অনলাইন শপিং,ফ্রিল্যান্সিং ও অন্যান্য কাজ করার জন্য এই ওয়েবসাইটে একটি একাউন্ট থাকতে হবে। একাউন্ট খোলা মানেই টাকা দিতে হবে এমন না। ফ্রিল্যান্সার অথবা বায়ার, এর যে কোন একটি চয়েজ করে একাউন্ট তৈরি করতে হবে।অথবা শপিং সেকশনের যে কোন প্রোডাক্টের এ্যাড টু কার্ট বাটনে ক্লিক করেও আপনি একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।সাইনআপ করুন এবং কাজ পোষ্ট করুন। ফ্রিল্যান্সারগণ কাজ খুজুন ও বিড করুন।একাউন্ট তৈরি হলে আপনি আপনার দেয়া ইউজার আইডি ও পাসওর্য়াড ব্যবহার করে সাইটে লগইন করতে পারবেন। You must have an account on this website for online shopping, freelancing and other activities. Opening an account does not mean that you have to pay. Freelancer or buyer, you have to create an account by choosing one of them. Or you can create an account by clicking on the add to cart button of any product in the shopping section.Sign up and post work. Freelancers find work and bid. Once the account is created, you can login to the site using your given user ID and password.

We have 84 guests and no members online

All Posts

4771 posts found

fatima
07 December 2021, 18:58

মোবাইল রিচার্জে বিশেষ অফার ঘোষণা করেছে মোবাইল আর্থিক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশ। বিকাশ অ্যাপ থেকে ২০ টাকা মোবাইল রিচার্জ করলে পাওয়া যাচ্ছে ২১ টাকা ক্যাশব্যাক।
বিকাশ জানিয়েছে, যেকোন নাম্বারে মোবাইল রিচার্জ করলে এই ক্যাশব্যাক পাওয়া যাবে। অফার চলাকালীন গ্রাহকরা একবার কাশব্যাক পাবেন।
ক্যাশব্যাক হিসেবে ২১ টাকা মোবাইল রিচার্জ করার সাথে সাথেই বিকাশ অ্যাকাউন্টে পৌঁছে যাবে। ১ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া এই অফার পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত চলবে।
গত অক্টোবরে ক্যাশ আউট চার্জ কমায় বিকাশ। ১৪ টাকা ৯০ পয়সা খরচে একটি প্রিয় এজেন্ট নম্বরে ক্যাশ আউট করার সুবিধা চালু করে প্রতিষ্ঠানটি। বিকাশের এই চার্জের মধ্যে ভ্যাটসহ সব খরচ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। গ্রাহককে ক্যাশ আউটের জন্য বাড়তি কোনো টাকা খরচ করতে হচ্ছে না।
বিকাশ জানিয়েছে, সারাদেশে বিকাশের সাড়ে পাঁচ কোটি গ্রাহক রয়েছে। ৯৫ শতাংশ গ্রাহকই মাসে ২৫ হাজার টাকার মধ্যে ক্যাশ আউট করে থাকেন।
এদিকে দেশের আর্থিক প্রযুক্তি (ফিনটেক) খাতে উদ্ভাবনী সেবায় অবদান রাখার জন্য সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম আয়োজিত প্রথম ‘বাংলাদেশ ফিনটেক অ্যাওয়ার্ড-২০২১’-এ ৫ ক্যাটাগরিতে ৪টিতে বিজয়ী ও ৩টিতে ‘অনারেবল মেনশন’ পুরস্কার জিতেছে বিকাশ।
ফিনটেক খাতের টেকনোলজি ক্যাটাগরিতে ‘বিকাশ ম্যাপ’, রেমিটেন্স সেবা ক্যাটাগরিতে বিকাশের ‘রেমিটেন্স সেবা’, পেমেন্ট ক্যাটাগরিতে বিকাশের ‘পে বিল’ সেবা ও মোবাইল মানিতে বিকাশের ‘অ্যাড মানি’ সেবা বছরের সেরা উদ্ভাবনের স্বীকৃতি পেয়েছে। পাশাপাশি পেমেন্ট ডিজিটাইজেশন, ডোনেশন সেবা ও আর্থিক অন্তর্ভুক্তিতে অবদান রাখায় ‘অনারেবল মেনশন’ পেয়েছে বিকাশ।

0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:50

সেন্টমার্টিনে পুনরায় জাহাজ চলাচল শুরু

সেন্টমার্টিনে পুনরায় জাহাজ চলাচল শুরু
কক্সবাজারের সেন্টমার্টিনে নৌপথে পুনরায় পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাব কেটে যাওয়ায় মঙ্গলবার দুপুর ১টায় টেকনাফ থেকে চারটি পর্যটকবাহী জাহাজে ৭শ’ পর্যটক সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) টেকনাফ অঞ্চলের ট্রাফিক সুপার ভাইজার জহির উদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাব কেটে যাওয়ায় ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলা হয়েছে। তাই মঙ্গলবার দুপুরে টেকনাফ থেকে পর্যটকবাহী চারটি জাহাজ দ্বীপে গেছে। জাহাজগুলো ফেরার সময় দ্বীপে আটকে পড়া পর্যটকদের নিয়ে আসবে।’

এর আগে, ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাবের কারণে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথের পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধের এ সিদ্ধান্ত নিয়েছিল উপজেলা প্রশাসন। দুই দিন বন্ধ থাকার পর জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে আবার।

এ বিষয়ে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পারভেজ চৌধুরী বলেন, ‘বৈরী আবহাওয়া কেটে যাওয়ায় এ রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে। এখন দ্বীপে আটকে পড়া পর্যটকরা ফিরতে পারবেন।’
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:50

৫ বিশিষ্ট নারী পাচ্ছেন ‘বেগম রোকেয়া পদক ২০২১’

৫ বিশিষ্ট নারী পাচ্ছেন ‘বেগম রোকেয়া পদক ২০২১’
৯ ডিসেম্বর বেগম রোকেয়া দিবস। এ উপলক্ষে ‘বেগম রোকেয়া পদক ২০২১’ পাচ্ছেন পাঁচ বিশিষ্ট নারী।

৯ ডিসেম্বর বেগম রোকেয়ার জন্মদিন। ১৯৩২ সালের এই দিনেই মারা যান তিনি। দিনটি রোকেয়া দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। দিবসটি উপলক্ষে এ বছর যারা পদক পাচ্ছেন তারা হলেন- নারী শিক্ষায় অবদানের জন্য কুমিল্লা জেলার প্রফেসর হাসিনা জাকারিয়া বেলা, নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় যশোরের অর্চনা বিশ্বাস, নারীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কুমিল্লার শামসুন্নাহার রহমান পরাণ (মরোণোত্তর)।



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ও রোকেয়া হলের প্রভোস্ট ড. জিনাত হুদা সাহিত্য ও সংস্কৃতির মাধ্যমে নারী জাগরণের ক্ষেত্রে অবদান রাখায় এ বছর পদক পাচ্ছেন। তার নিজ জেলা মুন্সিগঞ্জ। পল্লী উন্নয়নে অবদান রাখায় পদক পাচ্ছেন কুষ্টিয়ার গবেষক ড. সারিয়া সুলতানা।



ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরার হাত থেকে সম্মাননা পদক গ্রহণ করবেন তারা। প্রত্যেককে চার লাখ টাকার চেক, রেপ্লিকাসহ একটি ১৮ ক্যারেট মানের ২৫ গ্রাম ওজনের স্বর্ণ পদক ও সম্মাননাপত্র প্রদান করা হবে।

ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে এ পদক প্রদান এবং দিবসটি উদযাপনে ব্যাপক কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৯ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় গণভবন থেকে অনলাইনে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত হবেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দেবেন। পদক প্রদান অনুষ্ঠানটি বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতার, অন্যান্য টেলিভশন ও সোশ্যাল মিডিয়ায় সরাসরি সম্প্রচার করা হবে। দিবসটি উপলক্ষে বিশেষ ক্রোড়পত্র, পোস্টার, বুকলেট ও স্যুভেনির প্রকাশ করা হবে। যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে দেশব্যাপী জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:45

সুইজারল্যান্ডে আত্মহত্যার যন্ত্রের অনুমোদন, এক মিনিটেরও কম সময়ে যন্ত্রণাহীন মৃত্যু

সুইজারল্যান্ডে আত্মহত্যার যন্ত্রের অনুমোদন, এক মিনিটেরও কম সময়ে যন্ত্রণাহীন মৃত্যু
ব্যথা, যন্ত্রণাবিহীন সহজ মৃত্যু। সময় লাগবে এক মিনিটেরও কম। এমনই এক যন্ত্রের আইনি বৈধতা দিল সুইজারল্যান্ড। কফিন আকৃতির ওই যন্ত্রে কৃত্রিম উপায়ে অক্সিজেনের পরিমাণ কমিয়ে আর কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বাড়িয়ে এক মিনিটেরও কম সময়ের মধ্যে বেদনাহীন মৃত্যু ডেকে আনা হয়। যন্ত্রের নাম দেওয়া হয়েছে ‘সারকো’।

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘এগজিট ইন্টারন্যাশনাল’ এই যন্ত্রটি তৈরি করেছে। ‘ডক্টর ডেথ’ হিসেবেও পরিচিত ওই প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার ফিলিপ নিটশে ছিলেন এই যন্ত্রের উদ্ভাবনের নেপথ্যে। কীভাবে কাজ করবে যন্ত্রটি? প্রতিষ্ঠানটির দাবি, বাইরে থেকে যন্ত্র নিয়ন্ত্রণ করার পাশাপাশি ভেতর থেকেও তা চালু করা যাবে।

অর্থাৎ মৃত্যুর প্রত্যাশায় যে ব্যক্তি ওই যন্ত্রের ভিতর ঢুকবেন, তিনি নিজেও যন্ত্রটি চালাতে পারবেন। এখানেই রয়েছে মূল সমস্যা।

মরণেচ্ছু ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে সাধারণত দেখা যায়, এই পরিস্থিতিতে তাঁরা অচেতন হয়ে পড়েন। পেশিশক্তি ব্যবহার করে কোনও কাজ করার মতো পরিস্থিতি তাঁদের বেশির ভাগের থাকে না। এই যন্ত্রে তারও সমাধান করা গিয়েছে বলে দাবি প্রতিষ্ঠানটির।

‘এগজিট ইন্টারন্যাশনাল’-এর দাবি, ওই পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে শুধুমাত্র চোখের পাতার নড়াচাড়া আঁচ করেই যন্ত্র সঙ্কেত গ্রহণ করতে পারবে। এমনই দাবি ব্রিটেনের একটি দৈনিক সংবাদপত্রের।

সংস্থা জানিয়েছে, আপনার যেখানে প্রয়োজন সেখানেই নিয়ে যাওয়া যাবে সারকোকে। মূল মেশিন থেকে সারকোকে আলাদা করলে তা দেখতে হবে অনেকটা কফিনের মতো। সেই কফিনে এক বার শুয়ে পড়লেই সব শেষ!

বিশেষ ক্ষেত্রে সুইজারল্যান্ডে আত্মহত্যায় সহায়তা প্রদান করা আইনি ভাবে বৈধ। সূত্রের খবর, গত বছর অন্তত ১,৩০০ মানুষ এই প্রক্রিয়ার সাহায্য নিয়েছেন। সংস্থার দাবি, এ বার আইনি বৈধতা পেল আত্মহত্যা করার যন্ত্র ‘সারকো’।

‘ডক্টর ডেথ’ হিসেবে খ্যাত চিকিৎসক ফিলিপ নিটশে বলছেন, ‘আগামী বছরের মধ্যে সারকো ব্যবহারের উপযোগী হয়ে যাবে সুইৎজারল্যান্ডে। এখনও পর্যন্ত এই প্রকল্পে বহু অর্থব্যয় হয়েছে। কিন্তু আমাদের আশা, আমরা প্রয়োগের খুব কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছি’।

তবে যন্ত্র নিয়ে সমালোচনাও কম হচ্ছে না। অনেকে বলছেন যে, এই যন্ত্রটি আসলে গ্যাস চেম্বারকে মহিমান্বিত করার চেষ্টা ছাড়া আর কিছুই নয়। অনেকের মতে, এই যন্ত্রের মাধ্যমে প্রকৃতপক্ষে আত্মহত্যাকে সব ক্ষেত্রে মান্যতা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।

সূত্রের খবর, এখনও পর্যন্ত দু’টি এমন সারকো যন্ত্র তৈরি হয়ে রয়েছে। কিন্তু ভবিষ্যৎ চাহিদার কথা মাথায় রেখে আরও একটি যন্ত্রের থ্রি-ডি প্রিন্টিং শুরু করেছে এগজিট ইন্টারন্যাশনাল। আগামী বছর থেকে সুইজারল্যান্ডে এই পরিষেবা দেওয়া শুরু করাই লক্ষ্য সংস্থার। যদিও তাতে বিতর্কের ঢেউ থামছে না।
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:41

মাস সেরার দৌড়ে নাহিদা

মাস সেরার দৌড়ে নাহিদা
প্রথমবারের মতো আইসিসির মাস সেরার খেতাব জয়ের দৌঁড়ে নাম লেখালেন বাংলাদেশের নারী ক্রিকেট দলের সদস্য নাহিদা আক্তার। সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হতে ভোটাভুটিতে বাঁহাতি স্পিনারকে হারাতে হবে পাকিস্তানের বোলার আনাম আমিন ও ওয়েস্ট উন্ডিজের ব্যাটার হেলি ম্যাথিউস।

নভেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে দারুণ বোলিং করেছেন বাঁহাতি স্পিনার নাহিদা। তিন ম্যাচের সিরিজে ৪.৮১ গড়ে ১১ উইকেট নিয়েছেন তিনি। জিম্বাবুয়েতে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ক্যারিয়ার সেরা পাচঁ উইকেট নেওয়ার পাশাপাশি হয়েছেন সিরিজের সেরা বোলার। সে ম্যাচে বাংলাদেশ ৭২ রানের বড় জয় পায়। এছাড়াও আইসিসি মহিলা বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে পাকিস্তানে বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয়ে ভূমিকা ছিল তার। ২৫ রানে খরচায় নিয়েছেন দুই উইকেট।



মাস সেরার তালিকায় ছেলেদের বিভাগে মনোনয়ন পাওয়া ক্রিকেটাররা হলেন পাকিস্তানের ব্যাটার আবিদ আলী, নিউজিল্যান্ডের বোলার টিম সাউদি ও অস্টোলিয়ার ব্যাটার ডেভিড ওয়ার্নার।

আইসিসির ভোটিং একাডেমি ও ক্রিকেট সমর্থকদের যৌথ ভোটে নির্বাচন করা হয় মাসের সেরা (ছেলে ও মেয়ে) দুই ক্রিকেটার। ভোটিং প্যানেলে থাকেন ক্রীড়া সাংবাদিক, সাবেক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকাররা। আইসিসির ওয়েবসাইটে গিয়ে সমর্থকদের ভোট দেওয়ার সুযোগ রয়েছে।
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:37

মাহির নতুন বার্তা

মাহির নতুন বার্তা
ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি পূর্বঘোষণা অনুযায়ী গেল ২৪ নভেম্বর ওমরার উদ্দেশে স্বামী রাকিবকে নিয়ে সৌদি আরব যান ।

যাওয়ার আগে এয়ারপোর্টে তোলা কিছু ছবি ফেসবুকে পোস্ট করে মাহি লিখেছেন- ‘আলহামদুলিল্লাহ, জীবনে প্রথমবার ওমরাহ করতে যাচ্ছি। এই অনুভূতি প্রকাশের ঊর্ধ্বে। রাকিব সরকার তোমার জন্য অন্তর থেকে অনেক অনেক দোয়া। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’

এরপর ৩০ নভেম্বর নতুন কিছু ছবি পোস্ট করেন মাহি।ছবির ক্যাপশনে লিখেন, ‘আপনার আত্মা সন্তুষ্ট করুন, সমাজ নয়।’

আরও পড়ুন...সেই রাতের মাহি-প্রতিমন্ত্রীর ঘটনায় মুখ খুললেন ইমন
এদিকে চলমান গুঞ্জন, ওমরার পর সিনেমায় অভিনয় করা ছেড়ে দেবেন মাহি। এদিকে মাহির হাতে তিনটি সিনেমা রয়েছে। পরিচালকরা আশাবাদী, ওমরা শেষে দেশে ফিরে শুটিংয়ে যোগ দেবেন মাহি।



মাহির ঘনিষ্ঠজনরা জানিয়েছেন, ওমরাহ করার পর চলচ্চিত্র ছেড়ে দেবেন এই অভিনেত্রী। কাছের জনদের এমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন মাহি। কিন্তু শোনা যাচ্ছে, মাহির হাতে যেসব সিনেমা আছে সেগুলোর কাজ শেষ করেই চলচ্চিত্রকে বিদায় জানাবেন তিনি। মাহির চলচ্চিত্র ছাড়ার গুঞ্জনে ভক্তরা কষ্ট পেলেও তার ওমরাহ করার বিষয়কে ইতিবাচকভাবে দেখছেন অনেক দর্শক। তারা মাহির প্রশংসা করেছেন।

বর্তমানে মাহির হাতে রয়েছে, ‘নরসুন্দরী’, ‘মাফিয়া’, ‘অহংকারী বউ’, ‘গ্যাংস্টার’সহ বেশ কিছু সিনেমা।

সম্প্রতি নতুন করে ঘর বেঁধেছেন মাহিয়া মাহি। তার স্বামীর নাম রাকিব সরকার। তিনি ব্যবসায়ী ও গাজীপুরে এক রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান। তিনি নিজেও রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। এটি মাহির তৃতীয় বিয়ে হলেও রাকিবের দ্বিতীয় বিয়ে। রাকিবের আগের ঘরে এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

এর আগে সিলেটের ব্যবসায়ী পারভেজ মাহমুদ অপুকে ২০১৬ সালে ভালোবেসে বিয়ে করেন মাহিয়া মাহি। বিয়ের এক বছর না যেতেই তাদের মধ্যে বিচ্ছেদের কথা শোনা যাচ্ছিল। অবশেষে সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে গেল মে মাসে অপুর সঙ্গে বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন মাহি। তারপরই রাকিবের সঙ্গে ঘর বাঁধেন এই অভিনেত্রী।
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:31

নিপা ভাইরাস: রসেও যেতে পারে জীবন

নিপা ভাইরাস: রসেও যেতে পারে জীবন
করোনাসৃষ্ট মহামারি থেকে মুক্তি পেতে লড়াই করছি আমরা। এ দিকে পরবর্তী মহামারি নিপা ভাইরাস’-এর কারণে হতে পারে বলে আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের। নিপা ভাইরাসে অসুস্থ চার জনের মধ্যে তিন জনের মৃত্যু ঝুঁকি থাকে। অর্থাৎ এই ভাইরাসে মৃত্যুর হার ৭৫ শতাংশ পর্যন্ত হতে পারে। ফলে নিপা ভাইরাস সম্পর্কে আমাদের সচেতন হতে হবে। জানতে হবে এই ভাইরাসের রহস্য। নিপা ভাইরাস হলো এক ধরনের আরএনএ ভাইরাস, যা প্যারামিক্সোভিরিডি পরিবারের হেনিপাহ ভাইরাসের অর্ন্তগত। এই ভাইরাস প্রাণী থেকে প্রথমে মানুষের মধ্যে ছড়ায়, তারপর আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে এলে আরেকজন আক্রান্ত হতে পারে। অর্থাৎ এই ভাইরাসের সংক্রমণের ধরন কিছুটা করোনা ভাইরাসের মতো।
#কীভাবে ছড়ায়: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, সাধারণত বাদুড় বা শূকরের মাধ্যমে ভাইরাসটি মানবদেহে ছড়িয়ে পড়ে। যেমন বাদুড়ের লালা, মূত্রের সংস্পর্শে আসা কোনো ফল যদি কেউ খায়, তখন নিপা ভাইরাস তার দেহে প্রবেশ করতে পারে। বিশেষজ্ঞদের মতে, খেজুর, পেয়ারা, আম বা লিচুর মতো ফল থেকে সংক্রমণ বেশি হতে পারে। কারণ, এই ফলগুলো বাদুড়ের প্রস্রাব বা লালার মাধ্যমে দূষিত হয়।
#খেজুরের রসে ঝুঁকি বেশি: শীতকালে কাঁচা খেজুরের রসে নিপা ভাইরাস থাকার শঙ্কা প্রকাশ করেছেন একদল বিশেষজ্ঞ। খেজুরের রস সংগ্রহ করার জন্য গাছে যে হাঁড়ি বাধা হয়, ওই হাঁড়ি থেকে রাতে বাদুড় রস পান করে। ফলে খুব সহজেই বাদুড়ের লালা থেকে নিপাহ ভাইরাস হাঁড়ির রসে মিশে যেতে পারে। এমনকি বাদুড়ের প্রস্রাবের মাধ্যমেও ভাইরাসটি রসে মিশতে পারে। গবেষকরা বলছেন, নিপা ভাইরাস মিশ্রিত খেজুরের রস পান করলে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে মৃত্যু বা গুরুতর অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।
#উপসর্গ: এই ভাইরাস মানুষের মস্তিষ্কের প্রদাহ এবং শ্বাসতন্ত্রের রোগ সৃষ্টি করে। ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হলে যেসব উপসর্গ দেখা দিতে পারে: ইনফ্লুয়েঞ্জার মতো জ্বর, মাথাব্যথা, মাথা ঘোরা, মাংসপেশিতে ব্যথা, বমি, গলাব্যথা, শ্বাসকষ্ট, নিউমোনিয়া, অচেতন হয়ে পড়া ইত্যাদি। অনেকে খিঁচুনিতেও আক্রান্ত হন। উপসর্গগুলো ১০ থেকে ১২ দিন পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে, যার সম্ভাব্য পরিণতি মৃত্যু।
#নিপা ভাইরাস কি পরবর্তী মহামারির কারণ? অপটিক ফ্লাক্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিপা ভাইরাস নিয়ে বর্তমানে বিশেষজ্ঞরা উদ্বিগ্ন। ভাইরাসটি সংক্রমণে উচ্চ মৃত্যুহার এবং সা¤প্রতিক সময়ে এর প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ায় এটি পরবর্তী মহামারির কারণ হয়ে উঠতে পারে বলে আশঙ্কা করেছেন তারা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ইতোমধ্যে নিপা ভাইরাসকে একটি অগ্রাধিকার গবেষণা হিসেবে চিহ্নিত করেছে। কারণ এই সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করার মতো কোনো ওষুধ বা ভ্যাকসিন এখনো আবিষ্কৃত হয়নি। অর্থাৎ এর প্রতিকার নেই, প্রতিরোধই একমাত্র পথ।
#প্রতিরোধের উপায়: পাখি বা কোনো পশুর খাওয়া ফলমূল এবং গাছ থেকে সদ্য নামানো খেজুরের রস খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। যে কোনো ফল ভালো করে ধুয়ে খোসা ফেলে খেতে হবে। খেজুরের রস ফুটিয়ে নিলে নিপা ভাইরাস মরে যায়। আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে যাওয়া যাবে না। গেলে ভালোভাবে হাত ধুয়ে নিতে হবে। গাছের পরিচর্যা, ফল পাড়া বা খেজুরের রস আহরণের পর স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে।
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:29

চলতি আমন মৌসুমে ধান ও চালের দাম সহনীয় রাখতে বাজার মনিটরিং (তদারকি) জোরদারের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়ার জন্য সম্প্রতি খাদ্য মন্ত্রণালয় থেকে খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে। আমন মৌসুম চললেও ধান-চালের দাম কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী। সেই প্রেক্ষাপটে মন্ত্রণালয় এ নির্দেশনা দিলো। মন্ত্রণালয়ের চিঠিতে বলা হয়, বিগত বছরের ধারাবাহিকতায় এ বছরও আমন মৌসুমে ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে এবং বর্তমানে ধান কাটা চলছে। দেশে খাদ্যশস্যের কোনো সংকট নেই। কৃষকের উৎপাদিত ধানের ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করার পাশাপাশি ভোক্তা সাধারণের জন্য চালের বাজারমূল্য সহনীয় রাখা বাঞ্ছনীয়। এ পরিপ্রেক্ষিতে কোনো মজুতদার যাতে অতিরিক্ত ধান বা চাল মজুত করে বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করতে না পারে এবং দাম যাতে সাধারণ ভোক্তার অনুকূলে থাকে সেজন্য বাজার মনিটরিং জোরদার করা অত্যাবশ্যক।
এমতাবস্থায় যৌক্তিক মূল্যে ধান-চাল ক্রয়-বিক্রয় হচ্ছে কি না তা যথাযথভাবে মনিটরিং করার জন্য এবং সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়ার জন্য খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে অনুরোধ জানিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।
আমন সংগ্রহে অগ্রগতি পরিদর্শনে কর্মকর্তাদের দায়িত্ব: চলতি আমন মৌসুমে সরকার খোলা বাজার থেকে ২৭ টাকা কেজি দরে ৩ লাখ মেট্রিক টন ধান ও ৪০ টাকা কেজি দরে ৫ লাখ টন সিদ্ধ চাল কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গত ৩১ অক্টোবর খাদ্য পরিকল্পনা ও পরিধারণ কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। গত ৭ নভেম্বর থেকে আমন ধান ও চাল কেনা শুরু হয়েছে, চলবে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।
সারাদেশে আমন সংগ্রহ অগ্রগতি মাঠ পর্যায়ে পরিদর্শনের জন্য ৩৯ কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে পরিদর্শন কার্যক্রম তদারকির জন্য ৮ বিভাগে ৮ জন অতিরিক্ত সচিব দায়িত্ব পেয়েছেন। এ বিষয়ে গত ২ ডিসেম্বর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে।
চিঠিতে বলা হয়, ভ্রমণকালে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। বর্ডার এলাকার জেলা ভ্রমণের ক্ষেত্রে অধিকতর সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। সংগ্রহ কার্যক্রম পরিদর্শনের সময় গুদাম ব্যবস্থাপনা, সংরক্ষিত খাদ্যশস্যের মান, ‘খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্যের চলাচল সূচি প্রণয়ন নীতিমালা, ২০০৮’ অনুযায়ী পরিকল্পিত উপায়ে খামার গঠনপূর্বক গুদামের সর্বোচ্চ ধারণক্ষমতার ব্যবহারসহ মন্ত্রণালয় কর্তৃক সময়ে সময়ে জারিকৃত নির্দেশনা সঠিকভাবে পালিত হচ্ছে কি না তা পরিদর্শনপূর্বক যাচাই করতে হবে।
বেসরকারি পর্যায়ে মজুত পরিস্থিতি, ফুড গ্রেইন লাইসেন্স ছাড়া অবৈধভাবে এবং এসআরও-তে উল্লিখিত পরিমাণের বেশি কোনো আড়তদার, মিলার বা ফড়িয়া খাদ্যশস্য মজুত করছেন কি না সেটা বস্তুনিষ্ঠভাবে অনুসন্ধান করতে হবে। চুক্তিবদ্ধ মিলারদের দ্রুত খাদ্যশস্য সরবরাহের জন্য উৎসাহিত করতে হবে বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।
এতে আরও বলা হয়, দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা দায়িত্বপ্রাপ্ত জেলার উপজেলা মাঠপর্যায়ের কার্যক্রম সরেজমিনে পরিদর্শন করে জেলা ও উপজেলার আলাদা সুপারিশসহ প্রতিবেদন ভ্রমণ শেষ হওয়ার সাত কর্মদিবসের মধ্যে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটের‘পরিদর্শন প্রতিবেদন ব্যবস্থাপনা’ নামক লিংকে আবশ্যিকভাবে আপলোড করবেন। আপলোডে কোনো সমস্যার সম্মুখীন হলে আইসিটি শাখার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করা যেতে পারে। পরিদর্শনটি সংগ্রহ কার্যক্রম ত্বরান্বিত সম্পর্কিত বলে পরিদর্শনের পর দাখিল করা সুপারিশে গুদাম/ভবন সংস্কার ও মেরামত সম্পর্কিত সুপারিশ প্রদান করা যাবে না। আগামী ৩১ জানুয়ারির মধ্যে পরিদর্শন সম্পন্ন করতে হবে বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে। ধান সংগ্রহ কার্যক্রম ত্বরান্বিত করার জন্য সর্বাত্মক ব্যবস্থা নিতে হবে। এছাড়া খাদ্যমন্ত্রী বা সচিবের একান্ত সচিবরা মাঠপর্যায় পরিদর্শনের সময়ে যেকোনো উপজেলা, জেলা ও বিভাগ পরিদর্শন করতে পারবেন বললেও মন্ত্রণালয়ের চিঠিতে জানানো হয়েছে।

0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:25

নায়ক ইমনকে ডিবির জিজ্ঞাসাবাদ

নায়ক ইমনকে ডিবির জিজ্ঞাসাবাদ
চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি এবং তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের ফোনালাপ ফাঁস হওয়ার ঘটনায় নায়ক মামনুন হাসান ইমনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

সোমবার (0৬ ডিসেম্বর) রাতে রাজধানীর মিন্টু রোডে অবস্থিত গোয়েন্দা কার্যালয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়টি স্বীকার করেছেন ডিবির যুগ্ম কমিশনার হারুন অর রশিদ।

তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডাক্তার মুরাদ হাসান এবং নায়িকা মাহির ফোনালাপের সঙ্গে অভিনেতা ইমনের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। প্রতিমন্ত্রী যখন ফোন করেন তখন ফোন রিসিভ করেন ইমন। তারপর প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে ইমন এবং মাহির কথোপকথন হয়। এই কথোপকথন ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, মাহি এই মুহূর্তে ওমরার জন্য সৌদি আরবে অবস্থান করছেন। তাই প্রাথমিকভাবে তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। এ কারণে ইমনকে ডিবি কার্যালয়ে ডেকেছিলাম। উনি ফোনালাপের বিষয়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন। প্রায় আধা ঘণ্টা তার সঙ্গে ডিবি কর্মকর্তাদের কথা হয়। প্রাথমিকভাবে তার কোনো ইল মোটিভ (খারাপ উদ্দেশ্য) পাওয়া যায়নি। রাত সাড়ে ১০টার দিকে তিনি ডিবি কার্যালয়ে ত্যাগ করেন।

ডিবি কর্মকর্তা হারুন অর রশীদ বলেন, মাহিয়া মাহি দেশে ফিরলে বিষয়টি নিয়ে তাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। সরকার এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র সংবাদমাধ্যমকে জানায়, ইমন জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন, প্রতিমন্ত্রী ফোন করে ক্ষোভ প্রকাশ করছিলেন। তিনি তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি স্বাভাবিক পর্যায়ে নিয়ে আসার চেষ্টা করেছেন। মাহির সঙ্গে প্রতিমন্ত্রী যে ভাষায় কথা বলেছেন তাৎক্ষণিকভাবে তিনি বুঝতে পারেননি।

এদিকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মঙ্গলবারের (৭ ডিসেম্বর) মধ্যে প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদকে মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করতে বলেছেন।

উল্লেখ্য, ফাঁস হওয়া ওই ফোনালাপে তথ্য প্রতিমন্ত্রী মাহিকে ‘ধর্ষণের হুমকি’ দেওয়ার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহায়তায় তুলে আনার হুমকি দেন। তার বক্তব্যজুড়ে ছিল অশ্রাব্য অশালীন শব্দ।
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:22

করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকায় বাংলাদেশকে অন্তর্ভুক্ত করেছে ভারত। বাংলাদেশ ছাড়াও ইউরোপ ও আফ্রিকার কয়েকটি দেশ ভারতের এই তালিকায় ঠাঁই পেয়েছে বলে টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।
এতে বলা হয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্টের ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকা করেছে ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। দেশটির সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এই তালিকায় ঠাঁই পাওয়া দেশগুলো থেকে দর্শনার্থীদের ভারতে যাওয়ার পর সেখানে নিজ খরচে আরটি-পিসিআর পরীক্ষাসহ অন্যান্য ব্যবস্থা মেনে চলতে হবে।
দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সোমবার এই তালিকা হালনাগাদ করেছে। বাংলাদেশ ছাড়াও এই তালিকায় আছে ইউরোপ এবং যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ আফ্রিকা, ব্রাজিল, বতসোয়ানা, চীন, মৌরিশাস, নিউজিল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে, সিঙ্গাপুর, হংকং, ইসরায়েল।
ভারতের হালনাগাদ তথ্য অনুযায়ী, তালিকার ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলো থেকে আগত আন্তর্জাতিক যাত্রীদের সেখানে পৌঁছানোর পর নিজ খরচে করোনার আরটি-পিসিআর পরীক্ষা করাতে হবে। পরীক্ষায় নেগেটিভ হলে কোয়ারেন্টাইন এবং পজিটিভ হলে কঠোর আইসোলেশনের নিয়ম পালন করতে হবে।
দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলেছে, ভারতে পৌঁছানোর পর যাত্রীদের অবশ্যই নিজ খরচে কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য নমুনা জমা দিতে হবে। এরপর ভারত ছেড়ে যাওয়া অথবা অন্যান্য দেশের সঙ্গে সংযোগকারী বিমানের ফ্লাইট ধরার জন্য করোনা পরীক্ষার ফলাফল না পাওয়া পর্যন্ত বিমানবন্দরে অপেক্ষা করতে হবে।
টাইমস অব ইন্ডিয়া বলছে, পরীক্ষায় করোনা নেগেটিভ হলে আন্তর্জাতিক যাত্রীদের সাতদিনের হোম কোয়ারেন্টাইন পালন করতে হবে। ভারতে পৌঁছানোর অষ্টম দিনের মাথায় আবারও করোনা পরীক্ষা করাতে হবে। এই পরীক্ষায় নেগেটিভ ফল এলে পরবর্তী সাতদিন যাত্রীদের স্বেচ্ছা স্বাস্থ্য পর্যবেক্ষণে থাকতে হবে।
এই ধরনের যাত্রীরা পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ শনাক্ত হলে, সেটি ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট কি-না তা জানার জন্য তাদের নমুনা জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের জন্য পাঠানো হবে। এই সময় তাদের পৃথক আইসোলেশন স্থাপনায় রাখা হবে এবং স্টান্ডার্ড প্রোটোকল অনুযায়ী তাদের চিকিৎসা এবং কন্টাক্ট ট্রেসিং করবে কর্তৃপক্ষ।
করোনা পজিটিভ যাত্রীদের সংস্পর্শে আসা লোকজনকেও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন অথবা হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে। সে সময় রাজ্য সরকারের করোনা প্রোটোকল অনুযায়ী, করোনা পজিটিভ রোগীদের কঠোর কোয়ারেন্টাইন বিধি মেনে চলতে হবে।
আগের সব ভ্যারিয়েন্টের তুলনায় সম্ভাব্য অতি-সংক্রামক ওমিক্রন গত বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হয়। এরপর থেকে এই ভ্যারিয়েন্ট অস্ট্রেলিয়া, বেলজিয়াম, বতসোয়ানা, ব্রিটেন, কানাডা, ডেনমার্ক, ফ্রান্স, জার্মানি, হংকং, ইসরায়েল, ইতালি, নেদারল্যান্ডস এবং স্কটল্যান্ডে শনাক্ত হয়েছে।
ওমিক্রনকে ‘উদ্বেগজনক ভ্যারিয়েন্ট’ হিসেবে তালিকাভূক্ত করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বলেছে, ‘এই ভ্যারিয়েন্টের তীব্রতার মাত্রা বোঝার জন্য কয়েক দিন থেকে কয়েক সপ্তাহ পর্যন্ত লাগতে পারে।’
বিশ্বজুড়ে হইচই ফেলে দেওয়া করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে শনাক্ত হয়নি।

0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:21

ভারতসহ প্রতিবেশী অন্য দেশে যাতায়াত করতে কোনো ভিসা লাগবে না, এমন দিনের আশায় রয়েছেন বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।
সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী মিলনায়তনে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক প্রথম রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির ৫০ বছর পূর্তিতে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ভারতের সঙ্গে আমাদের যে রক্তের সম্পর্ক, তা আরও গভীরভাবে উদযাপন করতে চাই। আমি তো সেই দিনের আশায় আছি, যেদিন ভারতসহ প্রতিবেশী দেশে আনাগোনা করতে কোনো ভিসা লাগবে না। তারা যখন আমাদের সাহায্য করেন, তাদের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক গভীর। তাদের সঙ্গে আমাদের মাঝে কোনো বেরিয়ার থাকবে না।
বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ভারত-পাকিস্তানের লড়াই নয় বলে মন্তব্য করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এটা ইন্ডিয়া-পাকিস্তানের লড়াই নয়। এটি মুক্তিবাহিনী, মৈত্রীবাহিনী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার যুদ্ধ। এই যুদ্ধে ভারত সাহায্য করেছে স্বাধীন বাংলাদেশকে।
তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর উদযাপনের সঙ্গে সঙ্গে ভারতের সঙ্গেও ৫০ বছরের ডিপ্লোম্যাটিক বছর পূর্তি উদযাপন করছি। এর জন্য দেশবাসীকেও ধন্যবাদ দেই। যে দল এ দেশে স্বাধীনতা নিয়ে এসেছিল তাদের ভোট দিয়ে নির্বাচিত করে আমাদের এই উদযাপনগুলো করার সুযোগ দিয়েছে।
আব্দুল মোমেন বলেন, শুধু বাংলাদেশে উন্নয়ন প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যাশা না, তিনি এই এরিয়াগুলোর উন্নয়ন চান। মানুষের উন্নয়ন চান। ভারতের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক যেহেতু সলিড, সোনালী অধ্যায়ে পৌঁছে গেছে। আমাদের যে ছোটখাটো সমস্যাগুলো আছে, তা আলোচনার মধ্য দিয়ে সমাধান করা যাবে।
আলোচনা সভায় ফোরামের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক কামালউদ্দিন সঞ্চালনায় আরও উপস্থিত ছিলেন- ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী এবং ভূটানের রাষ্ট্রদূত রিনচেন কুইনসেল। সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আলম।
অনুষ্ঠানে ভুটান ও ভারতের ঐতিহাসিক স্বীকৃতি উপলক্ষে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ আনুষ্ঠানিকভাবে একটি স্মারক ডাকটিকিট অবমুক্ত করে।

0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:18

আয়না নিয়ে অদ্ভুত ধারণা

আয়না নিয়ে অদ্ভুত ধারণা
আয়না নিয়ে রূপকথার কি আর শেষ আছে! আরশিতে অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ দেখার কাহিনী তো সবারই জানা। হারানো বা গোপন স্থানে থাকা কোনো ব্যক্তি বা বস্তুর অবস্থানও নাকি নিখুঁতভাবে বলে দিতে পারে জাদুর দর্পণ।

কোথাও এ বস্তু সৌভাগ্যের প্রতীক, কোথাও তা আবার বয়ে আনে দুর্ভাগ্য। আয়না নিয়ে পৃথিবীর দেশে-দেশে গল্প-গাঁথা ও রহস্যের যেন আদি-অন্ত নেই।



সেরকম কিছু কাহিনী আজ এখানে তুলে ধরা হলো-

nagad
ভাগ্যের নিয়ন্ত্রক!

আয়না নিয়ে বহু কুসংস্কার রয়েছে। আয়না ভেঙে ফেললে সাত বছরের জন্য দু:খের দিন শুরু হয় বলেও মনে করতো অনেকে।



প্রাচীন রোমানরা মনে করতো মানুষের সাতটা করে জন্ম থাকে। আর কেউ যদি কোনো জন্মে একটা আয়না ভেঙে ফেলে তবে আয়নার ভাঙা টুকরোগুলোর ভেতরে সেই ব্যক্তির আত্মা আটকা পড়ে যায়। আবার পুনর্জন্ম না হওয়া পর্যন্ত সেই ব্যক্তির মুক্তি ঘটে না বলেই মনে করতো রোমানরা।

তবে, ভাঙা কাচের সকল টুকরো জড়ো করে যদি মাটির নিচে পুঁতে ফেলা যেতো বা খরস্রোতা নদীর বুকে ফেলে দেয়া যেতো তবে আর দুর্ভাগ্য থাকতো না বলেও মনে করা হতো।

তবে, আয়না ভেঙে ফেলাকে পাকিস্তানে দুর্ভাগ্য নয় বরং সৌভাগ্য বা ইতিবাচক ঘটনার ইঙ্গিত বলেই মনে করা হয়। অর্থাৎ আয়না ভেঙে গেলে কোনো একটা অশুভ শক্তি গৃহ ছেড়ে যাচ্ছে বা শুভ কিছুর সূচনা ঘটতে যাচ্ছে বলে মনে করা হয়।

ভাঙা আয়নাকে দুর্ভাগ্যের প্রতীক মনে করা হয়ভাঙা আয়নাকে দুর্ভাগ্যের প্রতীক মনে করা হয়

আর অভিনেতারা তো আয়না নিয়ে রীতিমতো কুসংস্কারে আক্রান্ত।

কোনো অভিনেতা যদি আয়নার সামনে নিজে সাজ-পোশাক পড়তে থাকে আর তার ঘাড়ের উপর দিয়ে যদি অন্য কেউ উঁকি দিয়ে দেখে তবে সেটিকে একটা খারাপ কিছু বা মন্দ ভাগ্যের ইঙ্গিত হিসেবে দেখা হয়।

তাছাড়া মঞ্চের উপর আয়না রাখার ক্ষেত্রেও নাট্যকর্মীদের একটা প্রবল অনীহা রয়েছে। একে তো বস্তুটা ভঙ্গুর। তার উপরে সেটি আবার বাতির সমস্ত আলো প্রতিফলন করে।

ভবিষ্যতের আভাস

প্রাচীন গ্রীসে ডাইনিরা আয়না ব্যবহার করতো। খ্রিষ্টের জন্মরে প্রায় তিনশ বছর আগের সেসব প্রাচীন গাঁথায় বলা আছে, ডাইনিরা নিজেদের দৈবাদেশ ও বাণীগুলো লিখে রাখতো আয়নার মাধ্যমে।

প্রাচীন রোমেও আয়নার প্রচলন ছিল। সেখানে ধর্মগুরুরা অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ বর্ণনা করার জন্যে দর্পণ ব্যাবহার করতেন।


অন্য ভুবনের সংযোগ সাঁকো

বর্তমানে আয়না তৈরিতে এলুমিনিয়ামের গুঁড়ো ব্যবহার করা হয়। কিন্তু প্রাচীন মিসরীয়রা ব্যবহার কতো তাম্র চূর্ণ।

তামার সাথে দেবী 'হাথোর' এর সম্পর্ক ছিল বলে ধারণা করতো মিসরীয়রা।

হাথোর ছিলেন সৌন্দর্য, প্রেম, কাম, সমৃদ্ধি ও জাদুর দেবী।

প্রাচীন অ্যাজটেকরা আয়না বানানোতে ব্যাবহার করতো অবসেডিয়ান যা মূলত কাচের মতন দেখতে একজাতীয় কালো আগ্নেয়শিলা।

অ্যাজটেকরা বিশ্বাস করতো তারা দেবতা 'তেজকেটলিপোকা'র সাথে সম্পৃক্ত।

রাত্রি, সময় ও বংশ পরিক্রমায় পাওয়া স্মৃতির দেবতা ছিলেন এই তেজকাটলিপোকা।

স্বর্গলোক থেকে এই মাটির পৃথিবীতে আসা-যাওয়ার ক্ষেত্রে শক্তিধর এই দেবতা আয়নাকে তার মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করতেন।

সুদূরের মিত্ররা

প্রাচীন চীনে চাঁদের স্বর্গীয় শক্তি ধরে রাখার জন্য আয়না ব্যবহারের চল ছিল।

কথিত আছে, চীনের এক সম্রাট জাদুকরী এক আয়না বসিয়েই নিজের সাফল্য পেয়েছিলেন।

আজ থেকে প্রায় দুই হাজার বছর আগে, ২৫ খ্রিষ্টাব্দে চীনের সম্রাট কিন শি হুয়াং দাবী করেছিলেন আয়নার দিকে তাকানো মানুষের মুখে তাকিয়ে তিনি তাদের আসল চিন্তা-ভাবনা ও মনের খবর পড়তে পারতেন।

জার্মানদের স্নো হোয়াইট রূপকথায় কথা বলা এক আয়নার কথা আছে যেই আয়না সবসময় সত্য কথা বলতো

জার্মানদের স্নো হোয়াইট রূপকথায় কথা বলা এক আয়নার কথা আছে। সেই আয়না সবসময় সত্য কথা বলতো।

জার্মানির বাভারিয়া অঞ্চলের লোর এলাকার জনগণ একসময় বিশ্বাস করতো যে, আয়না সর্বদা সত্য কথা বলে।


পর্দা টেনে দেওয়ার প্রথা

সেই ভিক্টোরিয়ান যুগের ব্রিটেনে বিশ্বাস করা হতো যে, মৃত ব্যক্তির শেষকৃত্য শুরু হবার সময় সেই বাড়িতে থাকা সকল আয়না পর্দা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে।

কারণ তখন মনে করা হতো যে, পর্দা দিয়ে আয়নাগুলো সব ঢেকে না দিলে মৃত ব্যক্তির আত্মাটা কোনো আয়নার ভেতরে ঢুকে আটকা পড়ে যেতে পারে।

আয়না 'আত্মার' প্রতিফলন ঘটা য় বলেও ধারণা করা হতো


প্রেতসাধনার উপাদান

আয়না নিয়ে 'ব্লাডি মেরি' নামের একটি খেলার কথা পুরোনো ডাকিনীবিদ্যা বিষয়ক লেখায় পাওয়া যায়।

কখনো খেলেছেন এই খেলা? এটি খুবই ভয়-ধরানো। বুকের পাটা না থাকলে এই খেলার নামটাও নেয়া ঠিক না।

কোনো এক গভীর অন্ধকার রাতে, হাতে একটা মোমবাতি নিয়ে আয়নার দিকে তাকিয়ে আপনি তিনবার বলবেন 'ব্লাডি মেরি।' নির্দিষ্ট কিছু আচারও পালন করবেন। তারপর চোখ বন্ধ করবেন।

যখন চোখ খুলবেন তখন বুঝবেন যে ঠিক আপনার পেছনেই দাঁড়িয়ে রয়েছেন ব্লাডি মেরি।

মনের এই ট্রিকটা বা ট্রিকের ধাক্কাটা নিতে পারলে, ব্লাডি মেরিকে দেখে চিৎকার দিয়ে আপনি হয়তো ওখানেই অজ্ঞান হয়ে যেতে পারেন।

বলা হয়ে থাকে, আয়না কখনো মিথ্যা কথা বলে না

তীক্ষ্ম স্মৃতি

প্রাচীন কিছু সংস্কৃতিতে বিশ্বাস করা হতো যে, আয়নার মধ্যে মানুষের আত্মা বা মানুষের ভেতরের প্রকৃত সত্ত্বার ছায়া পড়ে।

এ ধারণাটি হয়তো এই বিশ্বাস থেকে এসেছে যে, ভ্যাম্পায়ার বা মানুষরূপী রাক্ষসদের আত্মা নেই। আর তাই তাদের কোনো ছায়া পড়ে না।

অতএব, আপনি যখন আজকে আবার আয়নার নিজের দিকে তাকাবেন একটু ভালো করে খেয়াল করে দেখবেন তো, সেখানে কার ছায়া পড়েছে? যাকে দেখা যাচ্ছে, সে সত্যিকারের আপনিই তো?
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:17

৩০ ডিসেম্বর থেকে ৪৪তম বিসিএসের আবেদন শুরু

৩০ ডিসেম্বর থেকে ৪৪তম বিসিএসের আবেদন শুরু
প্রথম শ্রেণির সরকারি চাকরিতে ১৭১০টি পদে নিয়োগের জন্য আবেদন আহ্বান করে ৪৪তম বিসিএস-এর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) কমিশনের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ক্যাডার) নূর আহম্মদের স্বাক্ষর করা এক অফিস আদেশের মাধ্যমে এ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়।



বিজ্ঞপ্তিতে আগ্রহীদের আগামী ৩০ ডিসেম্বর থেকে ৩১ জানুয়ারির মধ্যে অনলাইনে আবেদনপত্র জমা দিতে বলা হয়েছে।

nagad
বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, ৪৪তম বিসিএস-এ সবচেয়ে বেশি নিয়োগ দেওয়া হবে শিক্ষা ক্যাডারে। এই ক্যাডারে ৭৭৬ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে।

এছাড়া প্রশাসন ক্যাডারে ২৫০ জন নেওয়া হবে। এর মধ্যে পুলিশে ৫০ জন, পররাষ্ট্রে ১০ জন, আনসারে ১৪ জন, অর্থ মন্ত্রণালয়ে সহকারী মহাহিসাবরক্ষক (নিরীক্ষা ও হিসাব) ৩০ জন, সহকারী কর কমিশনার (কর) ১১ জন, সহকারী নিবন্ধক (সমবায়) আটজন ও সহকারী সুপারিনটেনডেন্ট/ট্রাফিক (রেলওয়ে) নিবন্ধক হিসেবে সাতজনকে নেওয়া হবে।



তথ্য মন্ত্রণালয়ে সহকারী পরিচালক বা তথ্য কর্মকর্তা বা গবেষণা কর্মকর্তা একজন, সহকারী পরিচালক (অনুষ্ঠান) সাতজন, সহকারী বার্তা নিয়ন্ত্রক দুইজন, সহকারী পোস্টমাস্টার ২৩ জন, সহকারী নিয়ন্ত্রক (বাণিজ্য) ছয়জন, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (পরিবার পরিকল্পনা) ২৭ জন এবং সহকারী খাদ্য নিয়ন্ত্রক (খাদ্য) তিনজন নেওয়া হবে।

প্রফেশনাল ক্যাডারে রেলপথ মন্ত্রণালয়ে সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী একজন, সহকারী যন্ত্র প্রকৌশলী আটজন, সহকারী সংকেত ও টেলিযোগাযোগ প্রকৌশলী ছয়জন, সহকারী সরঞ্জাম নিয়ন্ত্রক একজন, সহকারী বৈদ্যুতিক প্রকৌশলী দুইজন (তথ্য), সহকারী বন সংরক্ষক (বন) পাঁচজন নেওয়া হবে।

সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) পদে ২৯ জন, সহকারী প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) সাতজন, বিসিএস মৎস্যতে ১৫ জন, পশুসম্পদে ২১০ জন, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ৪২ জন ও বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা দুইজন, সহকারী সার্জন ১০০ জন, সহকারী সার্জন (ডেন্টাল) ২৫ জন, সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) ২২ জন, সহকারী প্রকৌশলী হিসেবে ছয়জন কর্মকর্তাকে এই বিসিএস-এ নিয়োগ দেওয়া হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:12

দোষী সাব্যস্ত অং সান সু চি, চার বছরের কারাদণ্ড

দোষী সাব্যস্ত অং সান সু চি, চার বছরের কারাদণ্ড
ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চির বিরুদ্ধে করা ১১টি মামলার মধ্যে প্রথমটির রায় হয়েছে। সোমবার (৬ ডিসেম্বর) তাকে চার বছরের কারাদণ্ড দেন মিয়ানমারের আদালত।

সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে উসকানি দিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি এবং কোভিড-১৯ প্রোটোকল লঙ্ঘনের মাধ্যমে জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইন ভাঙার অভিযোগে সু চিকে এই কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আজ ঘোষণা করা এই রায়ে সু চির পাশাপাশি মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট এবং সহ-আসামি উইন মিন্টকেও একই মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

মিয়ানমারে গত ১ ফেব্রুয়ারি অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী। গ্রেপ্তার করা হয় অং সান সু চিসহ তার দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) শীর্ষ নেতাদের। তখন থেকে ৭৬ বছর বয়সী সু চিকে গৃহবন্দি রাখা হয়েছে এবং অনেকগুলো মামলা করা হয়েছে। এসব মামলার মধ্যে রয়েছে—দুর্নীতি, রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইন ভঙ্গ এবং সহিংসতায় উস্কানি দেওয়ার মতো অভিযোগ।

নোবেলজয়ী এ নেত্রীর বিরুদ্ধে আরও যেসব অভিযোগ আনা হয়েছে, সেগুলো প্রমাণিত হলে তার ১০২ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। যদিও সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সু চি। সূত্র : বিবিসি ও রয়টার্স
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:09

বিশ টাকায় মিলবে চিকিৎসা

বিশ টাকায় মিলবে চিকিৎসা
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বেলাল উদ্দিন সরকার ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে সাপ্তাহিক ফ্রি চিকিৎসাসেবা কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের দক্ষিণ বারতোপো সরকারবাড়ি মোড়ে এ ফ্রি চিকিৎসা সেবার উদ্বোধন করা হয়। এতে তিন হাজারেরও বেশি অসহায়, দরিদ্র মানুষকে চিকিৎসা ও ওষুধ দেয়া হয়েছে।

হুমায়ুন আহমেদের সঞ্চালনায় ও আব্দুস সামাদ সরকারের সভাপতিত্বে সাপ্তাহিক ফ্রি চিকিৎসা সেবা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বেলাল উদ্দিন সরকার ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডাক্তার মজিবুর রহমান।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব মাহমুদুল হাসান, পিয়ার আলী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ আবুল খায়ের, জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট কার্ডিওলজি বিভাগের ডা. মামুনুর রহমান, শ্রীপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মাহফুল হাসান হান্নান প্রমুখ।

ডাক্তার মুজিবুর রহমান বলেন, বেলাল উদ্দিন সরকার ফাউন্ডেশনে প্রতি সপ্তাহের মঙ্গলবারে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প থাকবে। এখানে বিশ টাকা দিয়ে টিকিট কেটে সেবা নিতে পারবেন অসহায় ও সুবিধাবঞ্চিতরা। আমরা অসহায় মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখতে চাই। আমরা চাই সমাজের খেটেখাাওয়া, সুবিধাবঞ্চিত ও অসহায়দের জন্য কিছু একটা করা। আমার সবসময় মানুষের কল্যাণে কাজ করার চিন্তার প্রতিফলন এ ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্প।
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:06

ছয় ঋতুর দেশ বাংলাদেশ। প্রতি বছরই এ দেশের মানুষের দুয়ারে হাজির হয় শীতকাল। মুমিনের জন্য শীত হাজির হয় আশীর্বাদ হয়ে। 
শীতকালে নামাজ-রোজা যেমন সহজভাবে করা যায় তেমনি দান সাদকাহও করা যায় বেশি বেশি। ফলে খুব সহজেই শীতাকালে আল্লাহর নৈকট্য অর্জনের অপার সুযোগ থাকে। 
রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম শীতকে মুমিনের মাস বলেও বলে উল্লেখ করেছেন। আবু সাইদ খুদরি (রা.) থেকে বর্ণিত- রাসুলুল্লাহ সালল্লাহ আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, শীতকাল হচ্ছে মুমিনের বসন্তকাল। (মুসনাদে আহমাদ)। 
শীতকালে বেশকিছু ইবাদতে সহজে আল্লাহর নৈকট্য লাভ করা যায়।
রোজা রাখা রোজা আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের বড় একটি মাধ্যম। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, যে ব্যক্তি আল্লাহর জন্য এক দিন রোজা রাখল, আল্লাহ প্রতিদানস্বরূপ জাহান্নান এবং ওই ব্যক্তির মাঝখানে ৭০ বছরের দূরত্ব সৃষ্টি করে দেবেন। (বুখারি, মুসলিম)।
আর এ রোজার সবচেয়ে মোক্ষম সুযোগ হলো শীতকাল। কারণ শীতকালে দিন থাকে খুবই ছোট এবং ঠাণ্ডা। ফলে দীর্ঘ সময় না খেয়ে যেমন থাকতে হয় না, তেমন তৃষ্ণার্ত হওয়ার ভয়ও কম। 
এজন্যই রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, শীতল (সহজ) গনিমত হলো শীতকালে রোজা রাখা। (তিরমিযি)।
নফল নামাজ পড়া: শীতকাল তাহাজ্জুদ ও নফল নামাজের বড় সুযোগ। কারণ শীতকালে রাত হয় দীর্ঘ। কেউ যদি এশার সালাতের পর রাত ৯টায় শোয় আর ভোর ৪টা পর্যন্ত টানা ঘুমায় তবু পুরো ৭ ঘণ্টা ঘুমানো হবে। আর ভোর ৪টার পরও শীতকালে প্রায় ২ ঘণ্টা রাত থাকে। একজন মুমিন চাইলে সেই ২ ঘণ্টা আল্লাহর নৈকট্য লাভে তাহাজ্জুদে কাটাতে পারেন। 
তাই তো হাদিসে এসেছে- শীতের রাত দীর্ঘ হওয়ায় মুমিন রাত্রিকালীন নফল নামাজ পড়তে পারে এবং দিন ছোট হওয়ায় রোজা রাখতে পারে। (বায়হাকি) 
অজু ও নামাজের অপেক্ষা: শীতকালে পরিপূর্ণভাবে অজু করা অনেক সওয়াবের কাজ। এমনকি যদি কেউ গরম পানি দিয়ে অজু করে সেও সেই পুণ্য পাবে। দিন ছোট হওয়ায় ফরজ নামাজগুলো খুব কাছাকাছি সময়ে আদায় করা হয়। 
এক নামাজের পর আরেক নামাজের জন্য অপেক্ষা করা অনেক বড় সওয়াবের কাজ। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, আমি কি তোমাদের এমন কিছু শিখিয়ে দেব না, যার কারণে আল্লাহ পাপ মোচন করবেন এবং জান্নাতে তোমাদের মর্যাদা বৃদ্ধি করবেন? 
সাহাবিরা বললেন, হ্যাঁ আল্লাহর রাসুল! নবীজি বললেন, মন না চাইলেও ভালোভাবে অজু করা, অধিক পদক্ষেপে মসজিদে যাওয়া এবং এক নামাজের পর আরেক নামাজের জন্য অপেক্ষা করা। (সহিহ মুসলিম)
শীতবস্ত্র বিতরণ: পর্যাপ্ত শীতবন্ত্র না থাকায় শীতকালে অনেক গরিব মানুষকে কষ্ট করতে হয়। ঘন কুয়াশা ও তীব্র শীতের প্রকোপে নিদারুণ কষ্টে মানবেতর জীবনযাপন করতে হয় আমাদের দেশের বিভিন্ন প্রান্তের লাখো শিশু, বৃদ্ধ ও নারী পুরুষকে। 
ছিন্নমূল অসহায় মানুষ খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত মোকাবিলার ব্যর্থ চেষ্টা করে। আমরা চাইলে অপবায় অপচয় কমিয়ে অল্প টাকায় শীতবস্ত্র কিনে বস্ত্রহীন মানুষের ঘরে পৌঁছে দিতে পারি। শীতার্ত মানুষকে প্রয়োজনীয় বস্তু দিয়ে জান্নাতের মহানিয়ামত লাভে ধন্য হওয়ার সুযোগ রয়েছে।
রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, যে ব্যক্তি কোনো বজ্রহীনকে কাপড় পরাবে আল্লাহ তাকে জান্নাতের সবুজ রেশমি কাপড় পরাবেন। যে ব্যক্তি কোনো ক্ষুধাতকে আহার করাবে আল্লাহ তাকে জান্নাতের ফল খাওয়াবেন। যে ব্যক্তি কোনো তৃষ্ণার্তকে পানি পান করাবে মহামহিম আল্লাহ তাকে জান্নাতের পবিত্র প্রতীকধারী শরাব পান করাবেন। (আবু দাউদ)
আমাদের নিকটস্থ অভাবী মানুষটিকে একটি শীতবস্ত্র কিনে দিয়ে আমরাও পেতে পারি জান্নাতের সেই সবুজ রেশমি পোশাক। আল্লাহ আমাদের তৌফিক দিন।
লেখক: শিক্ষার্থী, উচ্চতর ইসলামিক আইন গবেষণা বিভাগ (ইফতা), আল জামিয়াতুল ইমদাদিয়া কিশোরগঞ্জ

0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:05

টরন্টো ফিল্ম ফোরামের মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র প্রদর্শনী

টরন্টো ফিল্ম ফোরামের মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র প্রদর্শনী
বাংলাদেশের বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে অনলাইনে মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে টরন্টো ফিল্ম ফোরাম। অনলাইন এবং অডিটরিয়ামে – দুই মাধ্যমে চলচ্চিত্র প্রদর্শনের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং সংগ্রামের গৌরবগাঁথা মানুষের সামনে তুলে ধরতে এই আয়োজন করা হয়েছে বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন।


১ ডিসেম্বর থেকে অনলাইনে প্রতিদিন একটি করে সিনোম দেখানো হচ্ছে। অনলাইনের এই প্রদর্শনী চলবে পুরো ডিসেম্বর মাস। এছাড়া ডিসেম্বরের প্রতি শুক্রবার টরন্টো ফিল্ম ফোরামের মাল্টিকালচারাল স্ক্রিনিং অডিটরিয়ামে একটি করে সিনেমা দেখানো হবে।
মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরের ট্রাস্টি মফিদুল হক ১ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে অনলাইন প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন। এই উপলক্ষে দেয়া ভার্চুয়াল বক্তৃতায় তিনি ফিল্ম ফোরামের এই উদ্যোগের প্রশংসা করে বলেন, মাসব্যাপী এই প্রদর্শনীর মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্নস্থানের মানুষের কাছে মুক্তিযুদ্ধের গৌরবগাঁথা পৌঁছে দেয়া সম্ভব হবে।
টরন্টো ফিল্ম ফোরামের এই আয়োজনকে মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর সর্বাত্মক সহযোগিতা করছে বলে উল্লেখ করে মফিদুল হক বলেন, মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর প্রয়োজিত মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক সিনেমাগুলোও এই আয়োজনে প্রদর্শিত হবে।
শুক্রবার টরন্টো ফিল্ম ফোরামের মাল্টিকালচারাল স্ক্রিনিং সেন্টারে টরন্টোর দর্শকদের জন্য ইন পার্সন প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন কবি আসাদ চৌধুরী। এই উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ফোরামের সভাপতি এনায়েত করীম বাবুল এবং সাধারণ সম্পাদক মনিস রফিক। এই সময় টরন্টো ফিল্ম ফোরাম প্রযোজিত ও নির্মিত ‘আমার ৫০’ ডকু ফিল্ম প্রদর্শন করা হয়।

কবি আসাদ চৌধুরী তার বক্তৃতায় মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর প্রশংসা করে বলেন, ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধ এই দেশের সাধারণ মানুষের আকাংখার বাস্তবায়ন। সেই আকাংখা এবং আকাংখা পূরণের লড়াইকে সিনেমার মাধ্যমে সবখানে ছড়িয়ে দেয়াটা গুরুত্বপূর্ণ। সেই গুরু দায়িত্ব পালন করছে টরন্টো ফিল্ম ফোরাম।
ফোরামের সভাপতি এনায়েত করীম বাবুল জানান, পুরো ডিসেম্বর মাসে প্রতিদিনই অনলাইনে মুক্তিযুদ্ধের সিনেমা, ডকুমেন্টারি প্রদর্শিত হবে। আগ্রহীরা torontomulticulturalfilmfestival.com
এই লিংকে গিয়ে প্রতিদিনই অনলাইনে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে মুক্তিযুদ্ধের সিনেমা দেখতে পারবেন। এছাড়াও ডিসেম্বরের প্রতি শুক্রবার সন্ধ্যায় একটি করে চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে।
টরন্টো ফিল্ম ফোরামের ঘোষনা অনুসারে, আগামী ১০ ডিসেম্বর -মেঘমল্লার, ১৭ ডিসেম্বর- অলাতচত্র, ২৪ ডিসেম্বর অনিল বাগচীর একদিন এবং ৩১ ডিসেম্বর- গেরিলা প্রদর্শিত হবে। ৩০০০ ডেনফোর্থে অবস্থিত টরন্টো ফিল্ম ফোরামের ‘মাল্টিকালচারাল ফিল্ম ম্ক্রীনিং সেন্টারে ‘ দেখানো হবে।
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:03

ফোর্বস ম্যাগাজিনে স্থান পেল বাসিমা ইসলামের ডিভাইস

ফোর্বস ম্যাগাজিনে স্থান পেল বাসিমা ইসলামের ডিভাইস
ব্যাটারি ছাড়া চালানো যাবে পরবর্তী প্রজন্মের এমন ‘ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি)’ ডিভাইস তৈরিতে কাজ করার জন্য এবার ফোর্বস ম্যাগাজিনে স্থান পেয়েছেন বাংলাদেশের বাসিমা ইসলাম। ‘৩০ আন্ডার ৩০’ অর্থাৎ তিরিশ বছরের কম বয়সি ৩০ জনের মধ্যে সায়েন্স ক্যাটাগরিতে স্থান পেয়েছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সাবেক শিক্ষার্থী প্রকৌশলী বাসিমা।


তাকে নিয়ে ফোর্বস ম্যাগাজিন লিখেছে, বাসিমা ইসলাম এমন ডিভাইসের উন্নয়নে কাজ করছেন, যা সৌরশক্তি এবং রেডিও তরঙ্গ ব্যবহার করেই চার্জ দেওয়া যাবে। এ ছাড়া তার এসব ডিভাইস হবে শব্দভেদী। এসব ডিভাইস পথচারীদের নিরাপত্তা দিতে সহায়তা করবে। শব্দতরঙ্গ ব্যবহার করে যানবাহন থেকে পথচারীদের নিরাপদ রাখবে। এমন সব চমৎকার কাজের জন্য ফোর্বস ম্যাগাজিন বাসিমাকে বেছে নিয়েছে। এসব তথ্য প্রকাশিত হয়েছে ফোর্বস ম্যাগাজিনে। বাসিমা বলেন, ‘আমার ইন্টারডিসিপ্লিনারি গবেষণার বিষয়বস্তু বহুমুখী। এর মধ্যে আছে মেশিন লার্নিং, মোবাইল কম্পিউটিং, এম্বেডেড সিস্টেমস এবং ইউনিকুইটাস কম্পিউটিং।’

উল্লেখ্য, আইওটি ডিভাইসগুলো প্রচলিত ডিভাইসের চেয়ে খানিকটা আলাদা। এগুলো ওয়্যারলেস সিগন্যাল ও সংযোগের মাধ্যমে কাজ করে থাকে। রিমোট সেনসিং, উপস্থিতি শনাক্তকরণ, কোনো বস্তু কিংবা অবস্তুগত সত্তার ব্যাপারে ব্যবহারকারীকে অবহিতকরণই মূলত আইওটি ডিভাইসগুলোর কাজ।

ফোর্বস বাংলাদেশের এ উদীয়মান প্রতিভার পরিচয় দিতে গিয়ে বলেছে, বাসিমা ইসলাম যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটসের ওরস্টার পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক। বাসিমার উদ্ভাবিত ডিভাইসের মধ্যে একটি হবে হাতে পরিধানযোগ্য। এর থাকবে শব্দ শুনে কাজ করার ক্ষমতা। ডিভাইসটি রাস্তায় নামা পথচারীকে যানবাহন এলে আগেই সাবধান করে দেবে। বাসিমা ঢাকার ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ পেরিয়ে ভর্তি হন বুয়েটে। তিনি ২০১৬ সালে বুয়েট থেকে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিষয়ে স্নাতক সম্পন্ন করে উচ্চশিক্ষার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান। সেখানে চ্যাপেল হিলের ইউনিভার্সিটি অব নর্থ ক্যারোলাইনা থেকে ২০২১ সালে পিএইচডি সম্পন্ন করেন।

মেয়ের এ সাফল্যে অনুভূতি জানাতে গিয়ে বাবা ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল (বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট) অ্যাডভোকেট শেখ বাহারুল ইসলাম এবং মা ভিকারুন নিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সহকারী প্রধান শিক্ষক লাইলুন নাহার বলেন, ‘আসলে খবরটা জানতে পেরে আমরা এত খুশি হয়েছি যে, অনুভূতি জানানোর ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। আমরা সবার কাছে দোয়া চাইছি, মেয়েটি যেন আরও গবেষণা করে নতুন নতুন আবিষ্কারের মাধ্যমে বাংলদেশের মুখ উজ্জ্বল করতে পারে।’
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:02

বসুন্ধরায় নবাব ডাইনের যাত্রা শুরু

বসুন্ধরায় নবাব ডাইনের যাত্রা শুরু
নবাবী খাবারের স্বাদ নিয়ে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় (লতিফ ম্যানশন) যাত্রা শুরু করেছে নবাব ডাইন রেস্টুরেন্ট।


এ রেস্টুরেন্টে নবাবী কাচ্চি, বাসমতি কাচ্চি, মুরগির রোস্ট, খাসি-গরুর রেজালা, কাবাব, বাদাম শরবত, ফিরনি, জদ্দা ও কোমল পানীয় পাওয়া যাবে। এছাড়াও ছাত্রদের জন্য সুলভ মূল্যে স্পেশাল কাচ্চি ও রোস্ট পোলাও পাওয়া যাবে।

সোমবার দুপুরে কেক ও ফিতা কেটে নবাব ডাইনের উদ্বোধন করেন যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান ও সাবেক মহিলা, শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন গাজী টেলিভিশনের এডিটর ইন চিফ সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা এবং টিভি টুডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মনজুরুল আহসান বুলবুল।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সালমা ইসলাম বলেন, নবাবদের ঐতিহ্যবাহী খাবার নিয়ে আজ নবাব ডাইন যাত্রা শুরু করলো। আশা করছি, নবাবীদের ঐতিহ্যের কথা মাথায় রেখে নবাবরা যে গুণগত মান সম্পন্ন টাটকা খাবার খেত তেমন খাবারই তারা পরিবেশন করবে, পচা-বাসি খাবার থেকে দূরে থাকবে। এটা করতে পারলে অল্প দিনেই নবাব ডাইন সারা দেশে তাদের শাখা বিস্তৃত করতে পারবে।

রেস্টুরেন্টের মালিক এমএম সেকেন্দার বলেন, খাবারে নবাবীদের ঐতিহ্য ও ব্যক্তিত্ব ধরে রাখতে নবাব ডাইন সর্বাত্মক চেষ্টা করবে। কখনোই আমরা কোয়ালিটির সঙ্গে কম্প্রোমাইজ করব না।
0 Share Comment
fatima
07 December 2021, 18:01

ফেসবুকে থাকছে না ক্রিপ্টো বিজ্ঞাপন নিষেধাজ্ঞা

ফেসবুকে থাকছে না ক্রিপ্টো বিজ্ঞাপন নিষেধাজ্ঞা
জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযগ মাধ্যম ফেসবুকে দীর্ঘদিন ক্রিপ্টোকারেন্সির বিজ্ঞাপন বন্ধ রেখেছিল। গত বুধবার ফেসবুক দীর্ঘস্থায়ী নীতিকে উল্টানোর সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে যার ফলে বেশিরভাগ ক্রিপ্টোকারেন্সি কোম্পানিগুলো ফেসবুকে বিজ্ঞাপন চালাতে পারবে। ফেসবুক পণ্যগুলোর মাধ্যমে বিশ্বের যে কাউকে অনলাইনে অর্থ পাঠাতে কিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার করা যেতে পারে। ফেসবুক মেটা নামকরণের পর ক্রিপ্টোকারেন্সি চালু করার চেষ্টা করে এবং ব্যর্থ হওয়ার পর এ পদক্ষেপ নেয়। ফেসবুকের ক্রিপ্টোকারেন্সি ইফোর্টসের প্রধান ডেভিড মার্কাস মঙ্গলবার ঘোষণা করেছেন, তিনি বছরের শেষের দিকে কোম্পানিটি ছেড়ে দেবেন। প্রতিষ্ঠানটি এক বিবৃতিতে জানায়, আমরা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছি কারণ সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ক্রিপ্টোকারেন্সি ল্যান্ডস্কেপ ম্যাচিউর ও স্থিতিশীল হতে চলেছে। পাশাপাশি আরও বেশি সরকারি বিধিনিষেধ রয়েছে যা ইন্ডাস্ট্রির জন্য স্পষ্ট রুলস নির্ধারণ করছে।’ কোম্পানি ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে ক্রিপ্টোকারেন্সি বিজ্ঞাপন নিষিদ্ধ করেছিল। কিন্তু ২০১৯ সালের মে মাসে সেই নিষেধাজ্ঞা কিছুটা পিছিয়ে দেয়। এ নিষেধাজ্ঞার ফলে ক্রিপ্টোকারেন্সি এবং ব্লকচেইন ফিল্ডের স্টার্ট-আপগুলো ফেসবুক ও ইন্সট্রাগ্রামে তাদের কাজ প্রচার করতে ও সম্ভাব্য গ্রাহকদের কাছে পৌঁছানোর সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়।
0 Share Comment
আরও খুজুন। এজন্য নিচের বক্সে লিখে এন্টার চাপুন অথবা সার্চ আইকনে ক্লিক করুন। Find out more. To do this, type in the box below and press Enter or click on the search icon.
$
$

Image Product Price
Buy Electric Popcorn Maker 2 000.00 BDT each
+
Add to cart
Buy water spray motor Car 1 550.00 BDT each
+
Add to cart
Buy Rechargeable Automatic Water Dispenser Pump 1 000.00 BDT each
+
Add to cart
Buy Self-Suction Sit Up Bars 910.00 BDT each 11 items in stock
+
Add to cart
Buy Electric Chula,Osaka 1 550.00 BDT each
+
Add to cart
Buy Full Body Vibration Machine 18 500.00 BDT each
+
Add to cart
Buy Double Microwave Oven Stand Shelf 1 350.00 BDT each 7 items in stock
+
Add to cart
Buy Orbit Fruit & Vegetable Cutter 1 050.00 BDT each
+
Add to cart
Buy Table Pen Holder 520.00 BDT each
+
Add to cart
LCD Writing Tablet 580.00 BDT each 8 items in stock
+
Add to cart
Neck Therapy Instrument 1 750.00 BDT each
+
Add to cart
Buy Rechargeable Full HD Night Vision Camrea 1 000.00 BDT each 11 items in stock
+
Add to cart
Buy ATOMIC ZAPPER 1 100.00 BDT each 9 items in stock
+
Add to cart
Blackheads Remover 1 000.00 BDT each
+
Add to cart
Buy Magic Silicon Dish Washing Gloves 550.00 BDT each
+
Add to cart
Buy Apple electric massager 400.00 BDT each
+
Add to cart
Capsule Cutter 1 100.00 BDT each 20 items in stock
+
Add to cart
Buy spinning broom cleaner machine 1 000.00 BDT each 8 items in stock
+
Add to cart
Buy Anti Snoring Device 600.00 BDT each
+
Add to cart
Buy Power Floss Teeth 650.00 BDT each
+
Add to cart
Buy Multi-layer DIY 2 100.00 BDT each
+
Add to cart
Cell Phone Signal Booster 480.00 BDT each
+
Add to cart
Buy Blackheads Remover 1 100.00 BDT each
+
Add to cart
Buy Furniture Easy Moving 1 500.00 BDT each
+
Add to cart