিলম্বিত হচ্ছিল।

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেছেন, ‘অস্ট্রেলিয়ার নৌবাহিনীকেও শক্তিশালী করা হচ্ছে। তাদের হাতে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র দেওয়া হচ্ছে।’

এই ঘোষণার পর নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আর্ডান আবারও জানালেন, তাদের জলসীমায় পরমাণু-চালিত সাবমেরিনের প্রবেশ নিষেধ।

চুক্তিটি নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে চীন। তাদের মতে, ‘এই দেশগুলো ঠান্ডা যুদ্ধের মানসিকতা ও মতাদর্শগত গোঁড়ামি থেকে বের হতে পারেনি।’

এর আগে চীনকে মোকাবিলা করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও জাপানকে নিয়ে তৈরি হয় কোয়াড। এই গোষ্ঠীর বৈঠক অক্টোবরে ওয়াশিংটনে হবে।
0 Share Comment
Bakar
16 September 2021, 17:37

ইভ্যালির সিইও রাসেল, চেয়ারম্যান শামীমা গ্রেপ্তার

ইভ্যালির সিইও রাসেল, চেয়ারম্যান শামীমা গ্রেপ্তার


ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা নাসরিনকে (প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নিয়েছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুর থেকে রাসেলের মোহাম্মদপুরের নিলয় কমপ্রিহেনসিভ হোল্ডিংয়ের বাসায় (হাউজ ৫/৫এ, স্যার সৈয়দ রোড) অভিযান চালিয়ে বিকেলের দিকে তাদের হেফাজতে নেওয়া হয়।

তবে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে কি না, এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানায়নি র‍্যাব।

এর আগে রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা নাসরিনের (প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান) বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে গুলশান থানায় মামলা হয়েছে।

গুলশান থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক অনিন্দ তালুকদার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আরিফ বাকের নামে ইভ্যালির এক গ্রাহক মামলাটি দায়ের করেছেন। মামলার নম্বর- ১৯।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, আরিফ বাকের গত ২৯ মে থেকে জুন মাস পর্যন্ত মোটরসাইকেলসহ বেশ কয়েকটি পণ্য অর্ডার করেন। এগুলো ৭ থেকে ৪৫ কার্যদিবসের মধ্যে দেওয়ার কথা থাকলেও তারা দেয়নি। কাস্টমার কেয়ারে ফোন দিয়ে সমাধান পাওয়া যায়নি। অফিসে গিয়ে তাদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বললে খারাপ ব্যবহার করেছে। সিইও রাসেলের সঙ্গেও দেখা করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন তিনি। তার সঙ্গে ইভ্যালি চরম দুর্ব্যবহার করেছে।

মামলার বাদী আরিফ বাকের বলেন, দুপুর ১২টা ২৫ মিনিটে থানা থেকে জানানো হয় আমার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মামলাটি হয়েছে। তবে মামলার কপি আমি এখনও হাতে পাইনি। আর মামলাটি ঠিক কখন হয়েছে এ বিষয়ে পুলিশ আমাকে বিস্তারিত কিছু জানায়নি।

এদিকে গত মঙ্গলবার ইভ্যালির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করার সিদ্ধান্ত নেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নেতৃত্বাধীন আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটি। এদিন সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ডব্লিউটিও সেলের মহাপরিচালক মো. হাফিজুর রহমান।

তিনি বলেন, যেহেতু আইন লঙ্ঘন হয়েছে, তাই বাণিজ্য মন্ত্রণালয় দায়িত্ব না নিয়ে তা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে দেবে। তার আগে কমিটির সুপারিশ বাণিজ্যমন্ত্রী ও বাণিজ্য সচিবকে জানানো হবে।

হাফিজুর রহমান আরও বলেন, ১০টি ই–কমার্স প্রতিষ্ঠানের তথ্য বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে চাওয়া হয়েছিল। একটি পাওয়া গেছে। বাকিগুলোর তথ্যও আসবে। বৈঠকে ধামাকা, ই–অরেঞ্জ ইত্যাদির কর্মকাণ্ড নিয়েও আলোচনা হয়েছে।

এর আগে, গত ২৫ আগস্ট ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও চেয়ারম্যানের সব ব্যাংক অ্যাকাউন্টের হিসাব চেয়েছিল বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)। চিঠিতে ইভ্যালি প্রতিষ্ঠান, চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন ও এমডি মোহাম্মদ রাসেলের ব্যাংক হিসাবের তথ্য পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে পাঠাতে বলা হয়েছিল। গত বছরের আগস্টে বিএফআইইউ নাসরিন ও রাসেলের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করে দেয়।
0 Share Comment
Deshi Group
16 September 2021, 11:29

সারাদেশে বৃষ্টি বাড়তে পারে

সারাদেশে বৃষ্টি বাড়তে পারে
মৌসুমী বায়ু সক্রিয় থাকায় সারাদেশে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়তে পারে বলে পূর্বাভাস জানিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায়, ঢাকা ও বরিশাল বিভাগের কিছু জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও খুলনা বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হতে পারে। সেই সাথে চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

বৃহস্পতিবার দেশের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে বলেও আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ এ কে এম রুহুল কুদ্দুছ বলেন, ভারতের ছত্রিশগড় ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি আরও পশ্চিম-উত্তর পশ্চিম দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। বর্তমানে এটি সুস্পষ্ট লঘুচাপ আকারে মধ্যপ্রদেশ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আরও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে ক্রমান্বয়ে দুর্বল হয়ে যেতে পারে। মৌসুমী বায়ুর অক্ষের বর্ধিতাংশ রাজস্থান, উত্তর প্রদেশ, সুস্পষ্ট লঘুচাপের কেন্দ্রস্থল, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ, বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে উত্তরপূর্ব দিকে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উপর মোটামুটি সক্রিয় ও উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৭২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে।

বুধবার তেঁতুলিয়ায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৪ দশমিক ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয় গোপালগঞ্জ ও পটুয়াখালীর খেপুপাড়ায়।


বুধবার ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৫ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৬ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়।
0 Share Comment
Deshi Group
16 September 2021, 11:27

টিভিতে আজকের খেলা সূচি

টিভিতে আজকের খেলা সূচি
* ফুটবল

উয়েফা ইউরোপা লিগ

দিনামো জাগরেব ও ওয়েস্ট হাম

সরাসরি, সনি টেন-২, রাত ১০টা ৪৫

লেস্টার সিটি ও নাপোলি

রেঞ্জার্স ও লিঁও

সনি টেন-২, সনি টেন-১, সরাসরি, রাত ১টা

উয়েফা কনফারেন্স লিগ

রেঁন ও টটেনহাম

রোমা ও সিএসকেএ সোফিয়া

সরাসরি, সনি টেন-১, রাত ১০টা ৪৫ ও ১টা
0 Share Comment
Deshi Group
16 September 2021, 11:26

আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানে চাকরি

আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানে চাকরি
জাতিসংঘের খাদ্য সহায়তাসংক্রান্ত প্রতিষ্ঠান বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিতে (ডব্লিউএফপি) জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। কক্সবাজারে চলমান প্রকল্প স্কুল ফিডিং কার্যক্রমে 'সিনিয়র প্রোগ্রাম অ্যাসোসিয়েট' পদে জনবল নেবে প্রতিষ্ঠানটি। আগ্রহীরা আবেদন করতে পারবেন অনলাইনে।


পদের নাম: সিনিয়র প্রোগ্রাম অ্যাসোসিয়েট

যোগ্যতা: যে কোনো স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান থেকে ইংরেজি, সোশ্যাল সায়েন্স বা সমমান অন্যান্য বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে। সংশ্লিষ্ট কাজে ছয় বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। বাংলায় ও ইংরেজি ভাষা লেখা এবং বলায় সাবলীল হতে হবে। কম্পিউটার ব্যবহার ও প্রশিক্ষণ প্রদানে সক্ষমতা থাকতে হবে।

কর্মস্থল: কক্সবাজার

বেতন: ৯৬০৮৯/-

চাকরির ধরন: পূর্ণকালীন

বয়স: অনির্ধারিত

এতে নারী-পুরুষ উভয়েই আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের প্রক্রিয়া: আগ্রহী প্রার্থীরা এই ওয়েবসাইট থেকে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন, https://career5.successfactors.eu/sfcareer/jobreqcareer?jobId=148930&company=C0000168410P

আবেদনের শেষ তারিখ: আগ্রহীরা আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।
Career Opportunities: Programme Assistant (School Feeding) SC5,Cox's Bazar (148930)
https://career5.successfactors.eu/sfcareer/jobreqcareer?jobId=148930&company=C0000168410P
0 Share Comment
Deshi Group
16 September 2021, 11:23

পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘ রাস্তা!

পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘ রাস্তা!
ইউরোপ, আফ্রিকা আর এশিয়ার মধ্য দিয়ে তৈরি হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ রাস্তা।


২২ হাজার ৩৮৭ কিলোমিটার লম্বা এই রাস্তা ধরে হেঁটে দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউন থেকে রাশিয়ার মাগাদানে আসা যাবে।

প্রতিদিন ৮ ঘণ্টা করে হাঁটলে ৫৮৭ দিন লাগবে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে রাশিয়ায় পৌঁছাতে। আর ১৯৪ দিন হাঁটা লাগবে যদি কোনো বিরতি ছাড়া হাঁটা যায়। যাত্রাপথে পড়বে ১৭টি দেশ।

এটিই পৃথিবীর সবচেয়ে বড় হেঁটে চলার রাস্তা হিসাবে স্বীকৃতি পেয়েছে। এক্সপ্লোরার ওয়েব।
0 Share Comment
Deshi Group
16 September 2021, 11:22

ইসলামে সন্তান পালক নেওয়ার নিয়ম কী?

ইসলামে সন্তান পালক নেওয়ার নিয়ম কী? ছবি: বিবিসি
প্রশ্ন: ইসলামে সন্তান পালক নেওয়ার নিয়ম কী?


উত্তর: ইসলামের বিধান অনুযায়ী প্রতিটি শিশুই তার আপন বাবা-মায়ের পরিচয়ে বড় হবে। সন্তানের আইডেন্টিটি বদলানোর মাধ্যমে প্রচলিত যে পালক পিতামাতার রেওয়াজ চালু হয়েছে তা ইসলাম সমর্থিত নয়।

পালক ছেলে/মেয়ে প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার পরে তার পালক পিতা মাতার জন্য অন্য দশজন মানুষের মতোই গাইরে মাহরাম সাব্যস্ত হবে। (যদি সন্তানটিকে গাইরে মাহরামের থেকে পালক নেওয়া হয়ে থাকে)

তবে ইসলাম আমাদের অসহায় শিশু ও পরিবারগুলোর পাশে দাঁড়াতে সর্বোচ্চ উদ্বুদ্ধ করে। তাই যদি বাচ্চার মূল পরিচয় না বদলে (যদি বাবা-মা মারা গিয়ে থাকে বা ত্যাগ করে থাকে) অথবা বাচ্চার বাবা-মাকে সন্তানের সংস্পর্শ থেকে বঞ্চিত না করে (যদি বাবা-মা জীবিত থাকে) কোন অনাত্মীয় বাচ্চাকে কাছে রাখতে পারেন, তা হলে এতে আপত্তির কিছু নেই।

এটা সাধুবাদ পাওয়ার উপযুক্ত। তবে প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার পর তার সঙ্গে পর্দা করতে হবে।

সূত্র: সুরা আহযাবের তাফসীর
0 Share Comment
Deshi Group
16 September 2021, 11:16

জীবনের উপযোগী নতুন গ্রহের সন্ধান

জীবনের উপযোগী নতুন গ্রহের সন্ধান
সৌরজগতের বাইরে নতুন কিছু গ্রহের সন্ধান পেয়েছেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা যেখানে জীবনের উপযোগী পরিবেশ থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।


যুক্তরাজ্যের কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা খুব সম্প্রতি পৃথিবী থেকে বহু আলোক-বর্ষ দূরে এসব গ্রহের খোঁজ পেয়েছেন।

সদ্য আবিষ্কৃত এসব গ্রহকে বলা হচ্ছে ‘হাইসিয়ান এক্সোপ্ল্যানেট’।

হাইসিয়ান কথাটি এসেছে হাইগ্রোজেন এবং ওশান শব্দ দুটির সংমিশ্রণে। অর্থাৎ এসব গ্রহে হাইড্রোজেন ও সমুদ্র আছে।

বিবিসি।
0 Share Comment
$
$